• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • KOLKATA POLICE GAVE FOOD TO HUNGRY PEOPLE IN THIS LOCKDOWN TIME PB

লকডাউনে নিজেরা চাঁদা তুলে, রেঁধে অভুক্তদের মুখে খাবার তুলে দিচ্ছে কলকাতার পুলিশকর্মীরা !

শুধুমাত্র ফুটপাতবাসী কিংবা ভবঘুরেরাই নয়, পথ চলতি মানুষ যারা অত্যন্ত প্রয়োজনে রাস্তায় বেরিয়েছেন তাদের খাবার ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।

শুধুমাত্র ফুটপাতবাসী কিংবা ভবঘুরেরাই নয়, পথ চলতি মানুষ যারা অত্যন্ত প্রয়োজনে রাস্তায় বেরিয়েছেন তাদের খাবার ব্যবস্থাও করা হচ্ছে।

  • Share this:

#কলকাতা :  লকডাউনে  গৃহবন্দি শহর। রাস্তাঘাট শুনশান । খোলা নেই দোকানপাট। রাস্তায় নেই মানুষ। কার্যত অনাহারে দিন কাটছে রাস্তার ধারে থাকা অসহায় মানুষগুলোর। বর্তমানে এই সমস্ত অসহায় মানুষদের মুখে অন্ন তুলে দিচ্ছেন শহরের পুলিশকর্মীরা। কলকাতা পুলিশের সাউথ ট্রাফিক গার্ডের পুলিশকর্মীরা ব্যক্তিগত উদ্যোগে নিজেদের কর্তব্য পালনের পাশাপাশি ওদের কাছে খাবারও পৌঁছে দিচ্ছেন।  নিজেদের কর্তব্যে অবিচল থেকে তারই  মাঝে কিছুটা সময় বের করে নিয়ে  অভুক্ত অসহায় মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছেন ট্রাফিক পুলিশ কর্মীরা। পার্কস্ট্রিট সহ আশেপাশের অভুক্ত মানুষরা যাতে পেট ভরে খাবার পায় সে কারণেই এই উদ্যোগ ।পুলিশকর্মীরা নিজেদের মধ্যে চাঁদা তুলে রাঁধুনি দিয়ে রান্না করিয়ে  প্রতিদিন নির্দিষ্ট সময়ে সেই খাবার পৌঁছে দিচ্ছেন হতদরিদ্র মানুষদের কাছে।

তবে শুধুমাত্র ফুটপাতবাসী কিংবা ভবঘুরেরাই নয়,  পথ চলতি মানুষ যারা অত্যন্ত প্রয়োজনে রাস্তায় বেরিয়েছেন তাদের খাবার ব্যবস্থাও করা হচ্ছে। দেওয়া হচ্ছে জলের পাউচও। উদ্যোক্তাদের তরফে  কলকাতা পুলিশের সার্জেন্ট দীপ্তিময়  ঘোষ বলেন, 'সবকিছুই বন্ধ। রাস্তায় মানুষজনের আনাগোনাও কম। তাই বিশেষ করে ফুটপাথবাসী  যাদের ঘর সংসার  সবই  রাস্তাঘাট বিশেষ করে তাদের কথা ভেবেই আমাদের এই ভাবনা। যতদিন লকডাউন চলবে আমরা ওদের পাশে আছি'। তবে শুধুমাত্র পথচলতি মানুষ কিংবা রাস্তার ধারে বসবাসকারীরাই  নয় , এই সময় সব খাবার দোকানপাটও বন্ধ। তাই পথচলতি সারমেয়রাও আজ পড়েছে সমস্যায়। অভুক্ত সেই সমস্ত সারমেয়দেরও মুখে খাবার তুলে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে কলকাতা পুলিশের সাউথ ট্রাফিক গার্ড। অসহায় মানুষদের পাশাপাশি অভুক্ত সারমেয়দের পাশে দাঁড়িয়ে মানবিকতার নজির গড়লেন পুলিশকর্মীরা। অনেক অসহায় মানুষ যারা রাস্তায় নেমে বিপদে পড়েছেন তাদেরই একজন অ্যাম্বুলেন্স চালক মহাদেব রায় বলেন, 'পেশেন্ট নিয়ে নিমতা থেকে সকালে কলকাতায় এসেছি ।রাস্তায় কোনও খাবার পাইনি। শেষমেশ পুলিশকর্মীরাই আমাকে খাবার দিয়ে সাহায্য করলেন' ।এমন অনেক সাধারণ মানুষ  যারা রাস্তায় বেরিয়ে অভুক্ত রয়েছেন প্রয়োজনে তাদেরও খাবার দিয়ে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন এই সমস্ত পুলিশকর্মীরা।

VENKATESWAR LAHIRI 
Published by:Piya Banerjee
First published: