শহরে থাকবে না আর কোনও বিপজ্জনক বাড়ি– News18 Bengali

শহরে থাকবে না আর কোনও বিপজ্জনক বাড়ি

শহরে থাকবে না আর কোনও বিপজ্জনক বাড়ি

Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Aug 24, 2017 01:27 PM IST
শহরে থাকবে না আর কোনও বিপজ্জনক বাড়ি
Elina Datta | News18 Bangla
Updated:Aug 24, 2017 01:27 PM IST

#কলকাতা:  শহরে বিপজ্জনক বাড়ি আর কোনভাবেই বরদাস্ত নয়। বাড়ি সংস্কারে মালিক বা ভাড়াটিয়া রাজি না হলে দায়িত্ব নেবে পুরসভাই। ইতিমধ্যেই পাশ হয়েছে আইন। শহরের বেশ কয়েকটি জায়গায় নির্দেশিকা ঝুলিয়েছে পুরসভা। বিষয়টি নিয়ে এখন অবহিত মালিক, ভাড়াটিয়ারা। কেউ খুশি। কারও মনে প্রশ্ন। তবে নতুন এই আইনে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে দিনযাপনের মাঝে আশার আলো দেখছেন অনেকেই।

এখানে ওখানে খসে পড়া চাঙড়। দেওয়ালে গজিয়ে ওঠা বটগাছ। ভেঙে পড়া দরজা, জানলা। ঝুলতে থাকা কড়ি,বর্গা । বয়স বেশিরভাগই পঞ্চাশের বেশি। এরকম বহু বিপজ্জনক বাড়িতে চলছে ঝুঁকির দিনযাপন। হুঁশ নেই মালিকদের। নিরুত্তাপ ভাড়াটিয়ারাও।

তার জেরেই নিমতলা, বউবাজার, তালতলা, একবালপুরে একের পর এক ভেঙে পড়ছে বিপজ্জনক বাড়ি। মৃত্যু হচ্ছে নিরীহ মানুষের। ঝুঁকির বাড়ির সংস্কারের দায় কার? তাই নিয়ে মালিক-ভাড়াটিয়া দ্বন্দ্বে আরও জটিল হয়েছে পরিস্থিতি। পুরসভা সিদ্ধান্ত নেয় বিপজ্জনক বাড়িতে আর বসবাস নয়। বিধানসভায় পাশ হয় আইন।

বিপজ্জনক বাড়ি আর নয়

----বাড়ি সংস্কারের প্রথম সুযোগ দেওয়া হবে বাড়ির মািলককে

Loading...

---যেখানে ভাড়াটিয়া আছে সেখানে মালিকরা একশো শতাংশ বেশি নির্মাণ বা অতিরিক্ত ফ্লোর এরিয়া রেশিও-এর অনুমতি পাবে

---মালিক আগ্রহী না হলে ভাড়াটিয়ারা সংস্কার করতে পারবেন

---দুপক্ষ কেউই সংস্কার করতে না পারলে পুরসভাই সংস্কার করবে

---সেক্ষেত্রে টেন্ডার করে কোনও বেসরকারি সংস্থাকে দিয়ে সংস্কার করতে হবে

নতুন আইন নিয়ে সারা শহরে প্রচার শুরু করেছে পুরসভা। বিপজ্জনক বাড়ির সামনে টাঙানো হচ্ছে হোর্ডিং।

আরও পড়ুন

বিপজ্জনক বাড়ি নিয়ে পুরসভার অধিবেশনে পাশ নয়া রুল

উত্তর কলকাতার অধিকাংশ বাড়িই বিপজ্জনক। প্রাণ হাতে করেই বসবাস। পুরসভার নতুন আইনে প্রতিদিনের আতঙ্ক কাটছে।

বিপজ্জনক অনেক বাড়িতে এখনও লেবেল পড়েনি পুরসভার। ভাড়াটিয়া নেই। বাড়ি ভরতি শরিক। প্রাণ বাঁচাতে কোনওরকমে নিজেরাই বাড়ি ভেঙে নতুন করে তৈরির সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন অনেকে। তাঁদের একটাই আক্ষেপ। কোনও ইনসেনটিভই দিচ্ছে না পুরসভা।

ঝড়-জলের রাতে আতঙ্কের মূহূর্ত গোণা। কিংবা ঘরের মধ্যে চুঁয়ে পড়া জলে ব্যতিব্যস্ত জীবন। এতদিন বিপজ্জনক বাড়িতে এভাবে দিন কাটাতে অভ্যস্ত মানুষ পুরসভার নতুন আইনে আশার আলো দেখছেন।

First published: 01:21:35 PM Aug 24, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर