corona virus btn
corona virus btn
Loading

এবার বাংলাতেও ইঞ্জিনিয়ারিং জয়েন্ট, ২০২১ সাল থেকে নতুন নিয়ম শুরু

এবার বাংলাতেও ইঞ্জিনিয়ারিং জয়েন্ট, ২০২১ সাল থেকে নতুন নিয়ম শুরু
Representational Image

বাংলা সহ আরও ১১টি আঞ্চলিক ভাষাতেও পরীক্ষা দেওয়া যাবে। ২০২১ সাল থেকে নতুন নিয়মে পরীক্ষা।

  • Share this:

#কলকাতা: বাংলাতেও সর্বভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারিং জয়েন্ট দেওয়ার সুবিধা। বাংলা সহ আরও ১১টি আঞ্চলিক ভাষাতেও পরীক্ষা দেওয়া যাবে। ২০২১ সাল থেকে নতুন নিয়মে পরীক্ষা। এতদিন ইংরাজি ছাড়া শুধুমাত্র গুজরাতিতেই পরীক্ষা দেওয়া যেত। বাংলা-সহ অন্য আঞ্চলিক ভাষায় ইঞ্জিনিয়ারিং জয়েন্টের দাবিতে সরব হন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এনিয়ে ন্যাশনাল টেষ্টিং এজেন্সিকে চিঠি দেয় রাজ্য। দাবিটা প্রথম তুলেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরে একই দাবি তোলে তামিলনাড়ু, কর্নাটক, ওড়িশার মতো রাজ্য। আঞ্চলিক ভাষায় সর্বভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারিং জয়েন্ট নেওয়ার দাবি। এর ৩ সপ্তাহের মধ্যেই সেই দাবি মেনে জয়েন্ট নিয়ে নিয়ম বদল করল ন্যাশনাল টেষ্টিং এজেন্সি। এতদিন ইংরাজির পাশাপাশি শুধু গুজরাতিতে ইঞ্জিনিয়ারিং জয়েন্ট নেওয়া হবে। ন্যাশনাল টেষ্টিং এজেন্সির এই সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অন্য আঞ্চলিক ভাষায় প্রতি বঞ্চনা নিয়ে ট্যুইটে মুখ্যমন্ত্রী লেখেন, দীর্ঘদিন জয়েন্টের পরীক্ষা হচ্ছে ইংরেজি এবং হিন্দিতে। হঠাৎ করে গুজরাতি ভাষাকে যোগ করা হল। এই সিদ্ধান্ত সমর্থন যোগ্য নয়। আমি গুজরাতি ভাষাকে ভালবাসি। কিন্তু বাকিরা ব্রাত্য কেন ? কেন তাদের প্রতি এই অবিচার ? যদি গুজরাতি থাকে, তাহলে বাকি ভাষাকেও রাখতে হবে।

যদিও মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগ মানতে চায়নি ইঞ্জিনিয়ারিং জয়েন্টের নিয়ামক সংস্থা। ন্যাশনাল টেষ্টিং এজেন্সির তরফে যুক্তি দেওয়া হয় ২০১৩ ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সর্বভারতীয় জয়েন্ট শুরুর সময় একমাত্র গুজরাত এতে যোগ দেয়। তাদের আবেদনেই গুজরাতিতে পরীক্ষার আবেদন করা হয়। অন্য কোনও রাজ্য এই অনুরোধ করেনি। ন্যাশনাল টেষ্টিং এজেন্সির এই বিবৃতিকে হাতিয়ার করে মুখ্যমন্ত্রীকে নিশানা করে বিজেপি নেতৃত্ব। কৈলাস বিজয়বর্গী ট্যুইটে লেখেন, ডিভাইডার দিদি, ভাষার ধুয়ো দিয়ে ভোট রাজনীতি করে লাভ হবে না। আপনি কোনওদিনই বাংলায় জয়েন্ট নেওয়ার দাবি তোলেননি। অথচ এর কয়েকদিনের মধ্যেই ন্যাশনাল টেষ্টিং হাউসকে চিঠি দিয়েছে কেন্দ্রীয় মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রক। চিঠিতে অন্য আঞ্চলিক ভাষাতেও পরীক্ষা চালুর জন্য প্রস্তুতি নিতে বলা হয়। তারপরই ১১টি আঞ্চলিক ভাষায় ইঞ্জিনিয়ারিং জয়েন্ট চালুর সিদ্ধান্ত। ২০২৩ সালের মধ্যে আরও ১১টি আঞ্চলিক ভাষায় পরীক্ষা দেওয়ারও সুযোগ দিতে চায় ন্যাশনা টেষ্টিং এজেন্সি। সেক্ষেত্রে ২২টি আঞ্চলিক ভাষাতেই ইঞ্জিনিয়ারিং জয়েন্ট দেওয়া যাবে।

First published: November 30, 2019, 8:44 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर