বিপজ্জনক বাড়ি সারাই না করলেই ১ লক্ষ জরিমানা, পুর-আইনকে আরও কঠোর করল পুরসভা

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 26, 2019 10:46 AM IST
বিপজ্জনক বাড়ি সারাই না করলেই ১ লক্ষ জরিমানা, পুর-আইনকে আরও কঠোর করল পুরসভা
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Oct 26, 2019 10:46 AM IST

#কলকাতা: বিপজ্জনক বাড়ি সংস্কার না করলে হতে পারে পঞ্চাশ হাজার থেকে এক লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা। বিপজ্জনক বাড়ি ভেঙে কারও মৃত্যু হলে বাড়িমালিক বা দখলদারের পাঁচ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে। বিপজ্জনক বাড়ি নিয়ে ১৯৮০ সালের পুর-আইনকে আরও কঠোর করল পুরসভা।

উত্তর কলকাতায় পুরোন, জীর্ণ বাড়ির বেশিরভাগই বিপজ্জনক অবস্থায়। প্রাণের ঝুঁকি থাকলেও বাড়িমালিক বা দখলদারের বাড়ি সংস্কারে কোনও হেলদোলই নেই। পুরসভা নোটিস দিলেও কাজ হয়নি। তাই এবার বিপজ্জনক বাড়ি নিয়ে আরও কঠোর অবস্থান নিল পুরসভা। জীর্ণ বাড়ি সংস্কার না হলে জেল বা জরিমানা দুই হতে পারে। ৯ অগাস্ট মেয়র পারিষদ বৈঠকে ১৯৮০-র আইনের সংশোধনী পাস হয়। শুক্রবার তা পাস হল পুর অধিবেশনে।

বিপজ্জনক বাড়ি নিয়ে নয়া আইন

------------------------------------

জী‍র্ণ বাড়ি সংস্কার না হলে ৫০ হাজার থেকে ১ লক্ষ টাকা জরিমানা হতে পারে। জীর্ণ বাড়ি ভেঙে আহত বা মৃত্যু হলে পাঁচ বছর পর্যন্ত জেল হতে পারে। বাড়িমালিক বা দখলদারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Loading...

১৯৮০ সালে পুরআইন অনুযায়ী, বিপজ্জনক বাড়ি সংস্কারে নোটিস দেওয়া হবে। বারবার নোটিস দিয়ে কাজ না হলে এককালীন ১ হাজার টাকা জরিমানা হবে।

পরে সেই আইনেও সংশোধন করা হয়। বলা হয়, ফ্লোর এরিয়া রেসিও-র (FAR) ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়া হবে। বাড়ির মালিক বা দখলদারেরা যে পরিমাণ জায়গার সংস্কার করবেন, তাঁর দ্বিগুণ জায়গায় নির্মাণ করতে পারবেন। তাঁরা না পারলে, আবেদন জানালে পুরসভা সংস্কারের ব্যবস্থা করবে।

পুরসভার উদ্যোগ সত্ত্বেও জীর্ণ বাড়ি সংস্কারে কেউই এগিয়ে আসেননি। আইনি জটিলতা, ভাড়াটে-মালিক বা শরিকি বিবাদে সংস্কার হয়নি বিপজ্জনক বাড়ি। তাই বিপজ্জনক বাড়ি সংস্কারে কড়া অবস্থান পুরসভার।

First published: 10:46:59 AM Oct 26, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर