• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • লকডাউনে অমিল ব্রেড ! বাড়ির দরজায় ব্রেড পৌঁছাতে অভিনব উদ্যোগ ! রইল বিস্তারিত         

লকডাউনে অমিল ব্রেড ! বাড়ির দরজায় ব্রেড পৌঁছাতে অভিনব উদ্যোগ ! রইল বিস্তারিত         

সামাজিক দূরত্ব মেনে টাটকা  রুটি পৌঁছে যাবে আপনার বাড়িতেই।

সামাজিক দূরত্ব মেনে টাটকা রুটি পৌঁছে যাবে আপনার বাড়িতেই।

সামাজিক দূরত্ব মেনে টাটকা রুটি পৌঁছে যাবে আপনার বাড়িতেই।

  • Share this:

#কলকাতা: লকডাউনে ব্রেড পাচ্ছেন না? শুধু একটা ফোন। ব্যস! তাহলেই হবে।  এরপর বাড়ির নিচে অপেক্ষা করুণ। সামাজিক দূরত্ব মেনে টাটকা  রুটি পৌঁছে যাবে আপনার বাড়িতেই। বাঙালি'র খাদ্য অভ্যাসে সকাল শুরু হয় ব্রেডে'র সঙ্গে । ব্রাউন,  মিল্ক,  ফ্রুট একাধিক ব্রেড এর মধ্যে দিয়ে।    করোনা বাঙালি'র সেই অভ্যেসে পূর্ণচ্ছেদ টেনে দিয়েছে। ২২ মার্চ জনতা কার্ফু থেকেই একটু একটু করে ডাইনিং টেবিলের ব্রেকফাস্ট তালিকা থেকে ফিকে হতে থাকে শেষ মেস এপ্রিলের শুরুতে কার্যত উধাও।  লকডাউনের বাজারে ব্রেড ও বাটার অমিল হওয়ায় চিন্তার ভাঁজ হেঁসেলে। নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস ব্রেড না হলেও বাস্তব পরিস্থিতি বিবেচনা করে  কিছুদিন আগেই রাজ্য সিদ্ধান্ত নেয় বেকারি গুলোকে লক ডাউনের আওতার বাইরে নিয়ে আসার। তবে শর্ত জুড়ে দেয় কিছু রাজ্য। সামাজিক দূরত্ব মানা, কর্মীসংখ্যা এক-চতুর্থাংশ করার মতন শর্ত মানলে বেকারি চলবে বলে জানায় নবান্ন।

সমস্ত সাবধানতা অবলম্বন করে বাঙালির সকালের ব্রেড পৌঁছে দিতে অভিনব উদ্যোগ শহরের নামকরা বেকারি সংস্থার। সোশ্যাল সাইটে ব্রেডের আবেদন গ্রহণ করছে  সংস্থাটি। ডোর টু স্টেপ পদ্ধতিতে এলাকাভিত্তিক ব্রেড এর চাহিদা অনুযায়ী বাড়ির দোরগোড়ায় পৌঁছে যাচ্ছে বিভিন্ন ব্রেড,  কুকিস, কেক। দক্ষিণ কলকাতা, উত্তর কলকাতা সর্বত্র পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে রুটি। সামাজিক দূরত্ব মেনে আবাসিক লাইন দিয়ে নিচ্ছেন ব্রেড। বেকারি গুলোতে এখন চরম ব্যস্ততা। ২২ মার্চ থেকেই কার্যত লকডাউন পরিস্থিতিতে আমাদের রাজ্য। রুটি দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করে  রাখা যায় না। লকডাউন এর দ্বিতীয় পর্যায় শুরু হওয়ার আগেই বাজারে সেভাবে স্বাভাবিক নয় ব্রেড। বাজারে চাহিদা রয়েছে প্রচুর সেই তুলনায় জোগান অনেক কম। টাকা দিলেও মিলছে না রুটি।এই পরিস্থিতিতে কম কর্মী নিয়ে চাহিদা মেটাতে কালঘাম ছুটেছে বেকারি গুলির। কলকাতার নামজাদা বেকারি'র কর্ণধার প্রসেনজিৎ সাহা জানাচ্ছেন, " ব্রেড আমরা তৈরি করতাম না। লকডাউন পরিস্থিতিতে তা তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছি। শহরের ২৩৪ কমপ্লেক্সে পৌঁছে দিচ্ছি ব্রেড। ৭৬৮৭০০৯২২৩ নাম্বারে ফোন করে অর্ডার দিলেই নির্দিষ্ট ঠিকানায় ব্রেড পৌঁছে যাবে। লাভের আশা ছেড়ে আপাতত গৃহবন্দী মানুষের পাশে থাকতেই এমন সিদ্ধান্ত।"লকডাউনে আবাসনের দরজায় ব্রেড ও বাটা পেয়ে খুশি শহরবাসী। করোনা যুদ্ধে বেকারির সঙ্গে যুক্তরাও এক একজন করোনা হিরো।

ARNAB HAZRA 

Published by:Piya Banerjee
First published: