প্রশ্নপত্রে ভুল, পরীক্ষার্থীদের অতিরিক্ত নম্বর দেওয়ার নির্দেশ না মেনে বিপাকে পর্ষদ

photo: Primary Teacher

পর্ষদ যে বিপাকে পড়তে চলেছে, মঙ্গলবারই তার ইঙ্গিত মিলেছিল।

  • Share this:

    #কলকাতা: প্রাথমিক টেটের প্রশ্ন ভুল মামলায় হাইকোর্টের রোষে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। আদালতের নির্দেশ না মানার অভিযোগে প্রাথমিক শিক্ষা সচিবকে সশীরের হাজিরার নির্দেশ দিল হাইকোর্ট। উনিশে সেপ্টেম্বর সচিবকে তলবের রুল জারি করলেন বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়।

    ২০১৫ সালে প্রাইমারি টিচার্স এলিজিবিলিটি টেস্টের প্রশ্নপত্রে ভুল। ভুল ছিল বাংলার পাঁচটি ও সাইকোলজির একটি প্রশ্ন। ৩ অক্টোবর, ২০১৮ ছ’টি ভুল প্রশ্নের জন্য পরীক্ষার্থীদের ছ’নম্বর দিতে নির্দেশ দিয়েছিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়। তিন মাসের মধ্যে তা কার্যকরের নির্দেশ দিয়েছিলেন। এরপর দশ মাসেরও বেশি সময় কেটে গিয়েছে। মাঝে হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ ও সুপ্রিম কোর্টেও ঘুরেছে মামলা। কিন্তু কোথাওই প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের পক্ষে রায় যায়নি। উলটে আইনি দীর্ঘসূত্রিতা সত্বেও আদালতের নির্দেশ ঝুলিয়ে রেখেছিল পর্ষদ। এরজেরেই বুধবার পর্ষদের ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করলেন বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়। শুধু ক্ষোভপ্রকাশই নয়, প্রাথমিক শিক্ষা সচিব রত্না বাগচী চক্রবর্তীকে সশরীরে হাজিরার রুল জারি করলেন। - তেসরা অক্টোবর ২০১৮ -র নির্দেশ এখনও কার্যকর হয়নি কেন? - প্রাথমিক শিক্ষা সচিবের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ হাইকোর্ট - নির্দেশ না মানায় রুল জারি হাইকোর্টের - ১৯ সেপ্টেম্বর সশরীরে তলব প্রাথমিক শিক্ষা সচিবকে - রুল জারি বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়ের পর্ষদ যে বিপাকে পড়তে চলেছে, মঙ্গলবারই তার ইঙ্গিত মিলেছিল। কারণ পরীক্ষার্থীদের অতিরিক্ত নম্বর দেওয়ার সিঙ্গল বেঞ্চের নির্দেশে, স্থগিতাদেশ দেয়নি ডিভিশন বেঞ্চ। তার চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে প্রাথমিক শিক্ষা সচিবের বিরুদ্ধে ‘রুল’ জারি হাইকোর্টের।

    First published: