corona virus btn
corona virus btn
Loading

কাঁকুড়গাছি খুনে অস্ত্ররহস্যের সমাধান, তদন্তে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য

কাঁকুড়গাছি খুনে অস্ত্ররহস্যের সমাধান, তদন্তে উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য
প্রতীকী চিত্র ৷

বেআইনি বাজারের থেকে প্রায় তিনগুন দামে 7.65 mm পিস্তলটি বিক্রি করা হয়েছিল

  • Share this:

#কলকাতা: ফুলবাগান হত্যা-আত্মহত্যার ঘটনায় অস্ত্র সরবরাহকারী পঙ্কজকে জেরা করে চাঞ্চল্যকর তথ্য জানতে পেরেছে পুলিশ। বেআইনি বাজারের থেকে প্রায় তিনগুন দামে 7.65 mm পিস্তলটি অমিত আগারওয়ালকে বেঁচেছিল পঙ্কজ। পিস্তলটি গুলি-সহ ৫৫ হাজার টাকায় বিক্রি করা হয়েছিল। যদিও সূত্রের খবর, কলকাতায় বেআইনি অস্ত্রের বাজারে 7.65 mm অস্ত্রের দাম গুলি-সহ ২০ হাজার টাকার কাছাকাছি।

পুলিশ সূত্রে খবর, চার্টার্ড অ্যাকাউনটেন্ট অমিত ও পঙ্কজ বেঙ্গালুরুতে একই কোম্পানিতে চাকরি করত। সেখানেই অস্ত্রের বিষয়টি পঙ্কজকে বলেছিল। জানিয়েছিল, তার বিশেষ কাজের জন্য অস্ত্রের প্রয়োজন। পঙ্কজ যেহেতু বিহারে থাকে তাই সেখান থেকেই জোগাড় করে দিতে বলেছিল। বিহারে সহজেই অস্ত্র মিলবে বলে ধারণা ছিল অমিতের।

পুলিশ মনে করছে, অমিতের সেই প্রয়োজনেরই সুযোগ নিয়েছিল পঙ্কজ। সেজন্যই ২০ হাজার টাকা দামের জিনিস ৫৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেছিল। মোটা টাকা ফায়দা হয়েছিল তার। পঙ্কজ জানিয়েছে বিহারের বাসিন্দা অন্য এক যুবকের থেকে অস্ত্রটি কিনেছিল। সেই অস্ত্র সরবরাহকারীকেও খুঁজছে পুলিশ। এই মামলায় তাঁর গ্রেফতারিও গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করছে তদন্তকারীরা।

ফুলবাগান হত্যা-আত্মহত্যার ঘটনায় অমিতের কাছ থেকে মেলা সুইসাইড-নোট থেকেই গোটা ঘটনার কারণ স্পষ্ট হয়ে যায় পুলিশের কাছে। তদন্তকারীরা বুঝতে পারে পুরুষতান্ত্রিক চিন্তাভাবনায় বিশ্বাস করা অমিত কখনই স্ত্রীয়ের স্বাধীন চিন্তাভাবনাকে মেনে নিতে পারেনি। স্ত্রী চাকরি করুক, স্বনির্ভর হোক তা চায়নি। সেজন্যই তাদের সম্পর্ক তলানীতে ঠেকেছিল। সম্পর্ক নষ্ট হওয়ার জন্য শাশুড়ি ও শ্বশুর কেউ দায়ী মনে করত অমিত। এইসব কারণের জন্যই স্ত্রীকে খুন করার পর শাশুড়িকে গুলি করে খুন করে নিজে আত্মহত্যা করে অমিত।

কিন্তু এই ঘটনায় তদন্তকারীদের কাছে প্রথম থেকেই অন্যতম চিন্তার কারণ ছিল অমিত অস্ত্র কোথা থেকে পেল? অমিতের ট্র্যাভেল হিস্ট্রি থেকে পুলিশ জানতে পারে, যেদিন ফুলবাগানে এসে শাশুড়িকে খুন করে নিজে আত্মঘাতী হয়, তার আগে ৭ মার্চ সে কলকাতায় এসেছিল। ওই দিন অমিত আগরওয়ালের গতিবিধি খুঁটিয়ে পরীক্ষা করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে, ওইদিন আচমকাই বেঙ্গালুরু থেকে কলকাতায় এসেছিল অমিত। সকালের ফ্লাইটে এসে বিকেলের ফ্লাইটে আবার বেঙ্গালুরু উড়ে যায় সে। কলকাতায় এই 'সারপ্রাইজ ভিসিটে'র বিষয়টি জানতো না অমিতের দাদারাও।

সেদিন অমিতের কল ডিটেইলস থেকে পুলিশ জানতে পারে বিহারের বাসিন্দা পংকজের সঙ্গে বারবার ফোনে কথা হয়েছে তার। তাতেই তদন্তকারীরা নিশ্চিত হয়ে যায় ৭ মার্চ কলকাতায় অস্ত্রের ডেলিভারি নিতেই এসেছিল অমিত। অস্ত্র নিয়ে ১৫০ই মানিকতলা মেইন রোডের ফ্ল্যাটে লুকিয়ে রেখে বিকেলের ফ্লাইটে বেঙ্গালুরু চলে গিয়েছিল অমিত। বিহারের পংকজ অস্ত্র সরবরাহ করেছে নিশ্চিত হওয়ার পর তাকে গ্রেপ্তারের উদ্দেশ্যে রওনা দেয় কলকাতা পুলিশের দল সোমবার রাতে হাতেনাতে গ্রেপ্তার করে ট্রানজিট রিমান্ডে তাকে কলকাতায় নিয়ে আসছে পুলিশ। ধৃতকে জেরা করে আরও তথ্য জানার চেষ্টা করছে তদন্তকারীরা।

SUJOY PAL

Published by: Ananya Chakraborty
First published: July 7, 2020, 11:33 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर