corona virus btn
corona virus btn
Loading

দুর্গাপুজোয় আয়কর নোটিস ইস্যুতে কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাতে রাজ্য

দুর্গাপুজোয় আয়কর নোটিস ইস্যুতে কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাতে রাজ্য
photo: Tweet
  • Share this:

দুর্গাপুজোয় আয়কর নোটিস ইস্যুতে সংঘাত। সিবিডিটির দাবি, এবার তারা কোনও পুজো কমিটিকে নোটিস দেয়নি। মানতে নারাজ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, পুজো মিটলেই পরের বছর নোটিস ধরাবে। প্রেস বিবৃতি দিয়ে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা হচ্ছে।

দুর্গাপুজোয় কর নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য সংঘাত। আয়কর দফতরের কেন্দ্রীয় প্রত্যক্ষ কর বোর্ডের দাবি, তারা এবার কোনও পুজো কমিটিকে নোটিস দেয়নি। সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডিরেক্ট ট্যাক্সের প্রেস বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে, পুজো কমিটিকে নোটিস দেওয়ার অভিযোগ ভিত্তিহীন। তবে, ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে তিরিশটি পুজো কমিটিকে নোটিস দেওয়া হয়েছিল। কারণ, অভিযোগ পাওয়া গিয়েছিল, মণ্ডপ, আলো ও অন্যান্য আয়োজনের জন্য যে সব ঠিকাদার সংস্থা বা ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট সংস্থাকে বরাত দেওয়া হয় তারা ঠিকমতো আয়কর জমা দিচ্ছে না। জানতে চাওয়া হয়েছিল কত টিডিএস কাটা হয়েছে। অনেক পুজো কমিটিই সেই তথ্য জানায়। অনেক কমিটির তরফে বলা হয় টিডিএস নিয়ে তাদের স্পষ্ট ধারণা নেই। তাদের অনুরোধেই ২০১৯ সালের ১৬ জুলাই একটি বৈঠক হয়। সেখানে পুজো কমিটিদের নিয়ে তৈরি ফোরামের আট সদস্য উপস্থিত ছিলেন।
এই ব্যাখ্যা অবশ্য মানতে রাজি নন তৃণমূলনেত্রী। ফেসবুকে সুর চড়িয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি,  টিডিএস হল টেরিবল ডিজাস্টার স্কিম। সিবিডিটি দাবি করেছে এ বছর কোনও নোটিস দেওয়া হয়নি। এর কোনও অর্থই হয় না। কারণ, এ বছরের পুজো হওয়ার পরেই তারা আগামী বছর নোটিস ধরাবে। সিবিডিটির ব্যাখ্যাতেই স্পষ্ট যে কর বসানো হবে। তা হলে কেন ভুল বোঝানো হচ্ছে? পুজো কমিটি ও সাধারণ মানুষের মনে বিভ্রান্তি তৈরি করতেই এই প্রেস বিবৃতি। এটা আমাদের সংস্কৃতি ও দুর্গোৎসবের উপরও আক্রমণ। কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন, কোনও পুজো কমিটি বা কোনও উৎসবে যেন এরকম জিজিয়া কর বসানো না হয়। তৃণমূলের দাবি, এ সবের পিছনে রয়েছে বিজেপি। তারা চাইছে এভাবে আয়করের ভয় দেখিয়ে দুর্গাপুজো দখল করতে। মঙ্গলবার পথে নেমে প্রতিবাদ করে তৃণমূল। পুজোয় আয়কর দফতরের নোটিসের অভিযোগে এ দিন সকাল থেকে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে ধরনায় বসে তৃণমূলের বঙ্গজননী।
First published: August 14, 2019, 4:06 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर