corona virus btn
corona virus btn
Loading

আজই ফলাফল, আর কিছুক্ষণের মধ্যেই শুরু হবে যাদবপুরের ভোট গণনা

আজই ফলাফল, আর কিছুক্ষণের মধ্যেই শুরু হবে  যাদবপুরের ভোট গণনা

ক্যাম্পাসে চাপা উত্তেজনা থাকলেও এখনও কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনীতে ঘিরে রাখা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস।

  • Share this:

#কলকাতা: তিন বছর পর ছাত্র নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ফুটছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়। বুধবার নির্বিঘ্নে নির্বাচন শেষ হয়। এরপর বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা থেকে শুরু হবে ভোট গণনা। ক্যাম্পাসে চাপা উত্তেজনা থাকলেও এখনও কোনও অপ্রীতিকর পরিস্থিতি তৈরি হয়নি। কড়া নিরাপত্তা বেষ্টনীতে ঘিরে রাখা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস।

বুধবার একইসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের তিনটি বিভাগে ভোট হয় ৷ যাদবপুরের এই প্রথম ভোটে দাঁড়িয়েছে এবিভিপি ৷ শেষবারের ছাত্রভোটে নির্দল হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও এবার সরাসরি প্রতিদ্বন্দ্বিতায় তারা। প্রেসিডেন্সির মতো যাদবপুরেও পুরনো নিয়মেই হয়েছে ছাত্র ভোট ৷ ২০১৬ সালে বিধানসভা নির্বাচনে জয় লাভের পরই মমতা ব্যানার্জীর সরকার একটি নির্দেশিকা জারি করে জানায়, এখন থেকে আর ছাত্র সংসদ ভোট হবে না রাজ্যের কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে। তার বদলে তৈরি হবে নতুন ছাত্র কাউন্সিল। এই নতুন কাউন্সিলের নিয়ম বিধি অনুসারে ছাত্র সংসদের সভাপতি, সহ-সভাপতি ও কোষাধ্যক্ষ নির্বাচন করবে প্রতিষ্ঠানেরই প্রধান। শুধুমাত্র সাধারণ সম্পাদক ও সহ সম্পাদক নির্বাচন হবে ছাত্র-ভোটের মাধ্যমে। সরকারের এই ঘোষণারই পরই কাউন্সিল মডেলকে চূড়ান্তভাবে 'অগণতান্ত্রিক’ ও 'ছাত্র স্বার্থ’ বিরোধী বলে চিহ্নিত করে রাস্তায় নামে যাদবপুর, প্রেসিডেন্সি-সহ একাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা। রাজ্য জুড়ে একাধিকবার প্রতিবাদ কর্মসূচীরও ডাক দেয় এসএফআই-সহ একাধিক বাম ছাত্র সংগঠন। অবশেষে কলেজের ছাত্র প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলে তৃণমূল সরকার কিছুটা নরম হয় ৷ নির্দেশ দেওয়া হয়, ছাত্র সংসদ ভোট হবে নাকি কাউন্সিল ভোট হবে তা ঠিক করবে সংশ্লিষ্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষই। এরপরেই প্রেসিডেন্সিতে ছাত্র ভোট অনুষ্ঠিত হয় ৷ তারপর যাদবপুর।

এবারের ভোটে এবিভিপির মূল অস্ত্র, বিশ্ববিদ্যালয়ে বহিরাগতদের প্রবেশ নিয়ন্ত্রণ করা ৷ পাশাপাশি নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের ইতিবাচক দিকও তুলে ধরা হবে বলে জানিয়েছে এবিভিপি নেতৃত্ব। গতবছর যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র আসা নিয়ে ক্যাম্পাসে তুলকালাম হয়। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর উপস্থিতিতেই ইউনিয়ন রুম ভাংচুরের অভিযোগ ওঠে এবিভিপির বিরুদ্ধে। তবে এই অভিযোগ ভোট বাক্সে প্রভাব ফেলবে না বলেই দাবি বিশ্ববিদ্যালয়ের এবিভিপির সদস্যদের।

প্রসঙ্গত, বুধবার নির্বিঘ্নেই শেষ হয় যাদবপুরের ছাত্র ভোট। এদিন সকাল থেকেই ক্যাম্পাসে ভোটগ্রহণ পর্বের উপর নজরদারি চালান উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। ভোটে অশান্তির কথা মাথায় রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব নিরাপত্তারক্ষীর পাশাপাশি অন্যান্য সংস্থা থেকে নিরাপত্তা রক্ষী মোতায়েন করা হয়েছিল। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে খবর, ছাত্রভোটে ৮০ শতাংশেরও বেশি পড়ুয়া অংশগ্রহণ করেছে।

এবারের ছাত্রভোটেই প্রথম ইঞ্জিনিয়ারিং ও কলা বিভাগে মূল আসনের প্রত্যেকটিতেই প্রার্থী দিয়েছে এবিভিপি। ভোটদানের হার ভাল হওয়ায় ভাল ফলের ব্যাপারে আশাবাদী তারা। এ প্রসঙ্গে এবিভিপি ছাত্রনেতা সুরঞ্জন সরকার বলেন "ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে আমরা ভাল ফলের ব্যাপারে আশাবাদী। পড়ুয়াদের মধ্যে এখানে কতজন বাম মনোভাবের বিরোধী তার উত্তর পাওয়া যাবে আজ।"

যদিও এবিভিপি ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকে নিয়ে খুব একটা মাথা ঘামাচ্ছে না গত কয়েক বছর ধরে ইঞ্জিনিয়ারিং এর ছাত্র সংসদের ক্ষমতায় থাকা ডিএসএফ। ডিএসএফ এর বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক অভিক পাল বলেন "গত ৪৩ বছর ধরে ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ক্ষমতা ডিএসএফের হাতেই রয়েছে এবারও তাই হবে।" অন্যদিকে কলা বিভাগের নিজেদের ছাত্র সংসদের ক্ষমতা ধরে রাখার ব্যাপারে আশাবাদী এসএফআই।

Published by: Shubhagata Dey
First published: February 20, 2020, 9:35 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर