বর্ষবরণের রাতে নিরাপত্তায় মোড়া শহর, পুলিশের হানা পানশালায়

বর্ষবরণের রাতে নিরাপত্তায় মোড়া শহর, পুলিশের হানা পানশালায়

কড়া নিরাপত্তায় মোড়া শহর

  • Share this:

Susovan Bhattacharjee

#কলকাতা: কঠোর নিরাপত্তায় মোড়া শহরে বর্ষবরণের রাত। পুলিশ কমিশনারের নির্দেশ মেনে প্রতিটি থানা এলাকায় নাইট ক্লাব বা পানশালাগুলিতে হানা দিল কলকাতা পুলিশ। তাদের তরফে আবেদন নিদির্ষ্ট সময় মেনে পানশালা বা নাইটক্লাব খুলে রাখুন, অসুবিধা মনে হলে জানান থানায়। এমনটাই ট্যুইট করে জানান খোদ নগরপাল।

কোনওভাবেই নির্ধারিত সময় বাদে বাড়তি সময় যেন খোলা না থাকে পানশালা বা নাইটক্লাব। এমনটাই নির্দেশ দিয়েছিলেন খোদ পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা। প্রতিটি থানা এলাকায় নাইট ক্লাব বা পানশালায় কড়া নির্দেশ লালবাজারের। তাদের তরফে আরও বার্তা, অসুবিধা হলে বা কোনও বিশৃঙ্খলা তৈরি হলে দ্রুত থানায় জানান। কোনভাবেই যেন মহিলাদের সমস্যায় না পড়তে হয়। এদিন নির্দেশে পাশাপাশি ১০০ ডায়াল করার পরামর্শও দেন নিউ মার্কেট থানার অফিসার দীপঙ্কর রপ্তান ও শুভদীপ বণিক। এদিনের নির্দেশে বারবার জানানো হয়, মহিলাদের সুরক্ষার জন্য প্রয়োজনে এগিয়ে আসতে। মঙ্গলবার সকালে পুলিশ কমিশনার অনুজ শর্মা ট্যুইট করে জানিয়েছেন, অভিজ্ঞ অফিসারের দ্বারা শহরের নিরাপদ সুনিশ্চিত ও কঠোর করা হয়েছে। কোনও অসুবিধায় লালবাজার কন্ট্রোল রুমে ১০০ নম্বর দাবাল করার পরামর্শ দেন । এদিনের ট্যুইটে নতুন বছরের আগাম শুভেচ্ছাও জানান নগরপাল। যদিও শুধুই পানশালাগুলিতে বা নাইটক্লাবে জানানো নয়, সূত্রের খবর, যত রাত বাড়বে সাদা পোশাকের পুলিশ নজর রাখবে। রাস্তায় রাস্তায় নাকা চেকিংও হবে রাত থেকে। নিরাপত্তা নিয়ে বারবার নির্দেশ দিয়েছেন পুলিশ কমিশনার। বছরের শেষ দিনও তার পরিবর্তন হল না। এদিনের ট্যুইট দেখে শহরের অনেক বাসিন্দা আশ্বস্ত বোধ করছেন।

যদিও সোমবার রাতেই লালবাজার থেকে নির্দেশ যায় প্রতিটি থানায়। তারপরে সোমবার শহরের অনেক থানা নিজ নিজ এলাকার নাইটক্লাব ও পানশালায় জানানো শুরু করে, মঙ্গলবার বছরের শেষ দিনও চলল জানানোর কাজ। যদিও শহরের বেশকিছু থানা এলাকায় নাইটক্লাব বা পানশালা না থাকায় তাদের বেশি করে নাকা চেকিং-এর উপর জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। বড়দিনের রাতে নাকা চেকিং-এ যে সংখ্যায় মদ্যপ ব্যাক্তি, হেলমেটহীন গাড়ি, একের বেশি আরোহী ধরা পড়ে, তাতে বর্ষবরণে রাতের নাকা চেকিং-এ সংখ্যাটা বাড়বে বলে মনে করছে লালবাজার। যদিও এদিন মহিলাদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে দ্যা উইনার্সকে বিকেল থেকেই দেখা যায় ভিক্টোরিয়া, পার্ক স্ট্রীট, শেক্সপিয়ার সরনি, রবীন্দ্র সরনি এলাকায়। বিকেল থেকে মধ্য রাত পর্যন্ত চলবে তাদের নজরদারি। যদি কেউ বিপদে পড়েন বা লালবাজারে বিপদের পড়ার কথা জানান, তাহলে তাঁরা পৌঁছে যাবেন। সব মিলিয়ে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় মোড়া শহর। সকালের তুলনায় পুলিশ বেশি রয়েছে কলকাতার রাস্তায়।

First published: December 31, 2019, 6:40 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर