• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • পথ দেখাচ্ছে যাদবপুর! করোনা পরিস্থিতিতে গবেষণা দিয়েই অ্যাকাডেমিক কাজ শুরুর ভাবনা

পথ দেখাচ্ছে যাদবপুর! করোনা পরিস্থিতিতে গবেষণা দিয়েই অ্যাকাডেমিক কাজ শুরুর ভাবনা

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়

কোভিড প্রটোকল মেনে বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা সংক্রান্ত কাজ শুরু করা যায়, সেই বিষয়ে চিঠিতে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে উপাচার্যকে।

  • Share this:

#কলকাতা: করোনা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাকাডেমিক কাজ শুরু হচ্ছে? অন্তত এমনই জল্পনা যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাসের মন্তব্যে৷ সোমবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক সংগঠন বা জুটার তরফে বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক কাজ শুরু করার প্রস্তাব দিয়ে চিঠি পাঠানো হয় উপাচার্য সুরঞ্জন দাসকে। মূলত প্রাথমিক ভাবে কোভিড প্রটোকল মেনে বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা সংক্রান্ত কাজ শুরু করা যায়, সেই বিষয়ে চিঠিতে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে উপাচার্যকে।

মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস বলেন, "জুটার তরফে প্রস্তাব আমি পেয়েছি। প্রস্তাবটি খুব ভাল। অ্যাকাডেমিক অকাজকর্ম কী ভাবে শুরু করা যায় তা নিয়ে ফ্যাকাল্টি কাউন্সিলের সদস্যদের সঙ্গে আলোচনা করা হবে।" যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাপক সংগঠন বা জুটার সভাপতি পার্থপ্রতিম বিশ্বাস বলেন, "দীর্ঘ পাঁচ মাস হতে চলল যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণা সংক্রান্ত কাজকর্ম বন্ধ রয়েছে। তাই আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে প্রস্তাব রেখেছি যাতে খুব কম সংখ্যক অধ্যাপক-অধ্যাপিকা, গবেষক পড়ুয়াদের নিয়ে অন্তত গবেষণা সংক্রান্ত কাজ শুরু করা যায়। সে ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষণাগারগুলি সানিটাইজ করে এবং অবশ্যই স্বাস্থ্যবিধি মেনে।"

এর পর অন্তত স্পষ্ট, রাজ্যের মধ্যে প্রথম কোনও বিশ্ববিদ্যালয় করোনা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেই গবেষণা সংক্রান্ত কাজ শুরু করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক অ্যাক্টিভিটি শুরু করতে চলেছে। অবশ্য উচ্চশিক্ষা দফতরের তরফে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক সংক্রান্ত কাজ চালুর জন্য ইতিমধ্যেই অনুমোদন দেওয়া আছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলি অ্যাকাডেমিক অ্যাক্টিভিটি শুরু করবে নাকি সে বিষয়ে অবশ্য উচ্চশিক্ষা দফতর নির্দিষ্টভাবে কিছু বলেনি।

ইতিমধ্যেই যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাডমিশন কমিটি সিদ্ধান্ত নিয়েছে চলতি বছরের স্নাতক স্তরে প্রথমবর্ষের ছাত্র-ছাত্রীদের কীভাবে ভর্তি নেওয়া হবে। তবে ভর্তি সংক্রান্ত ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয় তবে এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত কোনও নির্দেশিকা জারি করেনি। কিন্তু লকডাউন এবং করোনা ভাইরাস সংক্রমণের জন্য দীর্ঘদিন ধরে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ রয়েছে। থমকে রয়েছে গবেষণা সংক্রান্ত কাজ।

সম্প্রতি সারা দেশের মধ্যে কেন্দ্রের সমীক্ষাতে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়কে পিছনে ফেলে ১ থেকে ১০-এর মধ্যে স্থান দখল করেছে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিরোপার পিছনে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অধ্যাপকের গবেষণার অবদান অনেকটাই। তবে শুধু অ্যাকাডেমিক অ্যাক্টিভিটি নয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রান্তিক অঞ্চলে যে সমস্ত ছাত্রছাত্রীরা অনলাইনে ক্লাস করার সুযোগ পাচ্ছে না, তাদের ক্লাস করার জন্য বিকল্প কী ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে তার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়কে প্রয়োজনীয় পরিকল্পনা নেওয়ার আবেদন রেখেছে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সংগঠন। এ প্রসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য সুরঞ্জন দাস বলেন "পঠনপাঠনের ক্ষেত্রে ছাত্রছাত্রীদের অধিকার যাতে বজায় থাকে সেই বিষয়ে আমাদের তরফ এ ভাবনা চিন্তা করা হচ্ছে।"

SOMRAJ BANDOPADHYAY

Published by:Arindam Gupta
First published: