corona virus btn
corona virus btn
Loading

ক্রমাগত খুন ও ধর্ষণের হুমকি! পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে হাইকোর্টে মডেল হাসিন জাহান     

ক্রমাগত খুন ও ধর্ষণের  হুমকি! পরিবারের নিরাপত্তা চেয়ে হাইকোর্টে মডেল হাসিন জাহান     

হাসিন জাহান কেন এমন পোস্ট করবেন, এই প্রশ্ন তুলে তাঁকে খুন ও ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ।ক্রমাগত খুন ও ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হচ্ছে তাতে তিনি আতঙ্কিত। নিরাপত্তার অভাব বোধ করছেন।

  • Share this:

#কলকাতা: পরিবার ও মেয়ের নিরাপত্তা চেয়ে কলকাতা হাইকোর্টে পুলিশি নিষ্ক্রিয়তার মামলা দায়ের ক্রিকেটার মহঃ শামির স্ত্রী ও মডেল হাসিন জাহানের। বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের বেঞ্চে মামলা করে সাইবার অভিযোগের যথাযথ তদন্তের আবেদন করেছেন তিনি। বিতর্কের শুরু অযোধ্যায় ভূমিপুজো নিয়ে সোশ্যাল পোস্ট করা নিয়ে।

স্পিডস্টার শামি'র স্ত্রী হাসিন জাহান  পোস্ট করেন ফেসবুক, ট্যুইটার, ইনস্টাগ্রামে। সেখানে ৫ অগাস্ট অযোধ্যা ভূমি পুজোর শুভেচ্ছা জানিয়ে ওই পোস্ট করতেই তেলে-বেগুনে জ্বলে ওঠেন কিছু মানুষ। বিষয়টি তাতেই থেমে না থেকে আরও বাড়তে থাকে। হাসিন জাহান কেন এমন পোস্ট করবেন, এই প্রশ্ন তুলে তাঁকে খুন ও ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। ৫ অগাস্ট পেরিয়ে ৯ অগাস্ট, ক্রমশ বাড়তে থাকে হুমকির বহর। লালবাজারে অভিযোগ জানিয়ে আসেন হাসিন জাহান। কলকাতা পুলিশ কমিশনার এবং কলকাতা সাইবার ক্রাইম শাখায় আলাদা অভিযোগ জানান হাসিন। পুলিশের অভিযোগপত্রে হাসিন জাহান জানান, যেভাবে ক্রমাগত খুন ও ধর্ষণের  হুমকি দেওয়া হচ্ছে তাতে তিনি আতঙ্কিত। নিরাপত্তার অভাব বোধ করছেন। পুলিশের কাছে তিনি অভিযোগের মোবাইল স্ক্রিনশটও জমা দিয়েছিলেন।

হাইকোর্টে দায়ের হওয়া মামলা নিয়ে হাসিন জাহান জানান, "অযোধ্যার দীর্ঘ ইতিহাস। সেখানে প্রধানমন্ত্রী রামমন্দিরের ভূমিপুজো করেছেন। সমস্ত হিন্দু ভাই-বোনদের শুভেচ্ছা জানিয়ে পোস্ট করেছিলাম। নিজে মডেলিং ও অভিনয়ের সঙ্গে একটু আধটু যুক্ত। প্রচুর মানুষ আমার সোশ্যাল সাইটে আছেন।  কারা ধর্ষণের হুমকি দিল তাই পুলিশকে তদন্ত করে পদক্ষেপ গ্রহণের আবেদন করেছিলাম। কিন্তু তদন্ত এখনও পর্যন্ত নিষ্ফলা তাই হাইকোর্টে মামলা করতে বাধ্য হলাম।"

ঘটনাচক্রে অযোধ্যার রাজ্য উত্তরপ্রদেশ হাসিন জাহানের শ্বশুর বাড়ি। মহঃ শামির সঙ্গে তাঁর মামলা-মোকদ্দমা চললেও এখনও উত্তর প্রদেশের সঙ্গে তাঁর একটা ভাললাগা রয়েছে। হাসিন জাহানের আইনজীবী আশিস কুমার চৌধুরী জানান, " ধর্মচারণের অধিকার সংবিধান স্বীকৃত। যে কোনও ধর্মের প্রতি সহানুভূতিশীল হওয়া অন্যায় নয়। আমার মক্কেল পোস্ট করে সহানুভূতি জানায়। রাষ্ট্রের উচিত তাঁকে সুরক্ষা দেওয়া।"

Published by: Pooja Basu
First published: September 14, 2020, 9:02 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर