নাগালের বাইরে অমিত শাহ তাই কালো বেলুন উড়িয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি বামেদের

নাগালের বাইরে অমিত শাহ তাই কালো বেলুন উড়িয়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি বামেদের

বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে এক নম্বর গেট দিয়ে তাঁর কনভয় রওনা হয়ে যান গন্তব্যের উদ্দেশ্যে। তখন সেখান থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দূরে চলল তাঁকে ঘিরে বামেদের বিক্ষোভ কর্মসূচি।

  • Share this:

#কলকাতা: কর্মসূচি অমিত শাহকে কালো পতাকা দেখানো। কিন্তু কোথায় কী ! আকাশে ওড়ানো কালো বেলুন যদি চোখে পরে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর, সেই ভরসায় কর্মসূচি পালন করল বিরোধীরা। অমিত শাহের একদিনের কলকাতা সফরকে ঘিরে শহর জুড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি গ্রহণ করেছিল বাম এবং কংগ্রেস। সিপিএমের তরফ থেকে এন্টালি বাজার, শ্যামবাজার, কলেজস্ট্রিট বাটা, ফুলবাগান, গড়িয়াহাট, যাদবপুর 8b  বেহালা চৌরাস্তা, খিদিরপুর মোড় এবং বিচলিঘটে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করার কথা। অপরদিকে বাম ছাত্র সংগঠন গুলোর পক্ষ থেকেও পার্ক সার্কাসে একটি শপিং মলের সামনে এবং এয়ারপোর্টের এক নম্বর গেটের সামনে বিক্ষোভ কর্মসূচি নেওয়া হয়েছিল। পাশাপাশি কংগ্রেসের তরফ থেকেও একাধিক বিক্ষোভ কর্মসূচি এদিন গ্রহণ করা হয়েছিল। এয়ারপোর্টের এক নম্বর গেটে যে কর্মসূচি নেওয়া হয়েছিল সেটি ছিল

এদিনের অমিত শাহকে ঘিরে প্রথম বিক্ষোভ কর্মসূচি। কথা ছিল বাম ছাত্র যুব এবং মহিলা সংগঠনের কর্মী সমর্থকরা অমিত শাহ বিমান বন্দর থেকে বেরোনোর সময় কালো পতাকা দেখাবেন। কিন্তুু কোথায় কী ? সময় মত তারা জমায়েত হয়েছিলেন যশোর রোড এবং ভিআইপি রোডের সংযোগ স্থলে। কিন্তু সেখান থেকে আর এক নম্বর গেটের দিকে এগোতে পারল না মিছিল। শ'খানেক কর্মী সমর্থকদের সেখানেই আটকে দিল বিধান নগর কমিশনারেটের পুলিশ। তাই সেখানেই বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করল তারা। কালো পতাকা, কালো বেলুন, অমিত শাহ গো ব্যাক লেখা ব্যানার পোস্টার নিয়ে চললো তাদের বিক্ষোভ কর্মসূচি।

নির্ধারিত সময় পৌনে এগারোটা নাগাদ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিমান এসে পৌঁছায় কলকাতায়। বিমানবন্দর থেকে বেরিয়ে এক নম্বর গেট দিয়ে তাঁর কনভয় রওনা হয়ে যান গন্তব্যের উদ্দেশ্যে। তখন সেখান থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দূরে চলল তাঁকে ঘিরে বামেদের বিক্ষোভ কর্মসূচি। অথচ অমিত শাহ তার কিছুই টের পেলেন না। কালো পতাকা, তাঁর নামে গো ব্যাক লেখা ব্যানার পোস্টার কিছুই চোখে পড়লো না।

অগত্যা কী আর করা যাবে। কাল বেলুনগুলো আকাশে উড়িয়ে দিলেন হতাশ বাম কর্মী সমর্থকরা। যদি কোনও ভাবে এগুলো চোখে পড়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর।

First published: March 1, 2020, 11:58 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर