Home /News /kolkata /

ফের পিছিয়ে যাচ্ছে উচ্চপ্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ

ফের পিছিয়ে যাচ্ছে উচ্চপ্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ

উচ্চপ্রাথমিকে প্রায় ১৪ হাজার শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য ২০১৬ সালে বিজ্ঞপ্তি জারি হয় ৷ ২০১৭ সালের ৪ জুন, স্কুল সার্ভিস কমিশনের পরিচালনায় হয় প্রথম স্টেট লেভেল সিলেকশন টেস্ট ৷ পরীক্ষায় বসেছিলেন প্রায় ৫ লক্ষ ৪০ হাজার পরীক্ষার্থী ৷Representational Image

উচ্চপ্রাথমিকে প্রায় ১৪ হাজার শিক্ষক পদে নিয়োগের জন্য ২০১৬ সালে বিজ্ঞপ্তি জারি হয় ৷ ২০১৭ সালের ৪ জুন, স্কুল সার্ভিস কমিশনের পরিচালনায় হয় প্রথম স্টেট লেভেল সিলেকশন টেস্ট ৷ পরীক্ষায় বসেছিলেন প্রায় ৫ লক্ষ ৪০ হাজার পরীক্ষার্থী ৷Representational Image

ফের পিছিয়ে যাচ্ছে উচ্চপ্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ

  • Share this:

    #কলকাতা: উচ্চপ্রাথমিক চাকরিপ্রার্থীদের জন্য ফের খারাপ খবর ৷ ফের বেশ কিছু সময়ের জন্য পিছিয়ে যাচ্ছে উচ্চপ্রাথমিকের নিয়োগ ৷ স্কুল সার্ভিস কমিশন সূত্রে খবর, ভোটের আগে শুরু হচ্ছে না উচ্চপ্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগ ৷

    নির্বাচনের আগেই নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে চেয়ে এদিন রাজ্য নির্বাচন কমিশনের কাছে অনুমতির জন্য চিঠি পাঠায় স্কুল সার্ভিস কমিশন ৷ সেই আবেদন খারিজ করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন ৷ আপাতত ভোট প্রক্রিয়া শেষের আগে হচ্ছে না উচ্চপ্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ ৷

    দীর্ঘ প্রতীক্ষার শেষে সোমবার উচ্চপ্রাথমিকে শিক্ষক নিয়োগে অনুমতি দেয় হাইকোর্ট ৷ ১৪ হাজার শিক্ষকের প্যানেল তৈরি করা হয়েছে ৷ যার মধ্যে ১২ হাজার ৬০০ জনকে নিয়োগ করা যাবে ৷ বাকি ১০ শতাংশ মামলাকারীদের জন্য পদ সংরক্ষিত রাখা হবে ৷

    পঞ্চাম থেকে অষ্টম শ্রেণির জন্য এই সব শিক্ষক পদে টেট উত্তীর্ণ প্রশিক্ষণপ্রাপ্তদের পাশাপাশি প্রশিক্ষণহীনরাও সুযোগ পাবেন। তবে, শূন্যপদের চেয়ে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত প্রার্থীদের সংখ‍্যা বেশি হলে, প্রশিক্ষহীনদের আর ইন্টারভিউয়ে ডাকা হবে না।

    আরও পড়ুন 

    প্রবীণ নাগরিকদের জন্য সুখবর, মাসে ১০ হাজার টাকা করে পেনশন দেবে কেন্দ্র

    ২০১৬ সালে উচ্চপ্রাথমিকে নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি দেয় স্কুল সার্ভিস কমিশন ৷ সেই বিজ্ঞপ্তিতে, ১০ শতাংশ আসন প‍্যারা টিচারদের জন্য সংরক্ষণের কথা বলা হয় কিন্তু, শিক্ষামিত্র ও শিক্ষাবন্ধুরা কেন এই সংরক্ষণের আওতার বাইরে থাকবে, এই প্রশ্ন তুলে একধিক মামলা হয় কলকাতা হাইকোর্টে। যার প্রেক্ষিতে, ২০১৬ সালের ১৫ ডিসেম্বর, তৎকালীন বিচারপতি রাজীব শর্মার সিঙ্গল বেঞ্চ নিয়োগ প্রক্রিয়ার উপর অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ জারি করে ৷ যা প্রত‍্যাহারের জন্য পুজোর ছুটির আগে আর্জি জানায় রাজ‍্য সরকার ৷ কিন্তু, এরই মধ‍্যে কলকাতা হাইকোর্টে আইনজীবীদের কর্মবিরতি চলে টানা ৬৯ দিন।

    কর্মবিরতি শেষে সোমবার ফের শুনানি হয়। ২০১৬ সালের অন্তর্বর্তী স্থগিতাদেশ বদলে বিচারপতি তপোব্রত চক্রবর্তী এ দিন নির্দেশ দেন, ১০ শতাংশ আসনে সংরক্ষণের প্রশ্নে যে মামলা চলছে তা চলুক। কিন্তু, বাকি ৯০ শতাংশ আসনে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু করতে পারে স্কুল সার্ভিস কমিশন। কোর্টের সেই নির্দেশের পরই নিয়োগে উদ্যোগী হয়ে নির্বাচনের আগেই শিক্ষক নিয়োগ করতে চেয়ে রাজ্য নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেয় কমিশন ৷ তারপরেই এমন পরিস্থিতি ৷ ফলে উচ্চপ্রাথমিকের চাকরিপ্রার্থীদের নিয়োগের সুখবরের জন্য আরও কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে ৷

    First published:

    Tags: Higher Primary Teachers Recruitment, Panchayat Election, Teachers, Teachers Appointment, Teachers Recruitment

    পরবর্তী খবর