কলকাতা

corona virus btn
corona virus btn
Loading

খুশির খবর!‌ কোভিড প্রটোকল মেনে খুলে গেল আলিপুর চিড়িয়াখানা

খুশির খবর!‌ কোভিড প্রটোকল মেনে খুলে গেল আলিপুর চিড়িয়াখানা

কোভিডের কারণে হাতে টিকিট কাটার ব্যবস্থাই আপাতত বন্ধ রাখছেন চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। দর্শকদের আগেই অনলাইনে টিকিট কেটে ভিতরে ঢুকতে হবে।

  • Share this:

#‌কলকাতা:‌ প্রায় পাঁচ মাস পরে আজ, শুক্রবার, ২ অক্টোবর থেকে খুলে গেল কলকাতা চিড়িয়াখানা। তবে কোভিড আবহে চিড়িয়াখানা খুলল প্রয়োজনীয় স্বাস্থ্যবিধি মেনেই।

কোভিড প্রকোপ এবং তার পরে লকডাউন শুরুর পর থেকেই দর্শকদের জন্য বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল চিড়িয়াখানা। পাঁচ মাসের মতো দীর্ঘ সময় বাদে ফের তা খুলল। তবে 'নিউ নর্ম্যাল' আবহে বেশ কিছু নিয়মের পরিবর্তন ঘটিয়েই খোলা হল চিড়িয়াখানা। পুজোর ঠিক আগে চিড়িয়াখানা খোলায় দর্শক সমাগমও ভালই হবে বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করছেন চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। নতুন নিয়মে পাঁচ হাজারের বেশি দর্শককে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হবে না। প্রথম দিন দর্শক সংখ্যা পাঁচ হাজার না ছাড়ালেও খুব শীঘ্রই তা হবে বলে মনে করছেন চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ।

কলকাতা চিড়িয়াখানার ডিরেক্টর আশিসকুমার সামন্ত এ দিন বলেন, "এই সময়ে চিড়িয়াখানায় কোনও পানীয় জলের ব্যবস্থা থাকবে না। দর্শকদের সে কথা মাথায় রেখে জল নিয়েই চিড়িয়াখানায় ঢুকতে হবে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চিড়িয়াখানার ভিতরে থুতু ফেলা বা গুটখা কিংবা পান খাওয়ার ওপরে নিষেধাজ্ঞা থাকছে। কোনও দর্শককেই চিড়িয়াখানার খাঁচার কাছাকাছি যেতে দেওয়া হবে না। হাত দেওয়া যাবে না রেলিংয়েও।"

ডিরেক্টর জানান, স্বাস্থ্যবিধির কারণে প্রত্যেক দর্শককে হাত স্যানিটাইজার দিয়ে পরিষ্কার করে তবেই চিড়িয়াখানার মধ্যে ঢুকতে দেওয়া হবে। দর্শকেরা যাতে সামাজিক এবং শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখেন, তা নিশ্চিত করতে চিড়িয়াখানার ভিতরে নির্দিষ্ট দূরত্বে দাগ কেটে দেওয়া থাকছে।

কোভিডের কারণে হাতে টিকিট কাটার ব্যবস্থাই আপাতত বন্ধ রাখছেন চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। দর্শকদের আগেই অনলাইনে টিকিট কেটে ভিতরে ঢুকতে হবে। চিড়িয়াখানার স্বাস্থ্য পরিবেশ বজায় রাখতে নিয়মিত স্যানিটাইজ করা হবে চিড়িয়াখানার ভিতর এবং খাঁচাগুলি।

বন দফতরের এক কর্তা বলেন, "নয়া বিধি যাতে সব দর্শক মেনে চলেন, তা নিশ্চিত করতে থাকছে প্রচুর সংখ্যায় নিরাপত্তা রক্ষীও।" প্রথম দিনে অবশ্য দর্শক সমাগম পাঁচ হাজার না হলেও সংখ্যা ভালই ছিল আর দর্শকেরা এসেও খুব খুশি। আড়াই বছরের শিশুকে নিয়ে এ দিন চিড়িয়াখানা এসেছিলেন তিমিরবরণ রায়। তিনি বলেন, "চার দিকে এত হতাশা আর খারাপ খবর। তার মধ্যে চিড়িয়াখানায় এসে মনটা সত্যিই খুব ভাল লাগছে।"

SHALINI DATTA

Published by: Uddalak Bhattacharya
First published: October 2, 2020, 9:01 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर