Home /News /kolkata /
Gold Businessman murdered in Kolkata|| খুন ঢাকতেই কী অপহরণের ছক? ২৫ লক্ষ টাকা নিয়েও কেন ব্যবসায়ী হত্যা? ধন্দে পুলিশ

Gold Businessman murdered in Kolkata|| খুন ঢাকতেই কী অপহরণের ছক? ২৫ লক্ষ টাকা নিয়েও কেন ব্যবসায়ী হত্যা? ধন্দে পুলিশ

ভিক্টোরিয়ার সামনে মুক্তিপনের ২৫ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়েছিল দুষ্কৃতীকে।

ভিক্টোরিয়ার সামনে মুক্তিপনের ২৫ লক্ষ টাকা দেওয়া হয়েছিল দুষ্কৃতীকে।

Gold Businessman murdered in Kolkata Follow up: গতকাল সোমবার বিকেলে নিজের বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন প্রবীণ ওই ব্যবসায়ী৷ তার পর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন তিনি৷ আজ দেহ উদ্ধার হয়।

  • Share this:

    #কলকাতা: দক্ষিণ কলকাতার লি রোডের বাসিন্দা স্বর্ণব্যবসায়ী এস এল বেদের মৃতদেহ মঙ্গলবার সকালে এলগিন রোডের একটি গেস্ট হাউস থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। ব্যবসায়ীর গলায় ফোনের তার দিয়ে ফাঁস লাগানো ছিল৷ প্রাথমিক ভাবে পুলিশের অনুমান, শ্বাসরোধ করেই ব্যবসায়ীকে খুন করা হয়েছে৷ পরিবারের তরফে সোমবারই ভবানীপুর থানায় অভিযোগ জানানো হয়। পুলিশ তদন্তে নেমে জানতে পেরেছে সোমবার সন্ধ্যায় ওই দুষ্কৃতীকে ২৫ লক্ষ টাকা দেয় ব্যবসায়ীর পরিবার। সেই সময়েই ব্যবসায়ীর ফোন ছুঁড়ে দিয়ে দেয় সে। পুলিশ এরপর সেই ফোনের থেকেই তাওয়ার লোকেশন বার করে ট্র্যাক করে ঘটনাস্থলে পৌঁছয়। কিন্তু মুক্তিপণের ২৫ লক্ষ টাকা পাওয়ার পরেও কেন ব্যবসায়ীকে হত্যা করা হল নির্মমভাবে, তা নিয়ে তৈরি হয়েছে বিস্তর ধোঁয়াশা।

    গতকাল সোমবার বিকেলে নিজের বাড়ি থেকে বেরিয়েছিলেন প্রবীণ ওই ব্যবসায়ী (Businessman murdered in Kolkata)৷ তার পর থেকেই নিখোঁজ ছিলেন তিনি৷ ওই ব্যবসায়ীকে অপহরণ করা হয়েছে বলে দাবি করে প্রায় কোটি টাকা মুক্তিপণ চেয়ে বাড়িতে ফোনও যায় বলে দাবি করেছেন নিহত ব্যবসায়ীর পরিবারের সদস্যরা৷ পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, গলায় ফাঁস লাগিয়েই ওই ব্যবসায়ীকে হত্যা করা হয়েছে৷ ঘটনার তদন্তে নেমেছে লালবাজারের হোমিসাইড শাখা৷

    আরও পড়ুন: নাক ও মুখ দিয়ে সমানতালে বাঁশি বাজান! অনন্য প্রতিভার অধিকারী 'এই' শিল্পীকে চিনে নিন...

    জানা গিয়েছে, সোমবার ২০ নম্বর লি রোডের বাড়ি থেকে পান কিনতে বেরিয়েছিলেন ওই ব্যবসায়ী৷ পরে ওই ব্যবসায়ীর বাড়িতে মুক্তিপণ চেয়ে ফোন গেলে ভবানীপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেন পরিবারের সদস্যরা৷ এর পরেই নিখোঁজ ব্যবসায়ীর খোঁজে নামে পুলিশ৷ ওই ব্যবসায়ীর মোবাইল ফোনের টাওয়ার লোকেশন ধরেই এ দিন সকালে এলগিন রোডের গেস্ট হাউসে পৌঁছয় পুলিশ৷ গেস্ট হাউসের চারতলার একটি ঘর থেকে ব্যবসায়ীর দেহ উদ্ধার হয়৷

    আরও পড়ুন: শতাধিক নিমন্ত্রিতকে নিয়ে কাটা হল কেক! 'নাটা পাঁঠা'র জন্মদিনের এলাহি আয়োজন! তোলপাড়...

    হোটেল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, গেস্ট হাউসের ওই ঘরটি রবিবার থেকে ভাড়া নিয়ে থাকছিলেন এক ব্যক্তি৷ সোমবার বিকেলের দিকে তিনি এস এল বেদ নামে ওই ব্যবসায়ীকে নিয়ে গেস্ট হাউসে আসেন তিনি৷ ওই স্বর্ণ ব্যবসায়ীকে নিজের কাকা বলে পরিচয় দেয় অভিযুক্ত৷ এর পর ওই ব্যক্তি বাইরে যাওয়ার অছিলায় গেস্ট হাউস ছেড়ে বেরিয়ে যায়৷ এ দিন সকালে পুলিশ গেস্ট হাউসে পৌঁছয় চার তলার কুড়ি নম্বর ঘরের দরজা ভেঙে ওই ব্যবসায়ীর দেহ উদ্ধার করে৷

    পলাতক ওই সন্দেহভাজনকেই এখন চিহ্নিত করার চেষ্টা করছে পুলিশ৷ শুধু মুক্তিপণের জন্য খুন, নাকি এই হত্যাকাণ্ডের পিছনে ব্যবসায়িক বা ব্যক্তিগত কোনও শত্রুতা রয়েছে, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ গেস্ট হাউস এবং তার চারপাশের সিসিটিভি ফুটেজও খতিয়ে দেখে অভিযুক্তকে চিহ্নিত করার চেষ্টা করছে পুলিশ৷ পাশাপাশি খুন করার পরেই ঘটনার মোড় অন্য দিকে ঘোরাতে মুক্তিপণ চাওয়া হয়েছিল কি না, তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ কারণ সোমবার বিকেলে ওই ব্যবসায়ীকে গেস্ট হাউসে নিয়ে যাওয়া হয়৷ এর কিছুক্ষণ পর গেস্ট হাউস ছেড়ে বেরিয়ে যায় সন্দেহভাজন ব্যক্তি৷ আর মুক্তিপণ চেয়ে ব্যবসায়ীর বাড়িতে ফোন গিয়েছিল সোমবার রাতে৷ ফলে সবদিকই খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা৷

    শঙ্কু সাঁতরা 

    Published by:Shubhagata Dey
    First published:

    Tags: Kolkata

    পরবর্তী খবর