মেট্রোয় চাপবে বলে স্টেশনে অপেক্ষা হনুমানের !

মেট্রোয় চাপবে বলে স্টেশনে অপেক্ষা হনুমানের !

সোমবার সকালে তখন আড়মোড়া ভেঙে মহানায়ক উত্তম কুমার স্টেশনে যাত্রীদের আনাগোনা শুরু হয়েছে। হঠাৎ করেই যাত্রীদের নজর যায় দমদমগামী প্ল্যাটফর্মের কারশেড প্রান্তে।

  • Share this:

#কলকাতা: চোখের সামনে দিয়ে রোজ চলে যায় মেট্রো। দরজা খোলা অবস্থায় মেট্রো চললেও চাপার সুযোগ হয়নি। তাই বিভিন্ন জায়গায় যখন রেল জ্বলছে তখন মেট্রো চেপে দেখার সুযোগ ছাড়তে চাননি তিনি। হ্যাঁ তিনি মেট্রো চাপতেই এসেছিলেন।

সোমবার সকালে তখন আড়মোড়া ভেঙে মহানায়ক উত্তম কুমার স্টেশনে যাত্রীদের আনাগোনা শুরু হয়েছে। হঠাৎ করেই যাত্রীদের নজর যায় দমদমগামী প্ল্যাটফর্মের কারশেড প্রান্তে। তখন সেখানে বসে আছেন পবনপুত্র হনুমান। হনুমানের দিকেই নজর যেতে হুড়োহুড়ি পরে যায় যাত্রীদের মধ্যে। প্ল্যাটফর্ম ছেড়ে অনেকেই ঢোকা বেরোনোর গেটের দিকে দৌড়তে শুরু করেন। যাত্রীদের দৌড়ানোর ছবি সিসিটিভি মাধ্যমে নজর আসে আর পি এফের। আর পি এফ কর্মীরা লাঠি নিয়ে হনুমান হঠাতে গেলেও ব্যর্থ হন।

এরপর আর পি এফ কর্মী রাজীব দাস ফোন করেন স্থানীয় রিজেন্ট পার্ক থানায়। খবর দেওয়া হয় বন দফতরকেও। বন দফতর যতক্ষণে এসে পৌঁছল ততক্ষণে অবশ্য স্টেশন জুড়ে ছুটে বেডিয়েছে পবন পুত্র। কলা, পাউরুটির লোভ দেখালেও বাগে আনতে পারা যায়নি তাকে।

শেষ মেষ প্রায় ২ ঘন্টা পরে যখন বন দফতর এসে পৌছয় ততক্ষণে ক্লান্ত হয়ে কারশেডের দিকে চলে যায় হনুমান। কিন্তু কোথা থেকে কিভাবে সে স্টেশনে ঢুকে পড়ল তা বুঝে উঠতে পারছেন না কেউই। স্টেশন ও কারশেডের পাশে রয়েছে একাধিক গাছ। ফলে সেই গাছ থেকে টালিগঞ্জ স্টেশন এলাকায় ঢুকে পড়া সম্ভব। কিন্তু এভাবে যদি হনুমান ঢুকে পড়ে তাহলে ট্রেন চালানো নিয়ে অসুবিধায় পড়তে হবে মেট্রো কর্তৃপক্ষকে। কিন্তু এত কিছুর পরেও বোধহয় মেট্রো চাপতে না পেরেই দুঃখে স্টেশন ছাড়ল পবন পুত্র। হাঁফ ছেড়ে বাঁচল মেট্রো।

First published: December 16, 2019, 7:38 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर