হোম /খবর /কলকাতা /
পানীয় জলের সমস্যায় জেরবার শহরবাসী, সমাধানে বড় উদ্যোগ পুরসভার

পানীয় জলের সমস্যায় জেরবার শহরবাসী, সমাধানে বড় উদ্যোগ পুরসভার

Water problem in Kolkata: শহরে জল সমস্যা মেটাতে ১৩০ কোটি টাকা খরচে আরও ২০ মিলিয়ন গ্যালন জল উৎপাদন, কোন কোন এলাকা এই প্রকল্পের আওতায়?

  • Share this:

#কলকাতা: বাইপাস থেকে বেহালা, পানীয় জলের সমস্যা এখনও রয়েই গিয়েছে। সেই সমস্যার সমাধানে এবার পানীয় জলের উৎপাদন বাড়াতে উদ্যোগী কলকাতা পুরসভা। টালা ট্যাংকের কাজের জন্য উৎপাদন ও সরবরাহ কিছুটা ব্যাহত হয়েছে। সেই কাজ প্রায় শেষের পর্যায়ে। এবার ধাপা জয় হিন্দ জল প্রকল্পেও পানীয় জলের উৎপাদন বাড়াতে উদ্যোগী পৌরসভা।

ইএম বাইপাস সংলগ্ন শহরের পূর্ব ও দক্ষিণ-পূর্ব তল্লাটে পানীয় জলের সমস্যা প্রবল। কিন্তু ধাপায় নতুন জলপ্রকল্প চালু হওয়ার পর অনেকে আশা করেছিলেন, দীর্ঘদিনের ভোগান্তি থেকে রেহাই মিলবে। সামান্য সমাধান হলেও অনেকক্ষেত্রেই রয়ে গিয়েছে সমস্যা। জল একেবারে মিলছে না এমন নয়। পাইপলাইন দিয়ে জলের বেগ এতটাই কম থাকে যে, অনেকেই সময় মতো জল নিতে পারছেন না। গরমে সেই সঙ্কট তীব্র হয়।

আরও পড়ুন: আসছে ঘূর্ণিঝড় মান্দাস! এই নামের অর্থ কী? কলকাতায় ঝড়ের প্রভাব কতটা পড়বে, জানুন আপডেট

সমস্যার সমাধান করতে কয়েক বছর আগে ধাপা জলপ্রকল্প সম্প্রসারণের কথা ভাবা হয়। করোনা আবহে এবং পরবর্তী সময়ে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল আর্থিক সঙ্কট। অবশেষে সবুজ সঙ্কেত মিলেছে।

প্রায় ১৩০ কোটি টাকা খরচে আরও ২০ মিলিয়ন গ্যালন জল উৎপাদন বাড়তে চলেছে ধাপার জয় হিন্দ জল প্রকল্পে। আগামী বছরের শুরুতেই জানুয়ারি মাসে কাজ শুরু হতে পারে বলে পুরসভা সূত্রে খবর।

আরও পড়ুন: মন্দার আঁচ আরও তীব্র, এবার কয়েকশো কর্মী ছাঁটাই করতে চলেছে পেপসিকো!

কলকাতা পুরসভা সূত্রে খবর, ধাপা জয় হিন্দ জল প্রকল্পের পানীয় জল এখন যেসব এলাকায় যায়, প্রায় সবক্ষেত্রেই জলের চাপ কম বলে অভিযোগ আসে। সেই সমস্ত এলাকায় বাসিন্দারা আজও ভূগর্ভস্থ জল পান করতে বাধ্য হন।

বাম আমলে ধাপায় গড়ে তোলা হয়েছিল ৩০ মিলিয়ন গ্যালন উৎপাদন ক্ষমতা সম্পন্ন এই জলপ্রকল্প। যার উদ্বোধন হয় বর্তমান সরকারের আমলে। সেই সময় থেকে এখনও পর্যন্ত শহরের বাইপাস লাগোয়া এই অংশে জনসংখ্যা বেড়ে চলেছে উল্লেখযোগ্য হারে। ফলে স্বাভাবিকভাবেই চাহিদা অনুযায়ী জোগানে টান পড়ে। গরম পড়লে সেই জলকষ্ট আরও তীব্র হয়।

মেট্রোপলিটন থেকে গড়িয়া এলাকায়, বাইপাসের দুই ধারে এই জন্য সমস্যা এখনও রয়ে গিয়েছে। পাটুলি, বৈষ্ণবঘাটা, গড়িয়া, আনন্দপুর, পার্ক সার্কাস, তপসিয়া, পঞ্চাননগ্রাম, রুবি, কসবা, মুকুন্দপুর, নয়াবাঁধ, কালিকাপুর, গড়ফা, অজয়নগর, সন্তোষপুর ইত্যাদি এলাকা এই প্রকল্পের আওতায় রয়েছে। আগে যেখানে চার বার জল দেওয়া হতো, এখন সেখানে দিনে দু’বেলা জল দিয়ে কোনও রকমে পরিস্থিত সামাল দেওয়া হচ্ছে। কখনও কখনও জলের চাপ এত কম থাকে যে সরু সুতোর মতো জল পড়ে। বাধ্য হয়েই বহু মানুষ ভূগর্ভস্থ জলের উপর নির্ভর করেন।

পানীয় জলের গতিবেগ বাড়াতে এক নতুন উপায় নিয়েছে কলকাতা পৌরসভা। কিছু কিছু অংশে আবার ধাপার প্রকল্প ও ভূগর্ভস্থ জল মিশিয়ে সরবরাহ করা হয়। তবে সেই সরবরাহ করা জল নিয়ে অভিযোগ বিস্তর। উৎপাদন ক্ষমতা বৃদ্ধি করলে এই এলাকায় পানীয় জলের সমস্যার স্থায়ী সমাধান হবে বলে আশাবাদী কলকাতা পুরসভা কর্তৃপক্ষ।

কলকাতা পুরসভার সূত্রে খবর, ২০২৫ সালের মধ্যে সম্প্রসারিত প্রকল্প থেকে জল উৎপাদন ও সরবরাহ শুরু হয়ে যাবে। পার্ক সার্কাস থেকে পাটুলি কানেক্টর পর্যন্ত এলাকায় পানীয় জল নিয়ে আর কোনও অভিযোগ থাকবে না বলেই আশা করা যায়।

Published by:Teesta Barman
First published:

Tags: Kolkata News, Water Problem