রাজ্যের পরিস্থিতি জানতে এ বার মুখ্যমন্ত্রীকেই রাজভবনে আমন্ত্রণ জানিয়ে ফেললেন রাজ্যপাল

রাজ্যের পরিস্থিতি জানতে এ বার মুখ্যমন্ত্রীকেই রাজভবনে আমন্ত্রণ জানিয়ে ফেললেন রাজ্যপাল
রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়

রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে রবিবারও রাজ্য সরকারকে খোঁচা দিয়েছেন রাজ্যপাল৷

  • Share this:

#কলকাতা: সংশোধনী নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে বিক্ষোভে অশান্ত রাজ্য৷ বহু বাস, ট্রেন পুড়িয়ে দিয়েছে বিক্ষোভকারীরা৷ ভাঙচুর করা হয়েছে একাধিক স্টেশন৷ এ হেন পরিস্থিতিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ব্যক্তিগত ভাবে রাজভবনে এসে পরিস্থিতির আপডেট দিতে বলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷

সোমবার ট্যুইটারে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় লেখেন, 'এই চরম খারাপ পরিস্থিতিতে আমি মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বলছি, রাজভবনে নিজে এসে আমাকে পরিস্থিতির আপডেট দিন৷ আগামিকাল যখন তাঁর সময় হবে৷ মুখ্যসচিব, ডিজিপি-র কাছে থেকে এখনও কোনও সাড়া পাইনি৷ এটা দুর্ভাগ্যজনক৷ ওঁদের থেকে এটা আশা করা যায় না৷'  

রাজ্যের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে রবিবারও রাজ্য সরকারকে খোঁচা দিয়েছেন রাজ্যপাল৷ রবিবার তিনি বলেন, 'যারা হিংসা ছড়াচ্ছে, তাদের চিহ্নিত করে ব্যবস্থা নিক রাজ্য সরকার৷ সিএবি এখন আইনে পরিণত হয়েছে৷ আইন সকলের মেনে চলা উচিত৷'

নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে আজও রাজ্য উত্তপ্ত৷ সপ্তাহের প্রথম দিনেই ভোগান্তি হয়েছে রেলযাত্রীদের। রবিবারের মতোই সোমবারেও শিয়ালদহ দক্ষিণ ট্রেন চলাচলে সমস্যা শুরু হয় সকালেই। লক্ষীকান্তপুরে ওভারহেডের তারে কলাপাতা ফেলে অবরোধ করেন বিক্ষোভকারীরা।

প্রায় দু’ঘণ্টা অবরোধ চলার পরে ওঠে অবরোধ। পাশাপাশি রবিবার আক্রা স্টেশনে ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের জেরে, সোমবার সকালে শিয়ালদহ-বজবজ শাখায় সমস্ত ট্রেন বাতিল করা হয়। ট্রেন বাতিলের ঘোষণা করা হয় বিভিন্ন স্টেশনে।

ট্রেন বাতিলের ঘোষণায় বিপাকে পড়েন যাত্রীরা। ধপধপি স্টেশনে আধঘণ্টা ধরে ট্রেন অবরোধ চলে। গোচরণ-দক্ষিণ বারাসতেও ২ বার অবরোধ হয়। অবরোধের জেরে বাতিল করা হয় একটি ট্রেন।

প্রতিবাদের টার্গেট রেল। বিভিন্ন জায়গায় রেল স্টেশনে ভাঙচুর-বিক্ষোভ। লক্ষ্মীকান্তপুরে ওভারহেডের তারে কলাপাতা ফেলে অবরোধ করায় সপ্তাহের প্রথম দিনেই ভোগান্তি। শিয়ালদহ দক্ষিণে ট্রেন চলাচলে সমস্যা। বজবজগামী কোনও ট্রেন ছাড়ছে না। বিপাকে পড়েছেন যাত্রীরা।

First published: December 16, 2019, 5:54 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर