কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

‘পশ্চিমবঙ্গ কি অঘোষিতভাবে জরুরি অবস্থা জারি হয়ে গিয়েছে?’ আইপিএস বদলি নিয়ে তোপ মমতার

‘পশ্চিমবঙ্গ কি অঘোষিতভাবে জরুরি অবস্থা জারি হয়ে গিয়েছে?’ আইপিএস বদলি নিয়ে তোপ মমতার

মুখ্যমন্ত্রী সোমবার নবান্নের সাংবাদিক সম্মেলন থেকে সেই দাবি খারিজ করে বলেন একমাত্র জরুরি অবস্থা বা অত্যন্ত জরুরি পরিস্থিতির সময়েই এই ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া যায়।

  • Share this:

#কলকাতা: জেপি নাড্ডার কনভয় হামলার ঘটনায় রাজ্য পুলিশের তিন শীর্ষ আধিকারিককে সরিয়ে দেওয়ার বিষয়টি নজিরবিহীন বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, সংবিধানে এর সংস্থান থাকলেও পশ্চিমবঙ্গের আগে অন্য কোন রাজ্যে এমনটা ঘটেনি। একমাত্র জরুরি অবস্থার সময় রাজ্যকে এড়িয়ে এই ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া সম্ভব বলে তিনি মন্তব্য করেন।

সম্প্রতি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ দাবি করেছিলেন সাংবিধানিক ক্ষমতার গণ্ডির মধ্যে থেকেই কেন্দ্রীয় সরকার ওই তিন আধিকারিককে ডেপুটেশনে পাঠিয়েছে। এতে বেআইনি কিছু নেই। মুখ্যমন্ত্রী সোমবার নবান্নের সাংবাদিক সম্মেলন থেকে সেই দাবি খারিজ করে বলেন একমাত্র জরুরি অবস্থা বা অত্যন্ত জরুরি পরিস্থিতির সময়েই এই ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া যায়। কেন্দ্রীয় সরকার পশ্চিমবঙ্গের অঘোষিত জরুরি অবস্থা জারি করেছে কিনা তা নিয়ে তিনি প্রশ্ন তোলেন।

বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডার কনভয়ে হামলার পরেই রাজ্যের তিন আইপিএস অফিসারকে ডেপুটেশনে নিতে চায় কেন্দ্র৷ তাঁরা হলেন ডায়মন্ড হারবারের পুলিশ সুপার ভোলানাথ পান্ডে, প্রেসিডেন্সি রেঞ্জের ডিআইজি প্রবীণ কুমার এবং দক্ষিণবঙ্গের আইজি রাজীব মিশ্র৷ যদিও এই অফিসারদের ছাড়তে রাজি হয়নি রাজ্য৷ এই নিয়ে কেন্দ্র রাজ্যের মধ্যে শুরু হয় টানাপোড়েন৷

রাজ্যের আপত্তি অগ্রাহ্য করে বৃহস্পতিবার তিন অফিসারকে বদলির চিঠি দেয় কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক৷ সেই চিঠি অনুযায়ী, দক্ষিণবঙ্গের আইজি রাজীব মিশ্রকে ইন্টো টিবেটান বর্ডার পুলিশে পাঠানো হয়েছে পাঁচ বছরের জন্য৷ প্রেসিডেন্সি রেঞ্জের ডিআইজি প্রবীণ কুমার যাচ্ছেন এসএসবি-তে৷ তাঁকেও পাঁচ বছরের জন্য পোস্টিং দেওয়া হয়েছে৷ আর ডায়মন্ড হারবার পুলিশ জেলার এসপি ভোলানাথ পান্ডেকে তিন বছরের জন্য পুলিশ রিসার্চ ব্যুরোতে পাঠানো হয়েছে৷ অবিলম্বে ওই অফিসারদের ছেড়ে দেওয়ার জন্য রাজ্যকে নির্দেশ দেওয়া হয়৷

কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের তীব্র সমালোচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ তিনি অভিযোগ করেন, রাজ্যের অধিকারে হস্তক্ষেপ করছে কেন্দ্র৷ যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোয় আঘাত হানারও অভিযোগ তোলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তখনই স্পষ্ট হয়ে যায়, কেন্দ্রের নির্দেশ মানবে না রাজ্য৷

Abir Ghosal

Published by: Elina Datta
First published: December 21, 2020, 7:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर