• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • HIGH COURT SAID DEARNESS ALLOWANCE SHOULD BE GIVEN IN TIME ON STATE GOVERNMENT EMPLOYEES PENDING DA CASE

‘২০১৮-র DA ২০২৮-এ দেওয়া যায় না’, ডিএ মামলায় মন্তব্য হাইকোর্টের

File Photo

‘২০১৮-র DA ২০২৮-এ দেওয়া যায় না’, ডিএ মামলায় মন্তব্য হাইকোর্টের

  • Share this:

     #কলকাতা: বেশ কয়েক বছর ধরে বকেয়া রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের DA ৷ সেই বকেয়া মহার্ঘ ভাতা পেতে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন সরকারি কর্মচারীরা ৷ সেই মামলাতেই এমন তাৎপর্যপূ‍র্ণ মন্তব্য বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্তের ৷

    মঙ্গলবার হাইকোর্টে বকেয়া মহার্ঘ ভাতা মামলা নিয়ে বেকায়দায় রাজ্য ৷ এদিন আদালতে রাজ্যের উদ্দেশ্যে বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্ত বলেন, ‘সময়ে ডিএ না দিলে তা উদ্দেশ্য হারায় ৷ ডিএ দেওয়া উচিত যুক্তিগ্রাহ্য সময়ে ৷ ২০১৮-র ডিএ নিশ্চয়ই ২০২৮-এ দেওয়া যায় না ৷’

    একইসঙ্গে রাজ্যের পঞ্চম বেতন কমিশনের তথ্য চায় হাইকোর্ট ৷ এছাড়া বেশ কিছু প্রশ্ন এদিন রাজ্য সরকারের সামনে রেখেছে বিচারপতি দেবাশিস করগুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ ৷

    - সরকার কী ভাবে ডিএ নির্ধারণ করে, তার গোটা বিষয়টা আদালতকে বিস্তারিতভাবে জানানো হোক - এর আগে কত শতাংশ হারে ডিএ দেওয়া হয়েছে? -ডিএ বছরে একবার দেওয়া হয় না দুবার? -ডিএ ঘোষণা এবং প্রাপ্তির মধ্যে সময়ের ফারাক কত? -কেন্দ্রের সঙ্গে রাজ্যের ডিএ পার্থক্য কত?

    একইসঙ্গে শেষ ৯ বছরের ডিএ-এর হিসেব চেয়েছে হাইকোর্ট ৷ আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে এই প্রশ্নগুলির উত্তর রাজ্যকে কোর্টে জানাতে হবে ৷ এদিন আদালতে আইনজীবী তথা সিপিএম নেতা বিকাশরঞ্জন ভট্টাচার্য বলেন, বছরে দুবার পর্যন্ত ডিএ পাওয়া সরকারী কর্মচারীদের অধিকার ৷

    এর আগে গত ৭ সেপ্টেম্বর তৃণমূল সরকারি কর্মী সংগঠনের সমাবেশে এসে ডিএ নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ তিনি বলেন, ২০১৮ সালের পয়লা জানুয়ারিতে ১৫ শতাংশ হারে ডিএ বা মহার্ঘ ভাতা দেওয়া হবে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের ৷

    এরপর আদালতে রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল জানান, আর কোনও বকেয়া ডিএ নেই ৷ এই দাবির তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে রাজ্য সরকারি কর্মচারী সংগঠনের আইনজীবী দাবি করেছিলেন, এখনও ডিএ-সহ আরও অনেক সুযোগ সুবিধা বকেয়া রয়েছে ৷ সেই দাবির পরিপ্রেক্ষিতেই বকেয়া ডিএ মামলায় মূলত এই প্রশ্নগুলির উত্তর চায় আদালত ৷

    First published: