• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • শুধু শহরের হাসপাতালগুলিকেই নয়, আগুনের বিপদঘণ্টি কলকাতা হাইকোর্টেও

শুধু শহরের হাসপাতালগুলিকেই নয়, আগুনের বিপদঘণ্টি কলকাতা হাইকোর্টেও

অগ্নি নির্বাপণবিধি মানা হয় না খোদ কলকাতা হাইকোর্টেই। প্রমাণ সহ একাধিকবার এই তথ্য তুলে ধরেছিলেন সমাজকর্মী কমল দে।

অগ্নি নির্বাপণবিধি মানা হয় না খোদ কলকাতা হাইকোর্টেই। প্রমাণ সহ একাধিকবার এই তথ্য তুলে ধরেছিলেন সমাজকর্মী কমল দে।

অগ্নি নির্বাপণবিধি মানা হয় না খোদ কলকাতা হাইকোর্টেই। প্রমাণ সহ একাধিকবার এই তথ্য তুলে ধরেছিলেন সমাজকর্মী কমল দে।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা:  অগ্নি নির্বাপণবিধি মানা হয় না খোদ কলকাতা হাইকোর্টেই। প্রমাণ সহ একাধিকবার এই তথ্য তুলে ধরেছিলেন সমাজকর্মী কমল দে। রাজ্যের অন্য সরকারি ভবনগুলির অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে, দু'বছর আগে জনস্বার্থ মামলাও করেছিলেন । মামলাকারীর দাবি, অগ্নি নির্বাপণবিধি মানা হলে এড়ানো যেত মুর্শিদাবাদের মতো ঘটনা।

    জতুগৃহ খোদ কলকাতা হাইকোর্ট। পর্যাপ্ত নয় অগ্নি নির্বাপণ যন্ত্র। যে কটি ফায়ার এক্সটিংগুইসার রয়েছে, সেগুলির সিলিন্ডারও সময়মতো বদলানো হয় না। ২০১৩-তেই আদালতের এই বেহাল দশা দেখে প্রমাণ সহ প্রধান বিচারপতিকে চিঠি লিখেছিলেন সমাজকর্মী কমল দে। বেশ কয়েকবার চিঠিপত্র আদানপ্রদানের পর, বদলানো হয় ফায়ার এক্সটিংগুইশারের সিলিন্ডার। কিন্তু তারপরও বদলায়নি হাইকোর্টের ছবি।

    ২০১৫-র জুনে একই পরিস্থিতি তৈরি হলে, হেয়ারস্ট্রিট থানায় রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে এফআইআর করেন কমল দে। তারপরই তড়িঘড়ি বদলানো হয় ফায়ার এক্সটিংগুইশারের সিলিন্ডার। চলতি বছর অবশ্য সময়মতোই সব ব্যবস্থা নিয়েছে হাইকোর্ট অ্যাডমিনিস্ট্রেশন। কিন্তু হাইকোর্টের যদি এই হাল হয়, তাহলে কী অবস্থায় রয়েছে রাজভবন, মহাকরণ, নবান্ন, ভবানী ভবনের মতো সরকারি বিল্ডিংগুলি? রাজ্যের সব সরকারি ভবনের অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা খতিয়ে দেখার আর্জি জানিয়ে, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৪য় জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেছিলেন তিনি।

     সেই মামলায় আদালতের নির্দেশ সত্বেও সরকারির ভবনগুলির পরিস্থিতি নিয়ে হলফনামা দেয়নি পূর্ত দফতর। শেষপর্যন্ত চলতি বছরের ১৯ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট অ্যডমিনিস্ট্রেশনকে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দিয়েই মামলা শেষ করেন বিচারপতি। কিন্তু সমস্যা এখনও রয়েই গিয়েছে। প্রশ্ন উঠছে, সরকারি ভবনে সরকারি আধিকারিকরাই যখন নিয়ম ভাঙেন, সেক্ষেত্রে কেন পুলিশ-প্রশাসন ব্যবস্থা নেয় না?

    অগ্নি নির্বাপণবিধি না মানায় স্টিফেন কোর্ট, আমরি কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিয়েছিল প্রশাশন। সরকারি ভবনগুলির দিকে নজর দিলে হয়তো এড়ানো যেত মুর্শিদাবাদ মেডিক্যালের মতো ঘটনা।

    First published: