corona virus btn
corona virus btn
Loading

লকডাউনে ফোনে অর্ডার নিয়ে মদ বিক্রি ! কলকাতায় গ্রেফতার বেআইনি মদ বিক্রেতা !

লকডাউনে ফোনে অর্ডার নিয়ে মদ বিক্রি ! কলকাতায় গ্রেফতার বেআইনি মদ বিক্রেতা !
photo source collected

বুধবার ক্রেতা সেজে তিলজলা এলাকা থেকে ওই মদ ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে তিলজলা থানার পুলিশ।

  • Share this:

#কলকাতা: লকডাউনে খাদ্যের যোগানে কোন সমস্যা না থাকায় সাধারণ মানুষের কোনও ভোগান্তিই হয়নি। তবে লকডাউনে মদের দোকান বন্ধ থাকায় নাভিশ্বাস উঠেছে মদ্যপায়ীদের। আর সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে বেআইনিভাবে মদ বিক্রি করতে গিয়ে হাতেনাতে গ্রেফতার এক বিক্রেতা। বুধবার ক্রেতা সেজে তিলজলা এলাকা থেকে ওই মদ ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করে তিলজলা থানার পুলিশ। ধৃতের থেকে প্রচুর বিদেশি মদ বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। ধৃত ওই যুবকের নাম করণ হেলা। তিলজলা এলাকাতেই তার বাড়ি। বৃহস্পতিবার ধৃতকে আদালতে তোলা হবে।

লকডাউনে মদের দোকান পুরোপুরি বন্ধ হতেই বিভিন্ন জায়গায় মদের কালোবাজারি চলছে বলে অভিযোগ। বোতল প্রতি দ্বিগুণ-তিনগুণ দাম বাড়িয়ে বিক্রি হচ্ছে বিদেশি মদ। মদ না পাওয়ায় নাভিশ্বাস ওঠা মদ্যপায়ীরা সেই বেশি দামেই কিনছিলেন বিদেশি মদ। সেই অভিযোগে এসে পৌঁছেছিল তিলজলা থানার পুলিশের কাছে। খবর পেয়ে তিলজলা থানার কয়েকজন অফিসার ক্রেতা সেজে করণ হেলাকে ফোন করে। মদ কিনতে চায়। তারপর বুধবার সেই মদ ডেলিভারি করতে এলে হাতেনাতে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তারপর তার বাড়িতে হানা দিয়ে উদ্ধার প্রচুর বিদেশি মদের বোতল। কোথা থেকে এত পরিমান মদ স্টক করল তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে খবর, লকডাউনে মদের দোকান বন্ধ হওয়ার আগেই প্রচুর পরিমাণে বিদেশি মদ নিজের বাড়িতে মজুত করেছিল। তারপর মদের দোকান পুরোপুরি বন্ধ হতেই তার 'নেটওয়ার্কে' ছড়িয়ে দিয়েছিল যে কোনও ধরনের মদ মিলবে তার কাছে। তবে তার জন্য মোটা টাকা খরচ করতে হবে। এই খবর বিভিন্ন জায়গায় ছড়িয়ে পড়তেই ক্রেতারা ফেসবুক, হোয়াটসঅ্যাপে ও ফোনে যোগাযোগ করে করণের সঙ্গে এবং ফোনেই মদের অর্ডার নিতে থাকে করণ। তবে যাতে পুলিশ তার খোঁজ না পায় সেজন্য কখনই নির্দিষ্ট একটি জায়গা থেকে সে মদ বিক্রি করত না। নিজের বাড়ি থেকেও কোন গ্রাহককে মদ দিত না। জায়গা পাল্টে বিভিন্ন জায়গায় ডেলিভারি করত মদ। সেরকমই পুলিশ যখন তাকে ক্রেতা সেজে ফোন করে মদের অর্ডার দেয়, তখন তিলজলার চৌভাগা রোডে মদ ডেলিভারি করতে এসেছিল করন। তখনই তাকে হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়। এবং তারপর তাকে নিয়েই তার বাড়িতে হানা দেয় পুলিশ সেখান থেকে বিভিন্ন ব্র্যান্ডের মোট কুড়ি লিটার মদ বাজেয়াপ্ত হয়। পুলিশকে ধৃত যুবক জানিয়েছে প্রায় ১০০ লিটার মদ সে স্টক করে রেখেছিল। তার এই বেআইনি মদ বিক্রি চক্রে আর কেউ জড়িত কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

সুজয় পাল

Published by: Piya Banerjee
First published: April 1, 2020, 11:16 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर