• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • West Bengal Civic Polls: বিরোধীদের মতোই এক দফায় পুরভোট চান রাজ্যপাল, হাওড়ায় ভোটের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তায় কমিশন

West Bengal Civic Polls: বিরোধীদের মতোই এক দফায় পুরভোট চান রাজ্যপাল, হাওড়ায় ভোটের ভবিষ্যৎ নিয়ে চিন্তায় কমিশন

রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাসের সঙ্গে বৈঠকে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷

রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাসের সঙ্গে বৈঠকে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷

শেষ পর্যন্ত রাজ্যপাল হাওড়া বালি বিচ্ছেদ সংক্রান্ত বিল পুনর্বিবেচনার জন্য বিধানসভার কাছে ফেরত পাঠাতে পারেন বলেও আশঙ্কা করছে নির্বাচন কমিশন (West Bengal Civic Polls)৷

  • Share this:

#কলকাতা: পুরভোট নিয়েও কি এবার রাজ্যের সঙ্গে সংঘাতের পথেই হাঁটবেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷ কারণ বিরোধীদের মতোই রাজ্যে একসঙ্গে সব পুরসভার নির্বাচন চাইছেন রাজ্যপাল (West Bengal Civic Polls)৷ এ দিন রাজ্য নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে রাজ্যপালের বৈঠকের পর পুরভোট নিয়ে রাজ্য- রাজ্যপাল (Jagdeep Dhankhar) সংঘাতের সম্ভাবনা জোরালো হয়েছে৷ শুধু তাই নয়, রাজ্যপালের আপত্তিতে হাওড়ার পুরভোটও পিছিয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছে কমিশন৷

পুরভোট মনোভাব এ দিন ট্যুইট করেও বুঝিয়ে দিয়েছেন রাজ্যপাল৷ নির্বাচন কমিশনারের সঙ্গে বৈঠকের ছবি দিয়ে ট্যুইট করে রাজ্যপাল লেখেন, 'রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে যে তাদের ক্ষমতা জাতীয় নির্বাচন কমিশনের মতোই৷ ফলে তাদের নিরপেক্ষ, স্বাধীন এবং কার্যকর ভাবেই দায়িত্ব পালন করা উচিত৷ সরকারের বৃহত্তর অংশ হিসেবে নয়৷'

রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাসকে এ দিন রাজভবনে ডেকে পাঠিয়েছিলেন রাজ্যপাল৷ প্রায় এক ঘণ্টা দু' জনের মধ্যে বৈঠক হয়৷ যদিও বৈঠক চলাকালীন একাধিক ইস্যুতে রাজ্যপালের সঙ্গে নির্বাচন কমিশনারের মতানৈক্য হয়েছে বলেই রাজভবন সূত্রে খবর৷ কারণ কেন এক দফায় কমিশন ভোট করাতে অপারক, এ দিন বৈঠকে বার বার নির্বাচন কমিশনারকে সেই প্রশ্নই করেছেন জগদীপ ধনখড়৷ নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাসকে সংবিধান মেনে কাজ করারও পরামর্শ দিয়েছেন রাজ্যপাল৷

আরও পড়ুন: বহু দফাতেই রাজ্যে পুরভোট, হাইকোর্টে হলফনামা দিয়ে জানিয়ে দিল কমিশন

এ ছাড়াও হাওড়ার পুরভোটের ভবিষ্যৎ নিয়েও আশঙ্কা তৈরি হয়েছে কমিশনের অন্দরে৷ কারণ রাজ্যের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী হাওড়া থেকে বালি পুরসভাকে আলাদা করা হচ্ছে৷ তার জন্য বিধানসভায় বিলও পাশ হয়েছে৷ সেই বিল সই করার জন্য রাজ্যপালের কাছে পৌঁছেছে৷ কিন্তু সূত্রের খবর, বালিকে হাওড়া থেকে আলাদা করা নিয়ে প্রায় রোজই নিত্য নতুন প্রশ্ন তুলে রাজ্য সরকারের কাছে ব্যাখ্যা তলব করছেন রাজ্যপাল৷

শেষ পর্যন্ত রাজ্যপাল হাওড়া বালি বিচ্ছেদ সংক্রান্ত বিল পুনর্বিবেচনার জন্য বিধানসভার কাছে ফেরত পাঠাতে পারেন বলেও আশঙ্কা করছে নির্বাচন কমিশন৷ তার পরেও অবশ্য বিল তাঁর কাছে গেলে সই করতে বাধ্য রাজ্যপাল৷ কিন্তু এই টানাপোড়েনের জেরে অনেকটা সময় নষ্ট হতে পারে৷ ফলে পিছিয়ে যেতে পারে হাওড়ার পুরভোট৷

আরও পড়ুন: বিপ্লব সরকারের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক সুদীপ, পুরভোটের ঠিক আগে ত্রিপুরায় ব্যাকফুটে বিজেপি

রাজ্য সরকার ও কমিশনের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ১৯ ডিসেম্বর কলকাতা ও হাওড়ায় পুরভোট হওয়ার কথা৷ যদিও এখনও সেই বিজ্ঞপ্তি জারি করেনি কমিশন৷ ফলে রাজ্যপালের এ দিনের মনোভাবে কমিশনের চিন্তা বেড়েছে৷

এই পরিস্থিতিতে আগামিকাল কলকাতা হাইকোর্ট পুরভোট নিয়ে মামলায় কী রায় দেয়, সেদিকেই তাকিয়ে রয়েছে নির্বাচন কমিশন৷ এ দিনই কমিশনের তরফে আদালতে হলফনামা দিয়ে জানানো হয়েছে, তাদের হাতে পর্যাপ্ত সংখ্যক ইভিএম না থাকার কারণেই একসঙ্গে ১১২টি পুরসভায় ভোট গ্রহণ সম্ভব নয়৷ সূত্রের খবর, কেন একসঙ্গে ভোট করানোর মতো পরিকাঠামো কমিশনের নেই, এ দিনের বৈঠকে সেই প্রশ্নও তোলেন রাজ্যপাল৷

কমিশন সূত্রে খবর, আপাতত চার দফায় রাজ্যে পুরনির্বাচন করানোর পরিকল্পনা করা হয়েছে৷ ইভিএম-এর অভাব যেমন এর অন্যতম কারণ, তার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখেও এই পরিকল্পনা করেছে নির্বাচন কমিশন৷

Published by:Debamoy Ghosh
First published: