• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • মোবাইলে লুকিয়ে মহিলার ছবি তুলতে গিয়ে ধরা পড়ল যুবক ! পুলিশ জানাল, ‘ এটা কোনও কেসই নয় !’

মোবাইলে লুকিয়ে মহিলার ছবি তুলতে গিয়ে ধরা পড়ল যুবক ! পুলিশ জানাল, ‘ এটা কোনও কেসই নয় !’

Photo: Facebook

Photo: Facebook

অনুমতি ছাড়া কী কারও ছবি তোলা যায়? কারও শরীরের কোনও অংশেরই ছবি গোপনে তোলা হলে সেটা কী ক্রাইমের মধ্যে পড়ে না ?

  • Share this:

    #কলকাতা: অনুমতি ছাড়া কী কারও ছবি তোলা যায়? কারও শরীরের কোনও অংশেরই ছবি গোপনে তোলা হলে সেটা কী ক্রাইমের মধ্যে পড়ে না ? আপাতত এই প্রশ্নেই তোলপাড় দিৎসা, স্মৃতিপর্ণা, শতরূপা, অভিজিৎ, দেবারুণরা ৷ কিন্তু পুলিশের জবাব, ‘এটা কোনও কেসই না !’

    স্মৃতিপর্ণা, দিৎসা, শতরূপা, অভিজিৎ, দেবারুণ ৷ ২৮ জুলাই হাওড়া-মালদা ইন্টারসিটি ট্রেনে করে বোলপুর থেকে কলকাতায় ফিরছিলেন তাঁরা ৷ হঠাৎই বুঝতে পারে ট্রেনের এক যাত্রী, যার নাম পিন্টু মণ্ডল ৷ মোবাইল ফোনে অনবরত তাঁদের ছবি ও ভিডিও তুলে যাচ্ছে৷ দিৎসা-র কথায়, ‘প্রথমে আমরা বুঝতেই দিইনি, যে ব্যাপারটা আমরা খেয়াল করেছি৷ হাওড়া স্টেশন আসতেই আমরা হাতেনাতে ধরে ফেলি ছেলেটিকে ৷ মোবাইলটা হাত থেকে কেড়ে নিই ৷ সেই সময়ও মোবাইলের ক্যামেরা অন ছিল ৷ আমার ছবিটা স্পষ্ট দেখতে পেয়েছিলাম ৷ তবে মোবাইল ফোনের স্ক্রিন লক থাকায় সেটা খুলতেই পারছিলাম না ৷ ছেলেটিকে অনেক বলার পরেও লক খুলছিল না ছেলেটি ৷ পরে আরও চেপে ধরায়, ছেলেটি স্বীকার করে যে সে আমার পিঠে থাকা ট্যাটুর ছবি তুলেছিল ! আমার বন্ধু শতরূপা পুরো ঘটনার ভিডিও করে ৷’

    দিৎসা ও স্মৃতিপর্ণারা যুবকটিকে সোজা নিয়ে যান হাওড়া রেলওয়ে পুলিশে কাছে ৷ তবে সেখানে পুরো ঘটনাটিকে খুব একটা পাত্তা দিতে চান না দায়িত্বে থাকা পুলিশ অফিসারেরা ৷ দিৎসাদের কথায়, ‘একজন অফিসার স্পষ্ট জানান, তোমরা ভদ্র ঘরে মেয়ে, এই সব ঝামেলায় যুক্ত হয় না ৷’ অন্য আরেক অফিসার মোবাইলে ছবি দেখে জানান, ‘এটা আপত্তিজনক ছবি নয় !’ দিৎসার কথায়, ‘আমার অনুমতি ছাড়া আমার ছবি তোলা আপত্তি জনক নয়! খুব হতবাক হয়েছি পুলিশের কথায় !’

    হাওড়া জিআরপিএফের কাছে পুরো ঘটনার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ৷ দিৎসা-স্মৃতিপর্ণাদের তদন্তের আশ্বাস দিয়েছে হাওড়া রেল পুলিশ ৷

    First published: