কলকাতা পুলিশের জালে এক্সপায়ার্ড ওষুধ বিক্রির চক্র

নয়া মোড়কে এক্সপায়ার্ড ওষুধ বিক্রির চক্র। লালবাজার সংলগ্ন ক্যানিং স্ট্রিটে ছাপাখানার আড়ালে চলছিল মেয়াদ ফুরানো ওষুধে নতুন তারিখ বসানোর কাজ।

Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Mar 09, 2017 07:26 PM IST
কলকাতা পুলিশের জালে এক্সপায়ার্ড ওষুধ বিক্রির চক্র
Akash Misra | News18 Bangla
Updated:Mar 09, 2017 07:26 PM IST

#কলকাতা: নয়া মোড়কে এক্সপায়ার্ড ওষুধ বিক্রির চক্র। লালবাজার সংলগ্ন ক্যানিং স্ট্রিটে ছাপাখানার আড়ালে চলছিল মেয়াদ ফুরানো ওষুধে নতুন তারিখ বসানোর কাজ। বাজেয়াপ্ত প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ টাকার মেয়াদ উত্তীর্ণ অ্যান্টিবায়োটিক ও ইঞ্জেকশন। গ্রেফতার ছাপাখানার মালিক পবন ঝুনঝুনওয়ালা ও ওষুধের ডিস্ট্রিবিউটার রিনেশ সারোদি। ড্রাগ কন্ট্রোলারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন।

ক্যানিং স্ট্রিটে ওষুধে মারণচক্র

নয়া মোড়কে এক্সপায়ার্ড ওষুধ

ওষুধ কারচুপিতে গ্রেফতার ২

মেয়াদ ফুরানো ওষুধে নতুন তারিখ বসিয়ে বিক্রির ছক। ক্যানিং স্ট্রিটে ছাপাখানার আড়ালে চলত এই মারণ চক্র। ড্রাগ কন্ট্রোলারের থেকে অভিযোগ পেয়ে ওই ছাপাখানায় তল্লাশি চালায় পুলিশ। বাজেয়াপ্ত হয়েছে প্রায় সাড়ে ৩ লক্ষ টাকার মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ।

তল্লাশিতে উদ্ধার

- অ্যান্টিবায়োটিক

- জীবনদায়ী ইঞ্জেকশন

কিভাবে কাজ করত এই চক্রটি? পুলিশের দাবি,

- ডিস্ট্রিবিউটারের কাছ থেকে মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ আসত

- নেল পলিশ রিমুভার দিয়ে ওষুধের উপরের লেখা মোছা হত

- তারপর নতুন ব্যাচ নম্বর ও এক্সপ্যারিডেট ছাপানো হত

- ওষুধের অক্সপ্যারিডেট ২-৩ বছর বাড়ানো হত

ছাপাখানার মালিক পবন ঝুনঝুনওয়ালাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাকে জেরা করে বেলুড়ের এক ওষুধের ডিস্ট্রিবিউটার রিনেশ সারোদিকে গ্রেফতার করা হয়। বেলুড়ের জিটি রোড থেকে রিনেশকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃতদের বিরুদ্ধে ড্রাগ ও কসমেটিক আইনে মামলা রুজু করা হয়েছে।

যে যে ধারায় মামলা

- লাইসেন্স ছাড়া ওষুধ তৈরি

- লাইসেন্স ছাড়া ওষুধ কেনা ও বিক্রি

- তথ্য গোপন

এই ঘটনায় ড্রাগ কন্ট্রোলারের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। ধৃতদের জেরা করে এই চক্রে আর কারা জড়িত তা খুঁজে বের করতে চাইছে পুলিশ। রিনেশ সারোদির মত আর কোনও ওষুধের ডিস্ট্রিবিউটার এই চক্রের সঙ্গে জড়িত কিনা? তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

First published: 07:26:44 PM Mar 09, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर