• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • হুগলিতে জোড়া শ্যুটআউট, ক্লাব থেকে ডেকে গুলি করে খুন

হুগলিতে জোড়া শ্যুটআউট, ক্লাব থেকে ডেকে গুলি করে খুন

মাত্র পাঁচ ঘন্টার ব্যবধানে হুগলির শ্রীরামপুর থানা এলাকায় জোড়া শ্যুটআউট।

মাত্র পাঁচ ঘন্টার ব্যবধানে হুগলির শ্রীরামপুর থানা এলাকায় জোড়া শ্যুটআউট।

মাত্র পাঁচ ঘন্টার ব্যবধানে হুগলির শ্রীরামপুর থানা এলাকায় জোড়া শ্যুটআউট।

  • Share this:

    #হুগলি: মাত্র পাঁচ ঘন্টার ব্যবধানে হুগলির শ্রীরামপুর থানা এলাকায় জোড়া শ্যুটআউট। শ্রীরামপুরে ক্লাবের সামনে যুবককে গুলি করে খুন করল দুষ্কৃতীরা। দুষ্কৃতীতের সন্ধান মেলেনি। অন্যদিকে বৈদ্যবাটিতে শ্মশান থেকে ফেরার পথে গুলিবিদ্ধ সুদান পাত্র নামে এক ব্যক্তি। গ্রেফতার ১জন , এখনও অধরা ৪।

    শনিবার রাত ১০টা। শ্রীরামপুরের বিবিরবেড়ে এলাকায় অগ্রদূত ক্লাবে কখনও ছেলেদের ভিড়। বাইকে করে ৩ জন এসে দাঁড়ায় ক্লাবের বাইরে। মন্টু নামে ডাক দিতেই বেড়িয়ে আসে এক যুবক। পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে মাথায় গুলি করা হয়। স্থানীয় বাসিন্দারা বেড়িয়ে এলে বোমা মেরে পালায়। দুষ্কৃতীরা। স্থানীয়দের দাবি। তাঁদের মুখ কালো কাপড়ে ঢাকা ছিল। আশঙ্কাজনক মন্টু ঘোষকে শ্রীরামপুর ওয়াল্স হাসপাতালে নিয়ে গেলে, চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। বছর একুশের মন্টু ওরফে অতনু ঘোষ এলাকায় দর্জির কাজ করতেন। এলাকায় নির্বিবাদী বলে পরিচিত অতনু কেন খুন হলেন জানতে তদন্তে নেমেছে পুলিশ।

    পরের ঘটনা ভোর তিনটেয়। বাইকে শ্মশান থেকে ফেরার সময় গুলিবিদ্ধ হলেন সুদান পাত্র। এলাকায় জমি বাড়ির দালালি করতেন সুদান। কে সি চ্যাটার্জি স্ট্রিট ধরে ফেরার সময় সামনে থেকে আসা বাইক আরোহীরা গুলি করে তাঁকে। কোনও মনে পালিয়ে বাঁচেন তিনি।

    জখম অবস্থায় ষাটোর্ধ্ব সুদান পাত্রকে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। জেলা জুড়ে একের পর এক গুলি চালনার ঘটনায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। পুরনো বিবাদের জেরে খুন কিনা খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

    First published: