• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • ভাঙড় মৃত্যু মামলায় কেস ডায়েরির সঙ্গে তদন্তকারী অফিসারকে তলব বিচারপতির

ভাঙড় মৃত্যু মামলায় কেস ডায়েরির সঙ্গে তদন্তকারী অফিসারকে তলব বিচারপতির

ভাঙড়ে মৃত্যু মামলায় তদন্তের অগ্রগতি রিপোর্ট চাইল হাইকোর্ট।

ভাঙড়ে মৃত্যু মামলায় তদন্তের অগ্রগতি রিপোর্ট চাইল হাইকোর্ট।

ভাঙড়ে মৃত্যু মামলায় তদন্তের অগ্রগতি রিপোর্ট চাইল হাইকোর্ট।

  • Share this:

    #কলকাতা: ভাঙড়ে মৃত্যু মামলায় তদন্তের অগ্রগতি রিপোর্ট চাইল হাইকোর্ট। একইসঙ্গে ভাঙড়কাণ্ডের তদন্তকারী অফিসারকে সাতদিনের মধ্যে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি। মামলার কেস ডায়েরিও তলব করেছেন তিনি। ভাঙড়ে পুলিশ না অন্য কেউ গুলি চালিয়েছিল? তা জানতেই এই নির্দেশ।

    একইসঙ্গে উদ্ধার হওয়া বুলেটের ব্যালিস্টিক রিপোর্ট ও পোস্টমর্টেম রিপোর্ট সম্পর্কেও জানতে চেয়েছেন বিচারপতি। তাঁর মন্তব্য, ভাঙড়ে মফিজুলের মৃত্যু মানসম্পদের ক্ষতি। তদন্তের ওপর তিনি যে নজর রাখছেন তাও স্পষ্ট করে দিয়েছেন। চার সপ্তাহ পরে এই মামলার পরবর্তী শুনানি ৷

    বিচারপতি জয়মাল্য বাগচির নির্দেশ, চার সপ্তাহের মধ্যে হাইকোর্টে জমা দিতে হবে তদন্তের অগ্রগতির রিপোর্ট ৷ একইসঙ্গে রিপোর্টে যে বিষয়গুলি উল্লেখ করার নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি, তা হল-

    ‘ভাঙড়ে পুলিশ গুলি চালায় কিনা?’ ‘কোন অবস্থায় পুলিশকে গুলি চালাতে হয়?’ ‘পুলিশ গুলি না চালালে কারা গুলি চালাল?’ ‘উদ্ধার গুলির ব্যালিস্টিক পরীক্ষা হয়েছে কিনা’ ‘সুরতহালের চিকিৎসকের কী পর্যবেক্ষণ ছিল?’

    পাওয়ার সাবস্টেশন নির্মাণ বন্ধের দাবিতে ভাঙড়ে আন্দোলন চলাকালীন গুলিবিদ্ধ হন তিনজন ৷ তাদের মধ্যে দু’জনের মৃত্যু হয় ৷ মৃতদের নাম মফিজুল আলি খান (২৬), আলমগীর মোল্লা (২২) ৷ আহত আকবর আলি মোল্লার ডান হাতে গুলি লাগে ৷ তবে গুলি কে চালিয়েছে এই নিয়ে শুরু হয় বিতর্ক ৷ পুলিশের বক্তব্য, বহিরাগতরাই গুলি চালিয়েছে ৷ বিক্ষোভকারীদের একাংশের অভিযোগ, পুলিশই গুলি চালিয়েছে ৷

    এদিন বিধানসভায় ভাঙড়ে মৃতদের পরিবারকে চাকরি দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷

    First published: