Home /News /kolkata /
Cossipore BJP Worker Death: কেন্দ্রীয় হাসপাতালে ময়নাতদন্ত, পরিবারকে নিরাপত্তা, কাশীপুরের ঘটনা নিয়ে আদালত যা বলল

Cossipore BJP Worker Death: কেন্দ্রীয় হাসপাতালে ময়নাতদন্ত, পরিবারকে নিরাপত্তা, কাশীপুরের ঘটনা নিয়ে আদালত যা বলল

Cossipore BJP Worker Death: আরজিকর হাসপাতাল থেকে আলিপুর কম্য়ান্ড হাসপাতালে দেহ নিয়ে যাওয়ার সময় যাতে কোনও রকম বিশৃঙ্খলা না হয় তার জন্য সুনির্দিষ্ট নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে।

  • Share this:

#কলকাতা:  আলিপুর কম্য়ান্ড হাসপাতালে কাশীপুরে বিজেপি কর্মীর ময়নাতদন্ত করার নির্দেশ দিল হাইকোর্ট। পরিবারের আর্জি মেনে নিয়ে কেন্দ্রীয় হাসপাতাল আলিপুরের কম্য়ান্ড হাসপাতালে  বিজেপি কর্মী অর্জুন চৌরাসিয়ার ময়নাতদন্তের নির্দেশ কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব এবং বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজ  ডিভিশন বেঞ্চের। ময়নাতদন্ত হবে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে। পুরো ময়নাতদন্তের ভিডিওগ্রাফি করতে হবে এবং একই সঙ্গে ময়না তদন্তের সময় উপস্থিত থাকতে পারবেন এইমসের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা। উপস্থিত থাকতে পারবেন আরজিকর হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের বিভাগীয় প্রধান-সহ অন্যান্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

আরও পড়ুন: বিজেপি কর্মীর রহস্যমৃত্যু, কলকাতায় নেমেই অর্জুন চৌরাসিয়ার বাড়ি যাচ্ছেন অমিত শাহ

আরজিকর হাসপাতাল থেকে আলিপুর কম্য়ান্ড হাসপাতালে দেহ নিয়ে যাওয়ার সময় যাতে কোনও রকম বিশৃঙ্খলা না হয় তার জন্য সুনির্দিষ্ট নিরাপত্তার বন্দোবস্ত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে। ২৪ ঘন্টার মধ্যে ময়নাতদন্ত করা গেলে ভাল বলে ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।

নিজস্ব চিত্র নিজস্ব চিত্র

আদালতের তাই পর্যবেক্ষণ যত দ্রুত সম্ভব ময়নাতদন্ত সেরে ফেলার। মঙ্গলবার ফের মামলার শুনানি। মৃত বিজেপি কর্মীর পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তার' বন্দোবস্ত করবে কলকাতা পুলিশ। ছেলের ময়নাতদন্ত আর জি কর হাসপাতালে করাতে চায় না পরিবার। কেন্দ্রীয় হাসপাতাল অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সের বিশিষ্ট চিকিৎসকদের উপস্থিতি এবং সেন্ট্রাল ফরেনসিক সায়েন্স ল্যাবরেটরি বিশেষজ্ঞদের উপস্থিতিতে ময়নাতদন্ত চান পরিবারের সদস্যরা।

আরও পড়ুন: কাশিপুরে বিজেপি কর্মীর মৃত্যুর তদন্তভার সিবিআইকে দেওয়া উচিত, বললেন অমিত শাহ

দুপুর দুটোর সময় প্রধান বিচারপতির এক নম্বর এজলাসে পৌঁছে যান মৃতের মা এবং ভাই। তাদের তরফে আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা তিবরেওয়াল এবং আইনজীবী সুবীর সান্যাল আদালতের কাছে জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পর থেকেই খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না অর্জুনের। স্থানীয় থানায় অভিযোগ জানান এই মর্মে পরিবারের সদস্যরা৷ পুলিশ সেই সময় সক্রিয় হলে অর্জুনকে হয়ত প্রাণ হারাতে হতো না। আজ কাশীপুরে পরিত্যক্ত কোয়ার্টার থেকে ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়েছে। আর আজ লাঠিচার্জ করে এবং পুলিশ পরিবারের সদস্যদের আহত করে দেহ নিয়ে চলে গেছে ময়নাতদন্তের জন্য। রাজ্যের পুলিশ বা রাজ্যের সরকারি হাসপাতালের ময়না তদন্তের ওপর কোনো আস্থা নেই। পরিবারের আশঙ্কাকে প্রাথমিক মান্যতা দিয়ে ময়নাতদন্ত কেন্দ্রীয় হাসপাতাল কমান্ডে করার নির্দেশ হাইকোর্টের।

Arnab Hazra

Published by:Uddalak B
First published:

Tags: High Court

পরবর্তী খবর