শহর পরিষ্কার রাখতে অভিনব ভাবনা কলকাতা পুরসভার, বাজারে বসছে জৈব সার তৈরির মেশিন

শহর পরিষ্কার রাখতে অভিনব ভাবনা কলকাতা পুরসভার, বাজারে বসছে জৈব সার তৈরির মেশিন

শহরকে পরিষ্কার রাখতে কলকাতা পুরসভার অভিনব উদ্যোগ।

  • Share this:

Biswajit Saha 

#কলকাতা: শহরকে পরিষ্কার রাখতে কলকাতা পুরসভার অভিনব উদ্যোগ। বাজারে বাজারে বসবে জৈব সার তৈরির মেশিন। পাইলট প্রজেক্টে কাজ শুরু মেয়র ফিরহাদ হাকিম এর ওয়ার্ড চেতলা বাজারে।

শহরের বিভিন্ন বাজারে প্রতিদিনই আবর্জনার স্তুপ হয়। বাজারের বিভিন্ন দোকান থেকে পচনশীল জৈব পদার্থ নষ্ট হয়। এবার সেই পচনশীল জৈব পদার্থকে পুনর্ব্যবহারযোগ্য করে তোলার উদ্যোগ নিচ্ছে কলকাতা পৌরসভা। পালং শাক আলু পেঁয়াজ টমেটো নষ্ট হয়ে যাওয়া কিংবা কলার খোসা ফুল-বেলপাতা সবকিছুই এবার পুনর্ব্যবহারযোগ্য হয়ে রূপান্তরিত হবে জৈবসারে।

কলকাতার চিৎলা বাজার এর মধ্যেই বসেছে অর্গানিক ওয়েস্ট কনভার্টার। এই প্রজেক্টে যে মেশিন রয়েছে তাকে কমপ্যাক্ট মেশিন বলে। প্রথমে বাজারের পচনশীল পদার্থ গুলিকে একসঙ্গে নিয়ে আসা হয়। সে গুলোকে পৃথকীকরণের মাধ্যমে মেশিন এর যোগ্য পদার্থ গুলিকে বেছে নেওয়া হয়। তারপর সেগুলিকে কাটিং মেশিনে দেওয়া হয়।মেশিনের উপযুক্ত সাইজ করে তা কমপ্যাক্ট মেশিনের মধ্যে ফেলে দেওয়া হয়। এই কমপ্যাক্ট মেশিনে 48 ঘন্টা থাকলেই পচনশীল পদার্থ জৈব সার এ রূপান্তরিত হয়।

Loading...

বাজারের শাকসবজি তো বটেই। বাগানের ফুল পাতা। মাছ মাছের আঁশ। ফেলে দেওয়া খাবার। মাংস বা প্রাণী দেহাংশ। রুটি।এসবই কম্প্যাক্ট মেশিনে জৈব সার এ রূপান্তরিত হবে।

20191203_112938

পাইলট প্রজেক্ট এর চেতলা বাজারে 300 কিলো ক্ষমতাসম্পন্ন মেশিন বসানো হয়েছে। 300 কিলো পচনশীলপদার্থ দিলে তার থেকে একশো কুড়ি কিলো জৈবসার মিলবে।এইসার আপাতত চেতনারই কলকাতা পৌরসভার বিভিন্ন পার্কে ব্যবহার করা হচ্ছে। পরে পুরসভার নার্সারী ও অন্যান্য ওয়ার্ডের পার্কেও ব্যবহার করা হবে।কলকাতা পুরসভার জঞ্জাল সাফাই বিভাগের মেয়র পারিষদ মজুমদার জানান,আপাতত পাইলট প্রজেক্ট এর কাজ চলছে চেতলা বাজারে।এরপরে টালি নালা সংলগ্ন আরো চারটি বাজারে এই প্রজেক্ট বসবে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই আরো কুড়িটি বাজারে জৈব সারের প্রজেক্ট বসবে।

কলকাতা পুরসভায় ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বর্জ্য পৃথকীকরণ এর কাজ শুরু হয়েছে। আপাতত সাতটি ওয়ার্ডে কাজ শুরু হলেও ধীরে ধীরে সমস্ত ওয়ার্ডেই পচনশীল ও পচনশীলনয় এমন পদার্থ পৃথকীকরণের জন্য দু'রকম ডাস্টবিন দেওয়া হচ্ছে।বিভিন্ন বাজার ও জনগণ এলাকাতেও কলকাতা পুরসভা দু'ধরনের ডাস্টবিন ব্যবহার করছে।এই ধরনের ডাস্টবিন ব্যবহারে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে উদ্যোগ নিচ্ছে কলকাতা পৌরসভা। ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে এই কাজ শুরু হলে বাজারের সঙ্গে সঙ্গে ওয়ার্ডের বাড়ি বাড়ি থেকে আনা বর্জ্য পদার্থ ও জৈব সার তৈরি প্রজেক্ট এ কাজে লাগানো হবে।

সুব্রত মুখোপাধ্যায় মেয়র থাকাকালীন কলকাতা পুরসভার সঙ্গে যৌথ উদ্যোগে একটি বেসরকারি সংস্থায় জৈব সার তৈরি প্রজেক্ট শুরু করে।কিন্তু সে সময় উৎস স্থলে অর্থাৎ বাড়ি বাড়ি থেকে এবং বাজার থেকে বজ্র পদার্থ পৃথকীকরণের কোন ব্যবস্থায় ছিলনা।এর ফলে পচনশীল পদার্থ বাছাই করতে গিয়ে সমস্যায় পড়ে সংস্থা। ধীরে ধীরে বন্ধ হয়ে যায় সেই জৈব সার তৈরির উদ্যোগ।

আরও দেখুন

First published: 05:38:56 PM Dec 03, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर