Home /News /kolkata /
Kolkata High Court: টাকা উদ্ধার, ঝাড়খণ্ডের ৩ বিধায়কের সিবিআই আবেদন খারিজ হাইকোর্টে

Kolkata High Court: টাকা উদ্ধার, ঝাড়খণ্ডের ৩ বিধায়কের সিবিআই আবেদন খারিজ হাইকোর্টে

হাইকোর্টের জরুরি হস্তক্ষেপ চেয়ে বুধবারই আবেদন করে ঝাড়খণ্ডের ৩ বিধায়ক

  • Share this:

#কলকাতা: ইরফান আনসারি-সহ ঝাড়খণ্ডের ৩ বিধায়ক বড়সড় অস্বস্তিতে। হাইকোর্টে খারিজ ঝাড়খণ্ডের তিন বিধায়কের আবেদন।সিবিআই বা নিরপেক্ষ কেন্দ্রীয় সংস্থাকে তদন্তভার হস্তান্তরের আর্জি খারিজ করলেন বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্যের একক বেঞ্চ। পাশাপাশি তদন্তের ওপর স্থগিতাদেশের আর্জিও খারিজ করল আদালত।

 নিরপেক্ষভাবে, স্বচ্ছতার সঙ্গে তদন্ত চালিয়ে নিয়ে যেতে পারবে সিআইডি। গ্রেফতারি নিয়ে শাসক দলের নেতাদের মন্তব্য তদন্ত হস্তান্তরের জন্য পর্যাপ্ত নয়। সুপ্রিম কোর্টের একাধিক নির্দেশে বলা আছে যে, অভিযুক্ত কখনও তদন্তকারী সংস্থা নির্বাচন করতে পারে না। তদন্ত সংস্থা বাছাইয়ের কোনও আইনি অধিকার নেই অভিযুক্তদের। অভিযুক্তদের গাড়ি হাওড়া গ্রামীণ পুলিশ এলাকার পাঁচলা থেকে আটক হয়েছে। ফলে তদন্ত করতে রাজ্য পুলিশের কোনও অসুবিধা নেই। তদন্তের ক্ষেত্রে পুলিশের তরফে যে প্রক্রিয়াগত গাফিলতির অভিযোগ মামলাকারিরা করেছেন, তাও গ্রহনযোগ্য নয়।

আরও পড়ুন: ‘একজন জুতো হাতে তুলে নিলেই হবে না...’, পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে জুতো ছুড়ে মারার ঘটনায় বললেন নচিকেতা

রাজ্যের হয়ে তীক্ষ্ণ সওয়াল করেন গভর্নমেন্ট প্লিডার অনির্বাণ রায়। ছিলেন মুখ্য সরকারি কৌঁসুলি শাশ্বত গোপাল মুখোপাধ্যায়ও। রাজ্যের যুক্তি, এফআইআর আপলোড করার জন্য ৭২ ঘণ্টার সর্বোচ্চ সময়সীমা নির্ধারিত আছে। সঙ্গে সঙ্গে এফআইআর আপলোড করা হয়নি বলে মামলা CBI-কে হস্তান্তর করতে হবে, এটা কোনও গ্রহনযোগ্য যুক্তি হতে পারেনা। ১ লা আগস্ট এফআইআর ওয়েবসাইটে আপলোড করা হয়েছে।তদন্তকারী সংস্থা নির্বাচন করার অধিকার অভিযুক্তের নেই। প্রায় ৫০ লক্ষ টাকা নগদ উদ্ধার। শাড়ি কেনার জন্য টাকা বলা হলেও, শাড়ি পাওয়া যায়নি গাড়ি থেকে। ভারতীয় দণ্ডবিধির ৪২০ ধারায় এবং দুর্নীতি দমন আইনে মামলা রুজু হয়েছে। তদন্ত একেবারে শুরুর দিকে।

আরও পড়ুন: মুখোমুখিতেও মুখে কুলুপ পার্থর? ইডির আড়াই ঘণ্টার 'পার্থ-অর্পিতা' জেরায় যেদিকে ইশারা...

৩ বিধায়কের তরফে সওয়াল করেন সিনিয়র আইনজীবী সিদ্ধার্থ লুথরা, আইনজীবী রাজদীপ মজুমদার ও আইনজীবী বিকাশ সিং। তাঁদের যুক্তি ছিল, '' এই অভিযোগে একাধিক রাজ্যের যোগ রয়েছে। শুধুমাত্র পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ কীভাবে তদন্ত করবে ? তাই যে-কোনও কেন্দ্রীয় নিরপেক্ষ  সংস্থাকে তদন্তভার দেওয়া হোক।'' পাশাপাশি সিআইডি তদন্তের ওপর স্থগিতাদেশের আবেদন করা হয়।দুটি আবেদনই খারিজ করে দিয়েছে বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্যের একক বেঞ্চ।

হাইকোর্টের জরুরি হস্তক্ষেপ চেয়ে বুধবারই আবেদন করে ঝাড়খণ্ডের ৩ বিধায়ক। রাজ্যের সিআইডি তদন্তে নিয়ে প্রশ্ন তুলে আবেদন করে। জরুরি মামলার অনুমতি দেন বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্যের। বুধবার বিকেল ৪.১৫-এ গ্রেফতার হওয়া ৩ কংগ্রেস  বিধায়কের আবেদনের প্রথম দফায় শুনানি হয়।

ARNAB HAZRA
Published by:Rukmini Mazumder
First published:

Tags: Kolkata High court

পরবর্তী খবর