কলকাতার শিশুদের পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব! যথেষ্ট ঘুম না হলে হতে পারে মারাত্মক ক্ষতি

কলকাতার শিশুদের পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব! যথেষ্ট ঘুম না হলে হতে পারে মারাত্মক ক্ষতি

ঘুম সম্পর্কে সচেতনতা তৈরির জন্য গোদরেজ ইব্টেরিও স্লিপ অ্যাট ১০ নামে একটি বিশেষ প্রচার শুরু করেছিল৷

  • Share this:

#কলকাতা: ঘুম মানুষের শরীর সুস্থ রাখে। আর শিশুদের জন্য এই ঘুম খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ কিন্তু সেই বিশ্রাম বা নিদ্রারই অভাব হচ্ছে আমাদের জীবনে৷ আর এই নিয়মিত ঘুমের পরিমাণ কমে যাওয়ার অভ্যাস শুরু হওয়ায় সব চেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে এই প্রজন্মের শিশুরা৷ কারণ, তাঁদের কাছে ঘুম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ৷

ঘুম সম্পর্কে সচেতনতা তৈরির জন্য গোদরেজ ইব্টেরিও স্লিপ অ্যাট ১০ নামে একটি বিশেষ প্রচার শুরু করেছিল৷ সেখানে বলা হয়েছিল, চিকিৎসকরা বলেছেন শিশু ও কিশোর-কিশোরীদের ঘুমের সময় রাত দশটা৷ তারপর আর জেগে থাকা উচিত না৷ কিন্তু সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, কমবয়সীদের মধ্যে কলকাতার ৭৪ শতাংশ বাচ্চারাই সঠিক সময়ে ঘুমোতে পারে না৷ মানে রাত ১০টার অনেক পরে তাঁদের ঘুম হয়৷ কারণ, সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ঘুমের বদলে তাঁদের বেশিরভাগ সময়কাটে ফোনের স্ক্রিনের সামনে বা অন্য কোনও স্ক্রিনের সামনে৷ মাত্র ১০ শতাংশ শিশু রাত ১০টার সময় ঘুমোতে যায়৷ আর সেই কারণেই সারাদিন তারা ক্লান্ত থাকে৷ এদের মধ্যে ৬২ শতাংশ শিশুই জানিয়েছে, তারা রাত ১২টার পর ঘুমোতে যায়৷ এর ফলে সরাসরি প্রভাব পড়ছে তাদের স্বাস্থ্যে৷

ইন্টারন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ স্লিপ সায়েন্সের চিকিৎসক অভিজিৎ দেশপাণ্ডে জানিয়েছেন, ‘সন্তান ঘুম এখন অভিভাবকদের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ শরীর ঠিক রাখতে দিনে ৭ থেকে ৮ ঘণ্টার ঘুম খুবই দরকার৷ কিন্তু সেই সময়টা পুরো পাচ্ছে না শিশুরা৷ আর ঘুমের অভাবের কারণেই শরীরে সাইটোকাইনসের অভাব হচ্ছে৷ আর তাতেই শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যাচ্ছে৷ ফলে দ্রুত অসুস্থ হচ্ছে শিশুরা৷

First published: March 12, 2020, 7:47 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर