• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • KOLKATA PETROL PRICES RISES AGAIN FUEL STATIONS RUSH TO GET FIVE DIGIT DISPLAY PANELS SS

Kolkata: দাম একশো ছুঁইছুঁই, এদিকে ৫ সংখ্যার ডিসপ্লে-র ব্যবস্থাই নেই! সমস্যায় শহরের অধিকাংশ পেট্রোল পাম্পই

Representational Image

Kolkata Petrol Pumps 5 digit display: বেশিরভাগ পেট্রোল পাম্পের দামের ডিসপ্লে বোর্ড ৫ সংখ্যার নয় ৷ এর ফলে পেট্রোল ও ডিজেলের দাম ১০০ টাকা বা তার বেশি হলে তা পাম্পের ডিসপ্লে বোর্ডে দেখানো সম্ভব নয় !

  • Share this:

    কলকাতা: জ্বালাচ্ছে জ্বালানি। বাংলার চার জেলায় পেট্রোলের সেঞ্চুরি। কলকাতায় ‘কালো সোনা’-র দাম একশোর পথে। পেট্রোলের দামবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ রাজ্যের একাধিক জেলায়। গত ৫ দিনে কলকাতায় একটু একটু করে সেঞ্চুরির পথে পেট্রোল। বাড়ছে স্নায়ুর চাপ। কোথাও পেট্রোলের দাম একশো ছুঁয়েছে। আবার কোথাও বা একশোর দোরগোড়ায়।

    কিন্তু এরই মধ্যে একটা নতুন সমস্যা দেখা গিয়েছে শহরের অধিকাংশ পেট্রোল পাম্পে ৷ বেশিরভাগ পেট্রোল পাম্পের দামের ডিসপ্লে বোর্ড ৫ সংখ্যার নয় ৷ এর ফলে পেট্রোল ও ডিজেলের দাম ১০০ টাকা বা তার বেশি হলে তা পাম্পের ডিসপ্লে বোর্ডে দেখানো সম্ভব নয় ৷ সর্বোচ্চ দেখানো যেতে পারে ৯৯.৯৯ টাকা ৷ অগত্যা হাতে লেখা ছাড়া আর উপায় নেই ৷ রাজ্যের কোথাও কোথাও মার্কার পেন, কিংবা কাগজে লিখেই আপাতত কাজ চালানো হচ্ছে ৷ এর আগে এই সমস্যা দেখা গিয়েছিল ১৯৯০ সালে ৷ সে বছর প্রথমবার পেট্রোলের দাম একলাফে বেড়ে দুই অঙ্কের হয়ে গিয়েছিল ৷ ২.৩৯ টাকা বেড়ে হয়েছিল ১২ টাকা ২৩ পয়সা ৷ দীর্ঘ ৩১ বছর পর আবার একই ধরণের সমস্যায় পড়েছে পেট্রোল পাম্পগুলি ৷ রেকর্ড পরিমাণে পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধিতে সমস্যায় গোটা দেশবাসী ৷

    এদিকে ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির জেরে পণ্য পরিবহণে প্রভাব পড়ার আশঙ্কা। মাথায় হাত পোস্তার চারশোর বেশি ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ীর।

    পোস্তা। ব্যস্ততম হোলসেল বাজার। এখান থেকেই রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় পৌঁছে যায় সমগ্রী। প্রায় এক হাজার ট্রাক পণ্য পরিবহণের কাজ করে। করোনাকালে ব্যবসায় মন্দার অভিযোগ উঠেছিল আগেই। এবার পেট্রোল আর ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধি। মাথায় হাত পোস্তার প্রায় ৪০০-র বেশি পরিবহণ ব্যবসায়ীর। তাঁদের দাবি, পরিবহণ খরচ বাড়ানো ছাড়া তাঁদের কাছে আর কোনও বিকল্প পথ নেই। অনেক ব্যবসায়ীই বাড়তি ভাড়া দিতে নারাজ। তাই পরিবহণ ব্যবসা সচল রাখতেও সমস্যা হচ্ছে বলে অভিযোগ। দাঁড়িয়ে রয়েছে অনেক ট্রাক। পরিবহণ ব্যবসায়ীদের দাবি, ইন্স্যুরেন্স খরচ, টোল, গাড়ির যন্ত্রাংশের খরচ বেড়েছে। তাই পুরনো ভাড়ায় অত্যাবশ্যকীয় সামগ্রী জেলায় পৌঁছে দিতে গিয়ে লাভ থাকছে না কিছুই।

    Published by:Siddhartha Sarkar
    First published: