কলকাতা

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

হেমতাবাদের বিধায়কের মৃত্যু রহস্যভেদে সিবিআই তদন্তের আবেদন খারিজ হাইকোর্টে, ডিভিশন বেঞ্চে যাচ্ছে পরিবার

হেমতাবাদের বিধায়কের মৃত্যু রহস্যভেদে সিবিআই তদন্তের আবেদন খারিজ হাইকোর্টে, ডিভিশন বেঞ্চে যাচ্ছে পরিবার
Representative Image

সিঙ্গেল বেঞ্চের নির্দেশে অসন্তুষ্ট বিধায়কের পরিবার।ডিভিশন বেঞ্চে যাবে আইনি লড়াই, জানিয়েছেন পরিবারের আইনজীবী ব্রজেশ ঝা।

  • Share this:

#কলকাতা: হেমতাবাদের বিধায়ক দেবেন রায়ের রহস্য মৃত্যুতে সিআইডি তদন্তে আস্থা রাখল কলকাতা হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চ। রাজ্যের তদন্তকারী সংস্থার তদন্তের অগ্রগতিতে সন্তুষ্ট আদালত। এখনই তদন্তভার বদলের প্রয়োজনীয়তা নেই বলে সাফ জানিয়ে দেন বিচারপতি শিবকান্ত প্রসাদ।

সোমবার মামলার জরুরি শুনানি শুরু হয় দুপুর দু'টো নাগাদ। টানা ২ ঘন্টা চলে আইনি লড়াই। বিচারপতি শিবকান্ত প্রসাদের বেঞ্চে ভার্চুয়াল শুনানিতে রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল জানান, মৃতের কাছ থেকে আত্মহত্যার নোট উদ্ধার করে পুলিশ। ২ জনের নাম উল্লেখ করা হয়।ইতিমধ্যেই একজন গ্রেফতার। ১৩ জনের জবানবন্দি নিয়েছে সিআইডি।অভিযোগকারিণীর বয়ান নেওয়া হয়েছে। ২৪ ঘন্টার মধ্যে সিআইডিকে  তদন্তভার দেওয়া হয়েছে। ৭ দিনের সময়ে পুরো তদন্ত সম্পূর্ণ হয়ে যায় না।মামলাকারী তরফে আইনজীবী ফিরোজ ইদুলজি এবং ব্রজেশ ঝা আদালতকে জানান, ময়নাতদন্ত নতুন করে করার। পায়ের জুতো ছাড়া কোনও দিন বাড়ি থেকে বের হতেন না বিধায়ক। ঝুলন্ত অবস্থায় বিধায়কের পায়ে কোনও জুতো ছিল না। পকেটে চশমা একেবারে অবিন্যস্ত। এত কম উচ্চতায় আত্মহত্যা অনেক প্রশ্ন সামনে আনে। শরীরে কোনও বিধ্বস্ত হওয়ার লক্ষণ নেই। পুলিশ ও শাসক দলের নেতারা ময়নাতদন্তের আগেই সোশ্যাল সাইটে বলে দেন বিধায়ক 'সম্ভবত' আত্মহত্যা করে দিয়েছে।

উত্তর দিনাজপুরের হেমতাবাদের বিধায়ক দেবেন রায়ের মৃত্যু রহস্যভেদে শুক্রবার মামলা দায়ের হয় কলকাতা হাইকোর্টে। সিবিআই তদন্ত চেয়ে মামলা দায়ের করেন প্রয়াত বিধায়কের স্ত্রী চাঁদিমা রায়। ২০১৬ থেকে হেমতাবাদের বিধায়ক ছিলেন দেবেন রায়। সিপিআইএমের টিকিটে জিতে এলে পরে বিজেপিতে যোগ দেন। রাজ্যের এক বিধায়কের অস্বাভাবিক মৃত্যুর বিষয়টি অনুধাবন করেই জরুরি শুনানির নির্দেশ দেন প্রধান বিচারপতি। সোমবার সওয়াল জবাব শেষে বিচারপতি শিবকান্ত প্রসাদ নির্দেশে জানান, সিআইডি তদন্ত করবে বিধায়কের অস্বাভাবিক মৃত্যুর।সিআইডি'র অতিরিক্ত ডিরেক্টর জেনারেলের নজরদারিতে হবে তদন্ত।বিধায়কের ময়নাতদন্ত রিপোর্ট খতিয়ে দেখবে মেডিক্যাল বোর্ড। কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধানের নেতৃত্বে গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড বিধায়কের ময়নাতদন্তের দ্বিতীয় অপিনিয়ন দেবেন ১৪ দিনের মধ্যে। সিঙ্গেল বেঞ্চের নির্দেশে অসন্তুষ্ট বিধায়কের পরিবার।ডিভিশন বেঞ্চে যাবে আইনি লড়াই, জানিয়েছেন পরিবারের আইনজীবী ব্রজেশ ঝা।

Published by: Pooja Basu
First published: July 21, 2020, 12:31 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर