যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন রোগী, একের পর এক রেফারের পর NRS-এর বাইরে রাস্তায় পড়ে রইলেন রাতভর

যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন রোগী, একের পর এক রেফারের পর NRS-এর বাইরে রাস্তায় পড়ে রইলেন রাতভর
  • Share this:

#কলকাতা: এনআরএসে এমারজেন্সির উলটোদিকে বসে ছটফট করছেন বছর কুড়ির এক যুবক। গতকাল থেকেই খোলাআকাশের নীচে চলছে যন্ত্রণার দিনযাপন। কলকাতার একাধিক হাসপাতাল ঘুরেও মেলেনি চিকিৎসা। রেফার-রোগের শিকার চন্দ্রকোণার দুর্ঘটনাগ্রস্ত সুমন দাস। আক্ষরিক অর্থেই গুরুতর জখম ছেলেকে নিয়ে পথে বসে দিশাহারা মা।

কে দেবে উত্তর। সরকারি হাসপাতালের রেফার রোগ সারছেই না। শনিবার মাঝরাতে বাইক দুর্ঘটনায় মাথায়, মুখে, হাতে গুরুতর জখম হন পশ্চিম মেদিনীপুরের চন্দ্রকোণার বাসিন্দা সুমন দাস। তাঁর চোয়ালের হাড় ভেঙে যায়। প্রাথমিক চিকিৎসা হয় ঘাটাল মহকুমা হাসপাতালে। রবিবার তাঁকে রেফার করা হয় এসএসকেএমে। বেড মেলেনি। এসএসকেএম থেকে ন্যাশনাল মেডিক্যাল। সেখান থেকে এনআরএস।

রবিবার রাত থেকে এনআরএসে ঠাঁই মিলেছে। তবে বেডে নয়। এমারজেন্সির উল্টোদিকে। রাস্তায়। সোমবার সকালে সুমনকে মৌলালির ডেন্টাল কলেজে পাঠানো হয়। সেখান থেকে ফিরে ফের ঠিকানা সেই রাস্তা।

এমন আরও অনেক সুমন আছেন। অসহায়। দিশাহারা। অমানবিক হাসপাতালের গলিঘুজিতে যন্ত্রণার উপশম খুঁজছেন। মুখ্যমন্ত্রী চাইলেও, রেফার রোগের চিকিৎসা হচ্ছে কৈ?

First published: November 25, 2019, 9:49 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर