• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • কলকাতা মেডিক্যালে প্রসূতিকে প্লেটলেট দিলেন জুনিয়র ডাক্তার

কলকাতা মেডিক্যালে প্রসূতিকে প্লেটলেট দিলেন জুনিয়র ডাক্তার

প্রসূতি ও সন্তানকে প্লেটলেট দিয়ে নতুন জীবন দিলেন জুনিয়র ডাক্তার পৃথু বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসূতি ও সন্তানকে প্লেটলেট দিয়ে নতুন জীবন দিলেন জুনিয়র ডাক্তার পৃথু বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রসূতি ও সন্তানকে প্লেটলেট দিয়ে নতুন জীবন দিলেন জুনিয়র ডাক্তার পৃথু বন্দ্যোপাধ্যায়।

  • ETV
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা:  সিনেমা আর বাস্তব যেন মিলেমিশে একাকার। সত্তরের দশকের বিখ্যাত চলচ্চিত্র অগ্নিশ্বরের সেই মানব দরদী ডাক্তারের যেন খোঁজ মিলল কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে। প্রসূতি ও সন্তানকে প্লেটলেট দিয়ে নতুন জীবন দিলেন জুনিয়র ডাক্তার পৃথু বন্দ্যোপাধ্যায়। নতুন জীবন পেয়ে ডাক্তারবাবুকে ধন্যবাদ জানালেন প্রসূতি আফসানা বেগম।

    চলচ্চিত্রে ডাক্তার অগ্নিশ্বর মন ছুঁয়েছে আপামর বাঙালির। ছায়াছবিতে রক্ত দিয়ে রোগীর জীবন বাঁচিয়ে ছিলেন উত্তমকুমার। সেই গল্পকেই যেন জীবন্ত করে তুললেন কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের জুনিয়র চিকিৎসক পৃথু বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনিও রক্ত দিয়ে সুস্থ করে তুললেন উত্তর পঁচান্ন গ্রামের বাসিন্দা আফসানা বেগম ও তাঁর শিশু কন্যাকে।

    বিরল রোগে আক্রান্ত ৮ মাসের প্রসূতি আফসানা বেগম ভর্তি হন কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। বিরল রোগ ইমিউনো থম্বসাইপিনিক পারপিউরা সংক্ষেপে আইটিপি রোগে আক্রান্ত।এই রোগের কারণে রক্তের প্লেটলেট বা অণুচক্রিকা ভেঙে যায়,এরফলে দ্রুত হিমোগ্লোবিন কমতে থাকে ।এক সময় আফসানার প্লেটলেট নেমে যায় ২ হাজারে ।গর্ভবতীর প্লেটলেট থাকা উচিৎ ৫০ হাজার ।

    আফসানার প্রয়োজন ছিল সিঙ্গল ডোনার প্লেটলেটের। বিভিন্ন ব্লাড ব্যাঙ্ক থেকে সংগ্রহ করা রক্তে আফসানার প্লেটলেটের পরিমাণ বাড়ছিল না। এদিকে তাঁর শারীরিক অবস্থায় ক্রমশ অবনতি হতে শুরু করে। প্রসূতির পরিবারও কোনওভাবেই সিঙ্গল ডোনার জোগাড় করতে পারছিলেন না। অবশেষে এগিয়ে আসেন হাসপাতালেরই এক জুনিয়র চিকিৎসক। পৃথু বন্দ্যোপাধ্যায় নামে ওই চিকিৎসক প্লেটলেট দেন আফসানাকে। দেহে প্লেটলেট বাড়ায় অস্ত্রোপচার করা সম্ভব হয়। এখন মা, মেয়ে দুজনেই সুস্থ আছেন।

    সরকারি হাসপাতালে জুনিয়র ডাক্তারদের সঙ্গে রোগীর আত্মীয়দের গন্ডগোল প্রায়ই খবরের শিরোনামে আসে। দু’পক্ষের মধ্যে মারামারি, জুনিয়র ডাক্তারদের কর্মবিরতিতে হাসপাতালের পরিষেবা ব্যাহত হয়। কলকাতা মেডিক্যালের ডাক্তার অগ্নিশ্বর নজির গড়লেন।

    First published: