যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন ঘিরে জটিলতা, শনিবার ডাকা হল জরুরি ভিত্তিতে EC-র বৈঠক

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন ঘিরে জটিলতা, শনিবার ডাকা হল জরুরি ভিত্তিতে EC-র বৈঠক
File Photo

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন ঘিরে জটিলতা। শনিবার জরুরি ভিত্তিতে এক্সিকিউটিভ কাউন্সিলের বৈঠক ডাকলেন উপাচার্য সুরঞ্জন দাস।

  • Share this:

Somraj Banerjee

#কলকাতা: যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে নাও দেওয়া হতে পারে ডিলিট এবং ডিএসসি। শনিবার জরুরি ভিত্তিতে এক্সিকিউটিভ কাউন্সিলের বৈঠক ডাকলেন উপাচার্য সুরঞ্জন দাস। দুপুর ১টা নাগাদ ডাকা বৈঠকে সব সদস্যদের উপস্থিত থাকতে বলা হল। শুধু তাই নয়, এড়ানো হতে পারে রাজ্যপাল জাগদীপ ধনকার কেও। যদিও বৈঠকের কারণ হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয়ে তরফেই জানানো হয়েছে কিছু প্রাসঙ্গিক কারণের জন্যই আগামী কালকের বৈঠক ডাকা হয়েছে।

যাদবপুরে সমাবর্তনে ডিলিট ডিএসসি দেওয়া নাও হতে পারে। শুক্রবার দিনভর এমনই জল্পনা চললো বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্দরেই। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিমধ্যেই সিদ্ধান্ত নিয়েছে শঙ্খ ঘোষ ও সলমন হায়দারকে ডিলিট দেওয়া হবে এবং বিজ্ঞানী সিএনআর রাও এবং সংঘমিত্রা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ডিএসসি দেওয়ার।

রাজ্যপালের উপস্থিতিতেই বিশ্ববিদ্যালয় কোড বৈঠক করে এই সিদ্ধান্ত অনুমোদন ইতিমধ্যেই করেছে। যদিও সেই সময় রাজ্যের উচ্চশিক্ষা দফতর জারি করে নি নয়া বিধি। মূলত আচার্য তথা রাজ্যপালকে এড়ানোর জন্যই কি এই সিদ্ধান্ত। দিনভর এমনই জল্পনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্দরে চললেও সূত্রের খবর আচার্যের ক্ষমতা নিয়ে নয়া বিধি জারি করেছে উচ্চ শিক্ষা দফতর। নয়া বিধি জারির পরপরই উচ্চ শিক্ষা দফতরের তরফে জানানো হয়েছে ডিলিট এবং ডিএসসি দেওয়ার প্রক্রিয়া স্থগিত রাখতে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে এমনই খবর। যদিও এই বিষয় নিয়ে কোন মন্তব্য করতে চাইনি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এদিকে সমাবর্তনে রাজ্যপালকে বয়কটের ডাক দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংগঠন এসএফআই। শুধু তাই নয় রাজ্যপাল কে কালো পতাকা দেখিয়ে বিক্ষোভ দেখাবে এসএফআই। বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পড়ুয়া দের আবেদন জানানো হয়েছে যাতে তারা আচার্যের হাত কোন শংসাপত্র বা মেডেল না নেন। যদিও বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাসে সমাবর্তন হলেও ডিলিট বা ডিএসসি না দেওয়ার ঘটনা সাম্প্রতিককালে ঘটেনি বলেই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকদের ব্যাখ্যা। তবে এই বিষয়ে এখনই সরাসরি মন্তব্য করতে নারাজ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক সংগঠনগুলি। শনিবারের ইসির বৈঠক এর দিকেই তাকিয়ে গোটা বিশ্ববিদ্যালয়।

First published: 09:32:53 PM Dec 20, 2019
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर