সোশ্যাল মিডিয়া কিংবা স্মার্ট ফোনের হাত ধরে ' স্মার্ট ' হচ্ছে পাড়া সংস্কৃতি

সোশ্যাল মিডিয়া কিংবা স্মার্ট ফোনের হাত ধরে ' স্মার্ট ' হচ্ছে পাড়া সংস্কৃতি
representative image

পুরনো পাড়া সংস্কৃতির ধরন বদলে আধুনিক হচ্ছে পাড়া সংস্কৃতি

  • Share this:

Venkateswar Lahiri

#কলকাতা: হায়দরাবাদে তরুণী চিকিৎসককে গণধর্ষণ করার পর নৃশংস খুনের ঘটনায় অপরাধীদের কড়া শাস্তির দাবিতে সোচ্চার হয়েছিল গোটা দেশ। গর্জে উঠেছিল কলকাতাও। শেষমেষ শুক্রবার ভোররাতে পুলিশের এনকাউন্টারে চার অভিযুক্তের মৃত্যুর ঘটনায় নানা মহলে নানা প্রতিক্রিয়া। কেউ বলছেন, সঠিক কাজ করেছে পুলিশ, এটাই করা উচিত ছিল। আবার কেউ কেউ পুলিশের এনকাউন্টার নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। তাঁদের কথায়, আইনের মাধ্যমে যদি বিচার পেত অপরাধীরা তাহলেই গণতন্ত্রের পক্ষে ভাল হত। তবে এসবের মধ্যেই শহর কলকাতার মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে পুরনো পাড়া সংস্কৃতির ধরন বদলে আধুনিক হচ্ছে পাড়া সংস্কৃতি। লক্ষ্য একটাই,  নারী সুরক্ষা।

' পাড়া কালচার' ফিরছে কলকাতায়। তবে রকের আড্ডায় নয়,  শহরের মহিলাদের নিরাপত্তা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে সংগঠিত হচ্ছে তিলোত্তমা। উত্তর কলকাতা। এখানকার বাতাসে উড়ে বেড়ায় নস্টালজিয়া। অলিগলির মধ্যেও হাত টানা রিক্সা তুলে ধরে পুরনো কলকাতার ছবি। ভরা অফিস টাইমেও গল্পে মশগুল দুই বাড়ির গিন্নি। আর জীর্ণ শরীরে হাজারও আড্ডার কথা বলে পুরনো বাড়িগুলি। সময় বদলেছে। মরচে ধরেছে রকের আড্ডায়। তাই দোকানে লিকার চা আছে, কিন্তু নেই মোহনবাগান ইস্টবেঙ্গল নিয়ে উন্মাদনা। স্মৃতিতে শুধুই পাড়ার প্রতি পুরনো টান।

উত্তর কলকাতার হাতিবাগানের প্রবীণ নাগরিক দীপক কুমার দাস। বললেন, ১৯৫৪ সালে পাড়ায় এসেছি। পাড়া সংস্কৃতির নানান কর্মকাণ্ডের সঙ্গে যুক্ত ছিলাম। তখনকার  হৃদ্যতা আর এখনকার হৃদ্যতার মধ্যে  আকাশ-পাতাল তফাৎ। সোশ্যাল মিডিয়ার যুগেও পুরনো পাড়া কালচারকে সঙ্গী করেই নাগরিকদের নানান ধরনের বিপদে আজও পাশে দাঁড়ান সত্তরোর্ধ্ব নাগরিক অঞ্জলি প্রসাদ তরফদার। তার কথায়, "তখন স্মার্ট ফোন ছিল না, কিন্তু স্মার্ট মন  ছিল"। সম্প্রতি হায়দরাবাদের ঘটনার পর শহরের মহিলাদের নিরাপত্তায় পাড়া সংস্কৃতি ফেরাতে আজ একজোট হয়েছে মহানগরের বিভিন্ন পাড়া।

এই প্রজন্মের একজন নাগরিক সোনাই সরকারের কথায়, " সমাজ আধুনিক হচ্ছে, তাই পাড়া সংস্কৃতিরও বদল ঘটছে। যেভাবেই হোক ফিরিয়ে আনতে হবে পাড়া সংস্কৃতি। তা সে পুরনো মেজাজে হোক কিংবা নতুন আঙ্গিকে" । সৃষ্টির ইন্ধন যোগায় সংস্কৃতি-- এই ভাবনা থেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় জুড়ছে শহরের নানা মহল্লা, পাড়া। তৈরি করা হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায় একাধিক গ্রুপ। বিপদে পড়া মহিলাদের পাশে থাকার বার্তা নিয়ে ভাইরাল করা হয়েছে একাধিক মোবাইল নম্বর। যে কোনও  ধরনের বিপদের হাত থেকে মহিলাদের রক্ষা করার রক্ষাকবচ হিসেবেই কাজ করবেন এই সমাজ বন্ধুরা। নির্দিষ্ট মোবাইল নম্বরে এক ফোন করলেই ওঁরা বাইক কিংবা গাড়ি নিয়ে  পৌঁছে যাবে গন্তব্যে... আপনাকে নিরাপদে পৌঁছে দেবে বাড়িতে। একজন সহ নাগরিকের বিপদের দিনে পাশে দাঁড়ানো স্রেফ সমাজের বন্ধু হিসেবে। এক নজিরবিহীন ভালোবাসার বন্ধনে সত্যি ' সিটি অফ জয় ' আজ যেন মিলেমিশে একাকার। যুগ বদলেছে। আধুনিক হচ্ছে সমাজ। তাই সোশ্যাল মিডিয়া কিংবা স্মার্ট ফোনের হাত ধরে স্মার্ট হচ্ছে পাড়া সংস্কৃতিও। যে সংস্কৃতিকে স্বাগত জানিয়েছে প্রবীণ সমাজও।

First published: 04:07:27 PM Dec 06, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर