Home /News /kolkata /
লক ডাউনঃ রাজ্যের প্রতিটি ব্যাঙ্ক খোলা থাকবে প্রতিদিন, নয়া বিজ্ঞপ্তি জারি

লক ডাউনঃ রাজ্যের প্রতিটি ব্যাঙ্ক খোলা থাকবে প্রতিদিন, নয়া বিজ্ঞপ্তি জারি

সংগৃহীত ছবি

সংগৃহীত ছবি

  • Share this:

#কলকাতাঃ আজ থেকে ফের চালু থাকবে প্রতিটি ব্যাঙ্ক। আগামী কয়েকদিন ব্লক, পঞ্চায়েত ও মেট্রো শহরে খুলে রাখা হবে ব্যাঙ্কের প্রতিটি শাখা। কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে ব্যাঙ্ক অফিসার সংগঠনের আলোচনা হয়। সেখানেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আজ থেকে ব্যাঙ্ক খুলে রাখা হবে।

২৬ মার্চ স্টেট লেভেল ব্যাঙ্কারস  কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল, আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যে গ্রামীণ ব্যাঙ্কের শাখা খোলা থাকবে প্রতি একদিন অন্তর। তার পরিপ্রেক্ষিতে এই নয়া ব্যাঙ্কিং কার্যক্রম চালু হয়ে গিয়েছিল। ইতিমধ্যেই এসএলবি-র আহ্বায়ক ব্যাঙ্ক, ইউনাইটেড ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া তাদের তরফে এই বিষয়ে নোটিফিকেশন জারি করে। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, ব্লক ও গ্রাম পঞ্চায়েতের শাখাগুলি খোলা থাকবে চলতি মাসের ২৬ ও ৩০ তারিখ। খোলা থাকবে এপ্রিল মাসের ২, ৪, ৭, ৯, ১১ ও ১৩ তারিখ। বাকি শাখা খোলা থাকবে চলতি মাসের ২৭ ও ৩১ তারিখ। পাশাপাশি এপ্রিল মাসে ৩, ৬, ৮ ও ১৩ তারিখ। ১০ ও ১৪ এপ্রিল নেগোশিয়েবল ইনস্ট্রুমেন্ট আইন অনুযায়ী ব্যাঙ্ক ছুটি থাকবে। ফলে ওই দিন ব্যাংকের কোনও শাখা খোলা থাকবে না। কিন্তু নয়া নিয়মে রোজই আজ থেকে রাজ্যের সমস্ত ব্যাঙ্কের শাখা  খুলা থাকবে।

নয়া সিদ্ধান্তের কারণ, মাস পয়লা থেকে বেতন, পেনশন সব চালু হয়ে যাবে। একদিন বা দু'দিন অন্তর ব্যাঙ্ক খোলা থাকলে সমস্যায় পরবেন সাধারণ মানুষ।  তাই খোলা থাকবে ব্যাঙ্ক। অন্যদিকে, প্রধানমন্ত্রী ত্রাণ তহবিল বা প্রধানমন্ত্রী গরীব কল্যাণ যোজনায় যে প্যাকেজ দেওয়া হবে তার জন্যেও ব্যাঙ্ক খোলা রাখা জরুরি।  তাই ব্যাঙ্ক খোলা রাখার এই সিদ্ধান্ত। করোনা সচেতনতায় আগেই ব্যাঙ্কে মানুষের যাতায়াত কমাতে কাজ এবং সময় কমানো শুরু হয়েছিল। অনলাইন পদ্ধতির ওপর জোর দেওয়ার কথা বলা হয়েছিল। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল রাজ্যের মেট্রো শহর এবং আধা শহরগুলিতে ৫ কিলোমিটারের মধ্যে থাকা একটি ব্যাঙ্কের একটি শাখাই খোলা থাকবে। একাধিক শাখা খোলা রাখা হবে না। বাকি শাখা আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ রাখা হবে।

গ্রামীণ শাখাগুলিকে দুটি ভাগে ভাগ করে দেওয়া হয়েছিল। বিভিন্ন ব্লক ও গ্রাম পঞ্চায়েতে যে সমস্ত শাখা আছে সেগুলিকে প্রথম শ্রেণির শাখা বলা হয়েছে। বাকি শাখাগুলি শুধুমাত্র গ্রামীণ শাখা হিসেবেই পরিচিত থাকবে। তবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে এটিএম ব্যবস্থা পুরোপুরি সচল থাকবে। এটিএম গুলিতে যাতে নগদের অভাব না হয় সে বিষয়ে প্রতিনিয়ত নজর রাখতে বলা হয়েছে। শাখা যে খোলা থাকবে আর বন্ধ থাকবে না তা নোটিস দিয়ে জানিয়ে দিতে বলা হয়েছে। নোটিসে ওই ব্রাঞ্চের প্রধান এবং কন্ট্রোলিং অফিসের যোগাযোগ নাম্বার দিয়ে রাখা হয়েছে । যদি লকডাউনের সময়সীমা বেড়ে যায় তা নোটিস দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে।

অল ইন্ডিয়া ব্যাঙ্ক অফিসারস কনফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জয় দাস জানিয়েছেন, আজ থেকে মেট্রো শহরে ও গ্রামে সমস্ত ব্যাঙ্কের শাখা খুলে দেওয়া হল। হিসেব অনুযায়ী ২৩টি জেলার রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের ৩৬৪৯ টি গ্রামীণ শাখা খুলে দেওয়া হল।  তবে যে সমস্ত ব্যাঙ্ক খোলা হল তাতে  দুরত্ব বজায় রেখেই দাঁড়াতে বলা হয়েছে গ্রাহকদের। অনুরোধ করা হচ্ছে যাতে অনলাইনে গোটা ব্যবস্থার সুযোগ নেন গ্রাহকরা।

ABIR GHOSHAL

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: COVID-19, Lock Down

পরবর্তী খবর