এটা দিল্লি নয়, কলকাতা, গোলি মারো... বললে কাউকে ছাড়া হবে না: মমতা

এটা দিল্লি নয়, কলকাতা, গোলি মারো... বললে কাউকে ছাড়া হবে না: মমতা

দিল্লি নয়, রবিবার কলকাতার রাস্তাতেই শোনা গিয়েছে গোলি মারো..... ৷ সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রীর মুখে এমন হুঁশিয়ারি ৷

  • Share this:

#কলকাতা: পাখির চোখ ২০২১ । গেরুয়া শিবিরের পাল্টা ঝুলি থেকে এবার নতুন অস্ত্র বের করছে ঘাসফুল শিবির। 'দিদিকে বলো'র পর এবার তৃণমূলের নয়া কর্মসূচি 'বাংলার গর্ব মমতা'। সোমবার নেতাজি ইন্ডোরে সেই কর্মসূচির উদ্বোধনীতেও তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখে দিল্লির পরিস্থিতি ও বিতর্কিত গোলি মারো স্লোগান ৷ দিল্লি নয়, রবিবার কলকাতার রাস্তাতেই শোনা গিয়েছে গোলি মারো..... ৷ সেই ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে মুখ্যমন্ত্রীর মুখে এমন হুঁশিয়ারি ৷ সোমবার নেতাজি ইন্ডোরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘গোলি মারো...’ স্লোগান প্ররোচনামূলক ৷ স্লোগান যারা দিয়েছে, ব্যবস্থা নেওয়া হবে ৷ এটা দিল্লি নয়, এটা বাংলা ৷ কাউকে ছাড়া হবে না ৷’ উল্লেখ্য, রবিবার ধর্মতলায় শহীদ মিনারে অমিত শাহর সভায় যাওয়ার সময় পুলিশের সামনেই বিজেপির মিছিল থেকে উঠল বিতর্কিত 'গোলি মারো.....' স্লোগান ৷ সেই নিয়ে উত্তাল হয়ে উঠল রাজ্য রাজনীতি ৷ আদালতে যাওয়ার উদ্যোগ নেয় সিপিআইএম  ৷ তারপরই রবিবারের রাতের মধ্যেই স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করার পদক্ষেপও নেয় পুলিশ।  সোমবারই সেই মামলা করা হয়। জামিন অযোগ্য ধারা যুক্ত করে ১৫৩এ- (কোন সম্প্রদায়ের মধ্যে বিভেদ ছড়ানোয় উষ্কানি দেওয়া) ৫০৫- (কোন সম্প্রদায়েরকে হুমকি দেওয়া) ৫০৬- (হুমকি) ও ৩৪- (সমবেত হয়ে কাজ করা) এই ধারা গুলি যুক্ত করে নিউ মার্কেট থানা তদন্ত শুরু করে। বেশকিছু ভিডিও ফুটেজ হাতে আসে কলকাতা পুলিশের। সেগুলি শনাক্ত করে বিতর্কিত স্লোগানে অংশগ্রহণকারীদেরও গ্রেফতারের কাজও শুরু করেছে পুলিশ। ইতিমধ্যেই তিনজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে ৷ অভিযুক্ত তিনজনের নাম সুরেন্দ্র কুমার তিওয়ারি, ধ্রুব বসু ও পঙ্কজ প্রসাদ ৷ তিনজনেই বিজেপির সক্রিয় কর্মী বলে জানা গিয়েছে ৷

দিল্লি নির্বাচনের প্রচারের সময় এই স্লোগান নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি৷ দিল্লিতে প্রচার করতে এসে অনুরাগ ঠাকুর সভায় দাঁড়িয়ে এই স্লোগান দেওয়ায় নির্বাচন কমিশন তাঁকে প্রচার থেকে বিরত করে৷ তাই নিয়ে বিরোধীরাও কথা বলতে ছাড়েনি ৷ এমনকী দিল্লি নির্বাচনে ভরাডুবির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ স্বীকারও করেন, 'গুলি মারো' মন্তব্য করা উচিত হয়নি৷ কিন্তু রবিবার ফের কলকাতায় অমিত শাহের সভার দিনেই শোনা গেল বিতর্কিত গোলি মারো স্লোগান ৷

First published: March 2, 2020, 3:10 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर