• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • শুধুই সার্কুলার নয়, ধর্মঘটে কাজে না আসা কর্মীদের বেতন কাটল সরকার

শুধুই সার্কুলার নয়, ধর্মঘটে কাজে না আসা কর্মীদের বেতন কাটল সরকার

হুঁশিয়ারি ছিলই। এবার করে দেখাল কলকাতা পুরসভা। ২রা সেপ্টেবরের ধর্মঘটের দিন কাজে যোগ না দেওয়ার খেসারৎ।

হুঁশিয়ারি ছিলই। এবার করে দেখাল কলকাতা পুরসভা। ২রা সেপ্টেবরের ধর্মঘটের দিন কাজে যোগ না দেওয়ার খেসারৎ।

হুঁশিয়ারি ছিলই। এবার করে দেখাল কলকাতা পুরসভা। ২রা সেপ্টেবরের ধর্মঘটের দিন কাজে যোগ না দেওয়ার খেসারৎ।

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    #কলকাতা: হুঁশিয়ারি ছিলই। এবার করে দেখাল কলকাতা পুরসভা। ২রা সেপ্টেবরের ধর্মঘটের দিন কাজে যোগ না দেওয়ার খেসারৎ। একদিনের বেতন কেটে নেওয়া হল জাহাজে জল সরবরাহকারী পুরসভার ষোলজন কর্মীর। এভাবে বেতন কাটা যাওয়ায় ক্ষুব্ধ কর্মীরা। আইনের সাহায্য নিচ্ছেন তাঁরা। শুধুই মুখের কথা নয়। কাজেও করে দেখাল সরকার। ২ রা সেপ্টেম্বর ধর্মঘটের দিন কাজে যোগ না দেওয়ায় একদিনের বেতন কেটে নেওয়া হল ষোল পুরকর্মীর ।  জাহাজে জল সরবরাহকারী ষোল পুরকর্মীর বেতন কাটা গেল। প্রথমে তাঁদের শোকজ নোটিস পাঠানো হয়। উত্তরে সন্তুষ্ট হয়নি পুর কর্তৃপক্ষ। এরপরই বেতন কাটার সিদ্ধান্ত নেয় পুরসভা। আইনের সাহায্য নিচ্ছেন বেতন কাটা যাওয়া পুরকর্মীরা। এভাবে বেতন কাটা নিয়ে ভিন্ন মত আইনজীবীদের। একদিন কাজ না করলে বেতন কাটা যেতেই পারে । তবে যদি ধর্মঘটের দিন সরকারি কর্মীরা কাজ করলে একদিন অতিরিক্ত ছুটি ঘোষণা করে রাজ্য সরকার, সেক্ষেত্রে ধর্মঘটে অংশ নেওয়া কর্মীদের বেতন কাটাও নীতিবিরুদ্ধ কাজ।

    সরকারের নির্দেশিকা মেনে কলকাতা পুরসভার বেতন কাটার সিদ্ধান্তে কোনও ভুল নেই । নিয়মমত এমনটা করা যেতেই পারে । একজিকিউটিভ ইঞ্জিনিয়ার এক্ষেত্রে নিয়ম মেনেই বেতন কাটার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ধর্মঘট রুখতে মরিয়া মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার । সার্কুলার জারি করেই দায়িত্ব সারেনি সরকার। একটি কাজের দিনও যাতে নষ্ট না হয় তার জন্য এবার সরাসরি একদিনের বেতনই কেটে নেওয়া হল। তবে এই সিদ্ধান্তে কী আদৌ বদলাবে বাংলার বনধ কালচার? থেকেই যাচ্ছে প্রশ্নটা।

    First published: