• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • INDUSTRY MINISTER PARTHA CHATTERJEE STATEMENT ON TATA IN WEST BENGAL SB

Partha Chatterjee: 'রিলায়েন্স কাজ করছে, Tata-রাও করবে!' সিঙ্গুর ক্ষত ঢেকে নতুন ক্ষেত্র গড়ছেন পার্থ

টাটাদের স্বাগত পার্থর

Partha Chatterjee: পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সংযোজন, 'আমাদের মূল লক্ষ্য হল বাংলায় কর্মসংস্থান। সেটাই আমাদের সরকারের অগ্রাধিকার। টাটাদের কোনও প্রপোজাল থাকলে তাকে আমরা স্বাগত জানাব। '

  • Share this:

    #কলকাতা: সিঙ্গুর আন্দোলনের পর কেটে গিয়েছে ১৩ বছর। বিরোধী থেকে এখন তৃতীয় বারের শাসক তৃণমূল। আর বিপুল ভোটে জিতে তৃতীয় বারের জন্য রাজ্যের ক্ষমতায় আসার পর রাজ্যত্যাগী টাটাদের উদ্দেশেই বারবার বার্তা দিচ্ছেন রাজ্যের শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। দিনকয়েক আগেই তিনি বলেছিলেন, ‘‘লড়াই ছিল বাম সরকার ও তাদের জমি অধিগ্রহণ নীতির বিরুদ্ধে। টাটার বিরুদ্ধে নয়।’’ শুক্রবার ফের টাটাদের জন্য ইতিবাচক বার্তা দিলেন শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী। তাঁর কথায়, 'টাটারা আমাদের শত্রু নয়। অনিচ্ছুক কৃষকদের থেকে বহুফসলি জমি নেওয়া হয়েছিল। আমরা জমির স্থান বাছাই নিয়ে বলেছিলাম। টাটার নানা বিজনেস তখনও এখানে ছিল। টাটারা আসলে খুশি হব।অনেকে শিল্প আছে যারা বিনিয়োগ করেছে এই রাজ্যে তাদের উৎসাহিত করতে হবে।'

    এখানেই শেষ নয়, পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সংযোজন, 'আমাদের মূল লক্ষ্য হল বাংলায় কর্মসংস্থান। সেটাই আমাদের সরকারের অগ্রাধিকার। টাটাদের কোনও প্রপোজাল থাকলে তাকে আমরা স্বাগত জানাব। রিলায়েন্সের মতো বড় সংস্থাও এখানে কাজ করছে। বাংলায় শিল্পায়ন হোক, তা আমরা সকলেই চাই। কিন্তু শিল্প কৃষির সমন্বয়ে অগ্রগতি চাই।'

    প্রসঙ্গত, তৎকালীন বিরোধী দল তৃণমূলের মারাত্মক আন্দোলনের জেরে ১৩ বছর আগে সিঙ্গুর ছেড়ে টাটার ন্যানো কারখানা চলে গিয়েছিল গুজরাতের সানন্দে। রাজ্য রাজনীতিতে তোলপাড় ফেলেছিল সেই ঘটনা। সিঙ্গুর এবং নন্দীগ্রামে জমি অধিগ্রহণ বিরোধী আন্দোলনকে সামনে রেখেই বাম শাসনের অবসান ঘটিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তাঁর নেতৃত্বাধীন তৃণমূল কংগ্রেস। এরপর ক্ষমতায় এসে বারবার শিল্প সম্মেলনের আয়োজন করেছেন তিনি। শিল্প আনতে ভিনদেশেও পাড়ি দিয়েছিলেন।

    কিন্তু টাটা ক্ষত থেকেই গিয়েছিল তৃণমূলের। অবশেষে সম্প্রতি মুখ খোলেন শিল্প বাণিজ্য মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তিনি বলেন, 'সমস্যা ছিল বাম সরকারের সঙ্গে। যে ভাবে জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছিল, সেই পদ্ধতি নিয়ে সমস্যা ছিল। টাটার সঙ্গে আমাদের শত্রুতা নেই। টাটার বিরুদ্ধে আমরা লড়াইও করিনি। দেশে ও বিদেশে টাটা অন্যতম বৃহৎ এক শিল্পগোষ্ঠী, সম্মানীয়ও বটে। আমরা টাটাকে দোষ দিতে পারি না।' এবার ফের টাটাদের আমন্ত্রণ জানিয়ে মুখ খুললেন তিনি।

    Published by:Suman Biswas
    First published: