corona virus btn
corona virus btn
Loading

'প্রশাসক' সিদ্ধান্তে বেজায় চটেছে বিজেপি, রাজ্যপালের কাছে নালিশ দিলীপ ঘোষদের

'প্রশাসক' সিদ্ধান্তে বেজায় চটেছে বিজেপি, রাজ্যপালের কাছে নালিশ দিলীপ ঘোষদের

পরিযায়ী শ্রমিক, রেশনের পাশাপাশি প্রশাসক গোষ্ঠী গঠনের সিদ্ধান্তকেও বারবার চর্চায় আনতে চাইছে গেরুয়া শিবির।

  • Share this:

#কলকাতা: শুক্রবার থেকে কলকাতা পুরসভা পরিচালন ভার গেছে রাজ্য নিযুক্ত প্রশাসক গোষ্ঠীর হাতে। বৃহস্পতিবার কলকাতা হাইকোর্ট প্রশাসক গোষ্ঠী-কে কেয়ারটেকার আখ্যা দিলেও খুশি নয় বিজেপি। বরঞ্চ কলকাতা পুরসভায় কেয়ারটেকার প্রশাসক গোষ্ঠী নিয়োগের মধ্যে সিঁদুরে মেঘ দেখছে রাজ্য বিজেপি। আর সেই আশঙ্কা থেকেই শুক্রবার রাজ্যপালের কাছে নালিশ ঠুকে এল গেরুয়া শিবির।

এদিন বিকেল চারটে নাগাদ রাজভবনে যান বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সঙ্গে ছিলেন মুকুল রায়, রাহুল সিনহা, জয়প্রকাশ মজুমদার, প্রতাপ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং সব্যসাচী দত্ত। ৩০ মিনিট রাজ্যপালের সঙ্গে আলোচনা হয় বিজেপি প্রতিনিধিদলের। করোনা উত্তর রাজ্যের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি নিয়ে এই আলোচনা।

রাজভবন চত্বরে দিলীপ ঘোষ জানান, "যিনি রাজ্যের পুরমন্ত্রী তিনিই নিজেকে কলকাতা পুরসভার প্রশাসক নিযুক্ত করছেন। সংবিধান পরিপন্থী কাজ হয়েছে কলকাতা পুরসভায়। আসলে একই ব্যক্তির পদে থেকে যাওয়ার প্রবণতা। পার্টির স্বার্থে কাজ করা হচ্ছে। রাজ্যপালকে বিষয়টি খতিয়ে দেখতে অনুরোধ করেছি। দ্রুত আইনি পদক্ষেপ নিতে হাইকোর্ট বা সুপ্রিম কোর্টে যাব আমরা।"

কলকাতা হাইকোর্ট যেখানে অন্তর্বর্তী আদেশ জারি করে প্রশাসক গোষ্ঠীর সিদ্ধান্তে সবুজ সংকেত দিয়েছে সেই বিষয়টি নিয়ে এত মাথাব্যথা কেন বিজেপির। বিজেপি সূত্রের খবর, ১১৩ পুরসভার মেয়াদ জুন মাসের মধ্যেই শেষ হবে। সেখানেও কলকাতা পুরসভায় প্রশাসক নিয়োগের মত রক্ষাকবচ-কে কাজে লাগিয়ে শাসকদল ভোট পিছোতে চাইছে। ২০২১ বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে পুরভোট না করেই কেয়ারটেকার বোর্ড গড়ে কাজ চালিয়ে গেলে নাগরিকের ক্ষোভ সামাল দেওয়া যাবে।

রাজ্যপাল নিজেও সোশ্যাল সাইটে সরব হয়েছেন প্রশাসক গোষ্ঠী গঠন প্রক্রিয়া নিয়ে। এই অবস্থায় রাজ্যপালের ক্ষোভকে সুকৌশলে ব্যবহার করতে চাইছে বিজেপি। পরিযায়ী শ্রমিক, রেশনের পাশাপাশি প্রশাসক গোষ্ঠী গঠনের সিদ্ধান্তকেও বারবার চর্চায় আনতে চাইছে গেরুয়া শিবির।

রাজ্য বিজেপি শীর্ষ নেতা রাহুল সিনহার মুখে এদিন শোনা যায়, "২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচন কে সামনে রেখে তৃণমূল কংগ্রেস রাজনীতি করতে নেমেছে লকডাউনের মধ্যে। ২০২১ করোনা যাবে সঙ্গে তৃণমূল কেও নিয়ে যাবে।"

ARNAB HAZRA

Published by: Bangla Editor
First published: May 8, 2020, 7:03 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर