International Women's day: মনোবল বাড়াতে মহিলাদের ভরসা মহিলারাই!

International Women's day:  মনোবল বাড়াতে মহিলাদের ভরসা মহিলারাই!

লকডাউনের সময় থেকে ঘরের মেয়েরা আরও বেশি করে ঘরের কাজে মন দিয়েছেন৷ অনেকটা সময় মেলায় নানা ঘরোয়া কাজেও নিজেদের হাত পাকিয়েছেন৷ এমকি স্বামীর কাজ চলে যাওয়া বা উপার্জন কমে যাওয়ায়, তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন৷ শক্ত হাতে সংসারের হাল ধরেছেন৷ সেই সব মহিলাদের নিয়ে ফেসবুকে একটি গ্রুপ খোলেন ৪ বন্ধু৷

লকডাউনের সময় থেকে ঘরের মেয়েরা আরও বেশি করে ঘরের কাজে মন দিয়েছেন৷ অনেকটা সময় মেলায় নানা ঘরোয়া কাজেও নিজেদের হাত পাকিয়েছেন৷ এমকি স্বামীর কাজ চলে যাওয়া বা উপার্জন কমে যাওয়ায়, তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন৷ শক্ত হাতে সংসারের হাল ধরেছেন৷ সেই সব মহিলাদের নিয়ে ফেসবুকে একটি গ্রুপ খোলেন ৪ বন্ধু৷

  • Share this:

    #কলকাতা: মেয়েরাই নাকি মেয়েদের শত্রু? এই বিষয় নিয়ে কম তর্ক-বিতর্ক হয় না৷ একে অপরের ভাল দেখতে পারে না, উল্টে কোনও মেয়ে বিপদে পড়লে তাঁর পাশে না দাঁড়িয়ে উল্টে তার বদনাম করাই নাকি অধিকাংশ মহিলার ধর্ম৷ এমন কথা উঠে আসে বহুবার৷ তবে সমাজের নানান বদলের সঙ্গে, পাল্টেছে মেয়েদের এমন ভাবনা৷ এখন একে অন্যের পাশে থেকে, মহিলাদের সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন অন্য মহিলারাই৷ সমাজে মহিলাদের সঙ্গে কোনও অভব্যতা হলে, অন্য মেয়েরাই রুখে দাঁড়াচ্ছেন৷ এই ভাবে এগিয়ে চলেছি আমরা৷

    মেয়েদের পাশে মেয়েরাই! এই ভাবনাচিন্তা থেকে আন্তর্জাতিক নারী দিবসকে মাথায় রেখে এগিয়ে এল কয়েকজন মহিলা৷ তাঁদের ভাবনা চিন্তায় শুরু হল এক প্রর্দশনী৷ যাতে অংশ নিচ্ছেন বহু মহিলা এবং তুলে ধরছেন তাঁদরে নিজস্ব সৃষ্টি৷

    হিন্দুস্তান পার্কে ২ দিন ব্যাপি এই প্রদর্শনীতে মিলবে হরেক রকম জিনিস৷ জামা কাপড় থেকে ব্যাগ, গয়না এমনকি আচার, সবাই তৈরি করে এখানে ডালি সাজিয়ে বসেছেন বাড়ির মেয়ে-বউরা৷ ডিজিটাল জমানায় এতদিন এই বিক্রিবাটা চলত অনলাইন৷ এবার সরাসরি সকলের সামনে এসেছেন শুরু হল ব্যবসা৷ মূল ভাবনায় নীলাঞ্জনা৷

    লকডাউনের সময় থেকে ঘরের মেয়েরা আরও বেশি করে ঘরের কাজে মন দিয়েছেন৷ অনেকটা সময় মেলায় নানা ঘরোয়া কাজেও নিজেদের হাত পাকিয়েছেন৷ এমকি স্বামীর কাজ চলে যাওয়া বা উপার্জন কমে যাওয়ায়, তাদের পাশে দাঁড়িয়েছেন৷ শক্ত হাতে সংসারের হাল ধরেছেন৷ সেই সব মহিলাদের নিয়ে ফেসবুকে একটি গ্রুপ খোলেন ৪ বন্ধু৷ নাম নীলাঞ্জনা, রুক্মিনী, বর্নিতা এবং শর্মিষ্ঠা৷ অনলাইনে এমন বহু মহিলাদের সাহায্য করেছিলেন নিজেদের জিনিস বিক্রির ক্ষেত্রে৷ তাঁদের এই ফেসবুক পেজের নাম দা ট্রেডিশনাল ফিয়েস্তা৷ ধীরে ধীরে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসায় এবার তাঁরা নেমে পড়লেন সরাসরি মাঠে!

    এই বন্ধুদের উদ্যোগে শুরু হয়েছে ট্রেডিশনাল ফিয়েস্তার সফর যাতে অংশ নিচ্ছেন বহু মহিলা৷ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন সঙ্গীত শিল্পী নীপবীথি ঘোষ৷ এই প্রর্দশনীর নাম দেওয়া হয়েছে ট্রেডিশনাল ফিয়েস্তা, সেলিব্রেট দা কালার্স অব লাইফ৷ সত্যিই যেন জীবনের বহু রং ধরা দিয়েছে মহিলাদের এই বিশেষ উদ্যোগে৷

    Published by:Pooja Basu
    First published:

    লেটেস্ট খবর