• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • IN PROTEST OF PEGASUS MAMATA BANERJEE EMERGES IN 21 JULY VIRTUAL MEET STICKING LEUCOPLAST IN HER PHONE AKD

Mamata Banerjee | 21 July | মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফোনে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে ২১ জুলাই শহীদ দিবস-এর মঞ্চে, ফোনে আড়িপাতার প্রতিবাদ!

ফোনে লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে মমতার অভিনব প্রতিবাদ!

Mamata Banerjee | 21 July: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) ২১ জুলাই শহীদ দিবস-এর (Shahid Diwas) বক্তৃতার মূল সুরটাই বাঁধলেন গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ ও তার বিকল্প সন্ধানে (TMC Martyrs Day)।

  • Share this:

    #কলকাতা: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) ফোনে আড়িপাতার প্রতিবাদে অভিনব ভাবে ২১ জুলাই  শহীদ দিবস-এর (21 July Shahid Diwas)  মঞ্চে অবতীর্ণ হলেন । দেখা গেল ফোনের ক্যামেরাটাই তিনি লিউকোপ্লাস্ট লাগিয়ে  দিয়েছেন। ২১-এর বক্তৃতার মূল সুরটাই মমতা বাঁধলেন গণতন্ত্রের কণ্ঠরোধ ও তার বিকল্প সন্ধানে। "মমতার কথায়, গণতন্ত্রের বদলে দেশে গোয়েন্দাগিরি চলছে। সকলের মুখ বন্ধ।" তৃণমূল নেত্রীর যুক্তি এটাই হাল আলের সবচেয়ে বড় স্ক্যান্ডেল।

    পেগাসাস কাণ্ডে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম না থাকলেও রয়েছে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এবং প্রশান্ত কিশোরের নাম। মমতা স্পষ্টই বললেন, তিনি তাঁদের সঙ্গে অহরহ যোগাযোগ রাখেন। কাজেই তিনিও একরকম ট্যাপড। মমতার কথায়,  "শরদ পাওয়ার, চিদম্বরম কাউকে ছাড়েনি। আমি পিকে, অভিষেক সাথে ভোটের আগে মিটিং করেছিলাম। তার অডিও নিয়ে নিয়েছিল।" আর এই কারণেই মমতার প্রতীকী প্রতিবাদ।

    তৃণমূল নেত্রী এদিন বলেন, "আমি কোনও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে পারি না। কারণ ফোন ট্যাপ হচ্ছে। তাই ফোনই  প্লাস্টার করে দিয়েছি। তবে ভারত সরকারকে প্লাস্টার করতে দেবো না। ওরা থাকলে দেশ বরবাদ হয়ে যাবে। এমনকি নিজেদের মন্ত্রী অফিসারদেরও ফোন ট্যাপ  করে নিয়েছে। এমনকি বহু বিচারপতির ফোন ও ট্যাপ হয়েছে।  ওরা আমাদের গণতান্ত্রিক স্তম্ভটাকেই ধ্বংস করতে চাইছে। নির্বাচনী ব্যবস্থা বিচার ব্যবস্থা সংবাদ মাধ্যম সব কিছু ধ্বংস করতে চাইছে।"

    মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্পষ্ট দ্ব্যার্থহীন মত, দেশে গোয়েন্দাগিরি চলছে। কথায় কথায়স তুলে আনলেন রবীন্দ্রনাথের পঙক্তি- কন্ঠ আমার রুদ্ধ আজিকে বাঁশি সংগীতহারা। মমতা সরাসরি নরেন্দ্র মোদির নাম নিয়ে এদিন আরও বলেন, আপনি এজেন্সি দিয়ে বিরোধীদের ডিসটার্ব করেন। আপনি কখনও শলা পরামর্শ করেন না। বাংলার জনতা আপনাকে সুযোগ দিল না।

    বুঝতে অসুবিধে হওয়ার কথা নয়, মোদি সরকারকে অপশক্তি চিহ্নিত করে তার বিকল্প জোট গড়ে তোলারই ডাক দিচ্ছেন মমতা। এবং সেই জোটের অনুপ্রেরণা হবে বাংলার নির্বাচন এমনটাই ইঙ্গিত তাঁর। এদিন কথায় কথায় ফ্রন্টের কথা বললেও তিনি। মমতার মত, "সব দল একসাথে কাজ করতে হবে। একটা ফ্রন্ট তৈরি করুন। আমি দিল্লি যাচ্ছি। আমি সব গুরুত্বপূর্ণ বিরোধী নেতাদের সাথে দেখা করুন। একটা বৈঠক ডাকুন। "

    Published by:Arka Deb
    First published: