• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • জমজমাট বইমেলা, অ্যাপে খুঁজুন বুক স্টল

জমজমাট বইমেলা, অ্যাপে খুঁজুন বুক স্টল

বইপ্রেমীদের জন্য শুরু হয়ে গিয়েছে কলকাতা বইমেলা। মিলনমেলায় ঘণ্টা বাজিয়ে চল্লিশতম আন্তর্জাতিক মেলার উদ্বোধন করেন বলিভিয়ার সাহিত্যিক ম্যাগেলা বাওদুইন এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চলবে ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। স্কুল-কলেজ পড়ুয়া থেকে বাড়ির গৃহবধুরা সবাই অপেক্ষায় থাকে বইমেলার৷ বই মেলা, বই প্রেমীদের কাছে উৎসবের থেকে কম কিছু নয় ৷ ২০০৬ সালে ময়দানে শেষ বইমেলা হয়। জায়গা পরিবর্তন হলেও বইপ্রেমীদের উৎসাহে বিন্দুমাত্র ভাঁটা পড়েনি। শহর, শহরতলী থেকে শয়ে শয়ে লোক এসে ভিড় করেছে মেলা প্রাঙ্গনে ৷ বইমেলা কলকাতার ঐতিহ্য। বাঙালি বই প্রেমীদের কাছে এর কোনও বিকল্প নেই।

বইপ্রেমীদের জন্য শুরু হয়ে গিয়েছে কলকাতা বইমেলা। মিলনমেলায় ঘণ্টা বাজিয়ে চল্লিশতম আন্তর্জাতিক মেলার উদ্বোধন করেন বলিভিয়ার সাহিত্যিক ম্যাগেলা বাওদুইন এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চলবে ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। স্কুল-কলেজ পড়ুয়া থেকে বাড়ির গৃহবধুরা সবাই অপেক্ষায় থাকে বইমেলার৷ বই মেলা, বই প্রেমীদের কাছে উৎসবের থেকে কম কিছু নয় ৷ ২০০৬ সালে ময়দানে শেষ বইমেলা হয়। জায়গা পরিবর্তন হলেও বইপ্রেমীদের উৎসাহে বিন্দুমাত্র ভাঁটা পড়েনি। শহর, শহরতলী থেকে শয়ে শয়ে লোক এসে ভিড় করেছে মেলা প্রাঙ্গনে ৷ বইমেলা কলকাতার ঐতিহ্য। বাঙালি বই প্রেমীদের কাছে এর কোনও বিকল্প নেই।

বইপ্রেমীদের জন্য শুরু হয়ে গিয়েছে কলকাতা বইমেলা। মিলনমেলায় ঘণ্টা বাজিয়ে চল্লিশতম আন্তর্জাতিক মেলার উদ্বোধন করেন বলিভিয়ার সাহিত্যিক ম্যাগেলা বাওদুইন এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চলবে ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। স্কুল-কলেজ পড়ুয়া থেকে বাড়ির গৃহবধুরা সবাই অপেক্ষায় থাকে বইমেলার৷ বই মেলা, বই প্রেমীদের কাছে উৎসবের থেকে কম কিছু নয় ৷ ২০০৬ সালে ময়দানে শেষ বইমেলা হয়। জায়গা পরিবর্তন হলেও বইপ্রেমীদের উৎসাহে বিন্দুমাত্র ভাঁটা পড়েনি। শহর, শহরতলী থেকে শয়ে শয়ে লোক এসে ভিড় করেছে মেলা প্রাঙ্গনে ৷ বইমেলা কলকাতার ঐতিহ্য। বাঙালি বই প্রেমীদের কাছে এর কোনও বিকল্প নেই।

  • News18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: বইপ্রেমীদের জন্য শুরু হয়ে গিয়েছে কলকাতা বইমেলা। মিলনমেলায় ঘণ্টা বাজিয়ে চল্লিশতম আন্তর্জাতিক মেলার উদ্বোধন করেন বলিভিয়ার সাহিত্যিক ম্যাগেলা বাওদুইন এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। চলবে ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। স্কুল-কলেজ পড়ুয়া থেকে বাড়ির গৃহবধুরা সবাই অপেক্ষায় থাকে বইমেলার৷ বই মেলা, বই প্রেমীদের কাছে উৎসবের থেকে কম কিছু নয় ৷ ২০০৬ সালে ময়দানে শেষ বইমেলা হয়। জায়গা পরিবর্তন হলেও বইপ্রেমীদের উৎসাহে বিন্দুমাত্র ভাঁটা পড়েনি। শহর, শহরতলী থেকে শয়ে শয়ে লোক এসে ভিড় করেছে মেলা প্রাঙ্গনে ৷ বইমেলা কলকাতার ঐতিহ্য। বাঙালি বই প্রেমীদের কাছে এর কোনও বিকল্প নেই।

    প্রতিবছরের মতো এবছরও বিভিন্ন চমক রয়েছে বইমেলায় ৷ এবছরের বইমেলার থিম বলিভিয়া। ভিয়েতনাম যুদ্ধের চল্লিশ বছর পূর্তি এবং বলিভিয়ার সাম্রাজ্যবাদের পঞ্চাশ বছর পূর্তি। এই দুই দেশই বইমেলায় অংশ নিয়েছে। পাবলিশার্স ও বুকসেলার্স গিল্ড এবছরের বইমেলায় এক নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে ৷ বইমেলার ইতিহাসকে আজকের প্রজন্মের কাছে তুলে ধরার জন্য আয়োজন করেছে ‘হেরিটেজ ওয়াক’-এর ৷ ৩৯ বছরের বইমেলার ইতিহাসকে ফিরে দেখা যাবে ৷ পাবলিশার্স ও বুকসেলার্স গিল্ডের ডিরেক্টর জানান, ‘কলেজ স্ট্রিটের কফি হাউসে কয়েকটি প্রকাশনা মিলে এই তৈরি হয় গিল্ড। সেই থেকে শুরু হয় পথ চলা ৷ দীর্ঘ ৩৯ বছরের এই পথ চলা তুলে ধরা হয়েছে হেরিটেজ ওয়াক-এ ৷ ’ এছাড়াও প্রযুক্তির দিক থেকেও এবারের বইমেলা অনেকটা এগিয়ে ৷ এবারের বইমেলায় রয়েছে ৬০০ টি বুক স্টল ও ২০০ টি লিটিল ম্যাগাজিনের স্টল ৷ মেলা প্রাঙ্গনে যাতে কোনও স্টল খুঁজতে কারও কোনও অসুবিধা না হয় সে জন্য ব্যবস্থা রাখা হয়েছে মোবাইল অ্যাপের ৷ মোবাইল ফোনে সেই অ্যাপ ডাউনলোড করে নিলেই আর কোন অসুবিধা নেই ৷ খুব সহজেই অ্যাপের মাধ্যমে খুঁজে পাওয়া যাবে স্টলগুলি ৷ এছাড়াও পাঠকদের জন্য রয়েছে এমারজেন্সি মেডিক্যাল পরিষেবা ৷ সাধারণ মানুষের যাতায়াতে কোনও সমস্যা না হয় সেই জন্য ক্যাব ও বাসের ব্যবস্থাও রাখা হয়েছে  এবারের বইমেলাতে ৷

    First published: