স্কুল শিক্ষক নিয়োগে জটিলতা, ফল প্রকাশে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ল আরও ২ সপ্তাহ

স্কুল শিক্ষক নিয়োগে জটিলতা, ফল প্রকাশে নিষেধাজ্ঞার মেয়াদ বাড়ল আরও ২ সপ্তাহ

রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শীঘ্র সমাপ্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম ৷ আইনি জটিলতার ফাঁসে আবারও আটকে গেল শিক্ষক নিয়োগ ৷

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ্যে শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া শীঘ্র সমাপ্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম ৷ আইনি জটিলতার ফাঁসে আবারও আটকে গেল শিক্ষক নিয়োগ ৷ নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেনির শিক্ষক নিয়োগের পরীক্ষা সম্পূর্ণ। তবে এসএসির ফল প্রকাশ আপাতত করা যাবে না। এসএসসি-র ফলপ্রকাশে স্থগিতাদেশের মেয়াদ আরও দু’সপ্তাহ বাড়াল কলকাতা হাইকোর্ট ৷ বিচারপতি অরিজিত বন্দ্যোপাধ্যায় ফল প্রকাশ নিয়ে পরবর্তী নির্দেশ দেবেন।

মঙ্গলবার ‘স্পেশাল এডুকেশন’ মামলায় এমনই নির্দেশ দিলেন বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় ৷ এর ফলে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষক নিয়োগ আরও বিলম্বিত হবে ৷

রাজ্যে উচ্চ প্রাথমিক স্তরে যোগ্য শিক্ষকের অভাবে অচল হয়ে পড়ছে শিক্ষাব্যবস্থা ৷ দ্রুত শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে চায় রাজ্য সরকার ৷ কিন্তু বারবার আইনি প্রক্রিয়ায় বাধা প্রাপ্ত সেই উদ্যোগ ৷

কেন এই জটিলতা?

নবম,দশম এবং একাদশ, দ্বাদশ এই চার শ্রেণীর অর্থাৎ উচ্চ প্রাথমিকে শিক্ষক পদের যোগ্যতামান হিসেবে বিএড ডিগ্রি আবশ্যক ৷ এই ডিগ্রি ছাড়া নিয়োগ পরীক্ষায় অংশ নেওয়া যাবে না বলে জানিয়েছিল স্কুল সার্ভিস কমিশন ৷ এই নিয়মের বিরোধিতা করে কলকাতা হাইকোর্টে মামলা দায়ের করে আরসিআই ট্রেনিংপ্রাপ্ত সুনীল দাস সহ ১১৯ জন ৷ তাদের দাবি ছিল Rehabilitation Council Of India-এর ডিগ্রি বিএড-এর সমতুল্য ৷ NCTE-র মান্যতা নিয়ে শুরু হয় সওয়াল ৷

Loading...

সেই মামলা চলাকালীনই হাইকোর্ট NCTE-কে এই ১২০ জনকে পরীক্ষায় বসার সুযোগ দেওয়ার নির্দেশ দেন ৷ স্টেট লেবেল সিলেকশন টেস্ট (SLST) পরীক্ষা সম্পন্ন হলেও Rehabilitation Council Of India-এর ডিগ্রি বিএড-এর সমতুল্য কিনা এই প্রশ্নের সমাধান না হওয়া পর্যন্ত হাইকোর্টের নির্দেশ ছাড়া পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা যাবে না বলে আগেই জানিয়েছিল হাইকোর্ট ৷

শিক্ষক নিয়োগে স্থগিতাদেশ

- ফলপ্রকাশে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে হাইকোর্টে আরজি জানান সুনীল দাস সহ ১১৯ জন আবেদনকারী

- আবেদনকারীদের দাবি, তাঁদের প্রশিক্ষণের শংসাপত্র বিএড-এর সমতুল্য

- কিন্তু তাঁদের নবম-দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়ায় অন্তর্ভুক্ত করা হচ্ছে না

- সেই মামলার ভিত্তিতে ফলপ্রকাশ নিষেধাজ্ঞা জারি করে হাইকোর্ট

- আবেদনকারীদের আইনজীবী বলেন, মামলা বিচারাধীন থাকাকালীন ফলপ্রকাশ করা হলে ভবিষ্যতে সমস্যা বাড়তে পারে

স্কুল শিক্ষা দফতর সূত্রে খবর, নবম-দশম ও একাদশ-দ্বাদশে নিয়োগ শেষ না হওয়া পর্যন্ত আপার প্রাইমারির ইন্টারভিউও শুরু হবে না। কারণ, প্রশিক্ষণহীনদের জায়গা করে দিতেই পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেণিতে নিয়োগের ইন্টারভিউ আগে করতে চায় না রাজ্য। ফলে নবম-দশম ও একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণীর শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া বিলম্বিত হওয়ার ফলে আরও পিছিয়ে যেতে পারে উচ্চপ্রাথমিকের নিয়োগ ৷

First published: 03:30:20 PM Jan 31, 2017
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर