corona virus btn
corona virus btn
Loading

টেট কাণ্ডে ধৃত জয়প্রকাশকে ৩ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ

টেট কাণ্ডে ধৃত জয়প্রকাশকে ৩ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ

প্রভাবশালী তত্ত্বেই আদালতে খারিজ বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদারের জামিনের আবেদন। তাঁকে তিন দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিল বিধাননগর আদালত।

  • Share this:

#কলকাতা: প্রভাবশালী তত্ত্বেই আদালতে খারিজ বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদারের জামিনের আবেদন। তাঁকে তিন দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিল বিধাননগর আদালত। সরকারি ও মামলাকারীর আইনজীবীর অভিযোগ, টাকা তুলে প্রতারণা করেন তিনি। রাজনৈতিক প্রতিহিংসা মেটাতেই জয়প্রকাশ গ্রেফতার বলে পালটা দাবি তাঁর আইনজীবীর। প্রায় সাত ঘণ্টার ম্যারাথন জেরার পর শনিবার গ্রেফতার করা হয় বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদারকে। রবিবার তাঁকে বিধাননগর আদালতে তোলা হয়। আদালতে খোদ মামলাকারীকে নিয়েই একাধিক প্রশ্ন তোলেন জয়প্রকাশ মজুমদারের আইনজীবী তীর্থঙ্কর ঘোষ। রাজনৈতিক চক্রান্তের তত্ত্বই তুলে ধরেছেন তিনি। - মামলাকারী অরূপরতন রায় টেটের পরীক্ষার্থী নন। অভিযোগ পত্রে ‘আমরা’ লেখা। এই ‘আমরা’ কারা?

- যদি ছাত্র শিক্ষক ঐক্য মঞ্চের তরফে টাকা দেওয়া হয় তাহলে অভিযোগে কেন একা অরূপরতন রায়ের একার সই? - সুপ্রিম কোর্ট থেকে টেট সংক্রান্ত একটি মামলা কলকাতা হাইকোর্টে পাঠানো হয়। জয়প্রকাশ মজুমদারকে টাকা দেওয়া হয়েছে, আবার আলাদা করেও সুপ্রিম কোর্টে মামলা চলছে। তাহলে কি দুটো অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়া হয়েছে? এজলাসে অভিযোগকারী অরূপরতন রায়ের আইনজীবী জয়দেব দাস ও সরকারি আইনজীবী সন্দীপ ভট্টাচার্য অভিযুক্তের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তোলেন। জয়প্রকাশ মজুমদার নিজে আইনজীবী নন। সুপ্রিম কোর্ট বা হাইকোর্টে সাধারণ মানুষও যেতে পারে। তাহলে তাঁর সুপারিশের কী দরকার? উনি টাকা নিয়েছেন। তাঁর দলের রাজ্য সভাপতিকেও এ ব্যাপারে জানানো হয়। তিনি কোনও ব্যবস্থা না নেওয়ায় থানায় অভিযোগ দায়ের হয়। হুমকিও দিয়েছেন জয়প্রকাশ মজুমদার। জামিন পেলে সাক্ষীদের ফের হুমকি দিতে পারেন বলেও মনে করা হচ্ছে।

First published: January 16, 2017, 8:49 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर