• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • টলিউডের এক অভিনেত্রীর সহায়তায় পালিয়েছিলেন, চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি কাদেরের

টলিউডের এক অভিনেত্রীর সহায়তায় পালিয়েছিলেন, চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি কাদেরের

পুলিশের কাছে চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি কাদেরের ৷ জেরায় কাদের জানান, ‘টলিউডের এক নায়িকার সাহায্যেই শহর ছেড়েছিলাম ৷ ঘটনার সময় ঘটনাস্থলে ছিল না সাজাপ্রাপ্ত নাসির খান ৷’

পুলিশের কাছে চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি কাদেরের ৷ জেরায় কাদের জানান, ‘টলিউডের এক নায়িকার সাহায্যেই শহর ছেড়েছিলাম ৷ ঘটনার সময় ঘটনাস্থলে ছিল না সাজাপ্রাপ্ত নাসির খান ৷’

পুলিশের কাছে চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি কাদেরের ৷ জেরায় কাদের জানান, ‘টলিউডের এক নায়িকার সাহায্যেই শহর ছেড়েছিলাম ৷ ঘটনার সময় ঘটনাস্থলে ছিল না সাজাপ্রাপ্ত নাসির খান ৷’

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: বৃহস্পতিবার পুলিশের জালে ধরা পড়ে পার্কস্ট্রিট গণধর্ষণ-কাণ্ডের মূল অভিযুক্ত কাদের খান ও তার সঙ্গী আলি ৷ দিল্লি থেকে গ্রেফতার করা হয় দুই অভিযুক্তকে ৷ মোবাইল ফোনের সূত্র ধরেই কাদেরকে ধরতে সফল হল কলকাতা পুলিশের বিশেষ দল ৷

    পুলিশের কাছে চাঞ্চল্যকর স্বীকারোক্তি কাদেরের ৷ জেরায় কাদের জানান, ‘টলিউডের এক নায়িকার সাহায্যেই শহর ছেড়েছিলাম ৷ ঘটনার সময় ঘটনাস্থলে ছিল না সাজাপ্রাপ্ত নাসির খান ৷’ পার্কস্ট্রিট গণধর্ষণকাণ্ডের শুরু থেকেই নাম জড়িয়েছিল টলিউডের এক জনপ্রিয় অভিনেত্রীর। ঘটনায় মূল অভিযুক্ত কাদের খানের ঘনিষ্ঠ হিসেবেই পরিচিত তিনি। গ্রেটার নয়ডা থেকে কাদের গ্রেফতার হওয়ার পর ফের খবরের শিরোনামে সেই অভিনেত্রী। গ্রেফতারির পরই পুলিশি জেরায় চাঞ্চল্যকর তথ্য খোলসা করে কাদের। কাদের এতদিন গ্রেফতার না হওয়ায় অভিনেত্রীকে নিয়ে মাথা ঘামায়নি পুলিশ। প্রথম চার্জশিটেও অভিনেত্রীকে অভিযু্ক্ত করা হয়নি। কাদেরের বয়ানের ভিত্তিতেই এবার কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দাদের নজরে টলিউডের সেই নামী অভিনেত্রী।

    তিনি জানান, পার্ক স্ট্রিট গণধর্ষণকাণ্ডের তিন তিনদিনের মধ্যেই কলকাতা ছাড়ে কাদের ৷ ফেরার হয়ে দেশে-বিদেশে আত্মগোপন করেন তিনি ৷ প্রথমে বিহার তারপর নেপাল ৷ একমাস নেপালে থাকার পর মুম্বইয়ে এক বন্ধুর বাড়িতে থাকে কাদের ৷ এরপর বন্ধুর আপত্তিতেই দেশ ছাড়তে বাধ্য হয় কাদের ৷ বাংলাদেশে বেশ কিছুদিন কাটিয়ে দুবাই চলে যান ৷ ফের বাংলাদেশে ফেরা ৷ বাংলাদেশ পুলিশ কাদেরকে ধরপাকড়ের চেষ্টা করে ৷ তখন বাংলাদেশ ছেড়ে ফের মুম্বই চলে আসে কাদের ৷ ভোলবদল করে মুম্বইতে থাকে কাদের ৷ পরে মুম্বই ছেড়ে দিল্লিতে আশ্রয় নেয় ৷  এদিন সকালে দিল্লি থেকেই গ্রেফতার হয় কাদের ৷

    ফোনের সূত্র ধরেই ডিসি সাউথ মুরলীধরের নেতৃত্বে কলকাতা পুলিশের একটি বিশেষ দল অভিযান চালায় দিল্লিতে ৷ সেখানেই পুলিশের জালে শেষপর্যন্ত ধরা পড়ে কাদের ও আলি ৷  আজ, শুক্রবারই কলকাতায় আনা হবে এই দু’জনকে ৷ এরপর ধৃতদের নিয়ে যাওয়া হবে আদালতে ৷

    ৫ ফেব্রুয়ারি ২০১২, পাল্টে দিয়েছিল দুই কন্যাসন্তানের মা ডিভোর্সী সুজেট জর্ডনের জীবন ৷ নাইটক্লাব থেকে বাড়ি ফেরার সময় পার্কস্ট্রিট থেকে গাড়িতে জোর করে তুলে ধর্ষণ করা হয়েছিল তাঁকে ৷ ধর্ষণের পর ‘একেবারে শেষ’ করে দেওয়ার হুমকি দিয়ে ছুঁড়ে ফেলে দেওয়া হয়েছিল সুজেটকে ৷ ভীত সন্ত্রস্ত সুজেট মেয়েদের কথা ভেবে প্রথমে চুপ করে থাকবেন ভেবেছিলেন, কিন্তু পরে সিদ্ধান্ত নেন পুলিশে অভিযোগ করার ৷

    First published: