মেট্রোয় যাত্রী-মৃত্যুর তদন্তে ফরেনসিক বিভাগ, এখনও দুর্ঘটনার ফুটেজ হাতে পায়নি পুলিশ

বুধবার ফরেনসিক বিভাগের আধিকারিকদের নিয়ে পার্ক স্ট্রিট মেট্রো স্টেশনে যান তদন্তকারীরা। খতিয়ে দেখেন দুর্ঘটনাস্থল।

Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jul 18, 2019 03:15 PM IST
মেট্রোয় যাত্রী-মৃত্যুর তদন্তে ফরেনসিক বিভাগ, এখনও দুর্ঘটনার ফুটেজ হাতে পায়নি পুলিশ
Bangla Editor | News18 Bangla
Updated:Jul 18, 2019 03:15 PM IST

#কলকাতা: মেট্রোয় যাত্রী-মৃত্যুর তদন্তে ফরেনসিক বিভাগ। আজ পার্ক স্ট্রিট স্টেশনে দুর্ঘটনাস্থল খতিয়ে দেখেন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। নোয়াপাড়া কারশেডে মেধা রেকটি বাইরে থেকে খতিয়ে দেখেন তাঁরা। এদিকে চারদিন পরও দুর্ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ হাতে পেল না পুলিশ।

- কীভাবে মৃত্যু হল সজল কাঞ্জিলালের?

- দুর্ঘটনা না গাফিলতি?

- গাফিলতি হলে দায় কার?

উত্তরের খোঁজে ফরেনসিক বিভাগের দ্বারস্থ শেক্সপিয়র সরণি থানার পুলিশ। বুধবার ফরেনসিক বিভাগের আধিকারিকদের নিয়ে পার্ক স্ট্রিট মেট্রো স্টেশনে যান তদন্তকারীরা। খতিয়ে দেখেন দুর্ঘটনাস্থল।

Loading...

- যাত্রী মৃত্যুর তদন্তে ফরেনসিক বিভাগ

শনিবার মেধা রেকের তিন নম্বর কামরার, প্রথম দরজা দিয়ে ওঠার চেষ্টা করেছিলেন সজল কাঞ্জিলাল।

এদিন সেই দরজার অবস্থান থেকে কবি সুভাষমুখী প্ল্যাটফর্মের শেষ প্রান্তের দূরত্ব মাপেন ফরেনসিক বিশেষজ্ঞরা। তারপর প্ল্যাটফর্মের শেষ প্রান্ত থেকে যেখানে প্রৌঢ়ের দেহ পড়েছিল, সেখানকার দূরত্ব মাপা হয়। জানা যায়, ট্রেনের দরজা থেকে ঝুলতে ঝুলতে সাতান্ন মিটার দূরে গিয়ে পড়েছিলেন প্রৌঢ়।

প্ল্যাটফর্মের শেষে স্টিলের ব্যারিকেড থেকে ট্রেনের দূরত্ব এবং ট্রেনের ডোর প্যানেল থেকে প্ল্যাটফর্মের হলুদ বর্ডারের দূরত্ব মেপে দেখা হয়। 'লেজার বিম ডিস্টেন্স মেজারমেন্ট' ডিভাইস দিয়ে দূরত্ব মাপেন বিশেষজ্ঞরা। মেট্রোর সিগন্যালিং ব্যবস্থাও খতিয়ে দেখেন তাঁরা।

- মেট্রো স্টেশনে মাপজোক ফরেনসিক বিশেষজ্ঞদের

- ৩ নম্বর কোচের দরজা থেকে প্ল্যাটফর্মের শেষ প্রান্তের দূরত্ব

- প্ল্যাটফর্মের শেষ প্রান্ত থেকে দেহ পড়ে থাকার দূরত্ব

- প্ল্যাটফর্মের শেষে স্টিলের ব্যারিকেড থেকে ট্রেনের দূরত্ব

- ডোর প্যানেল থেকে প্ল্যাটফর্মের হলুদ বর্ডারের দূরত্ব

- দূরত্ব মাপতে লেজার বিম ডিস্টেন্স মেজারমেন্ট ডিভাইস

- মেট্রোর সিগন্যালিং ব্যবস্থা পরীক্ষা

মেধা রেকের দরজা খোলা থেকে বন্ধ হওয়া পর্যন্ত মোট চব্বিশ সেকেন্ড সময় লাগে। শনিবার এই সময়ের মধ্যেই কি ট্রেনে উঠতে চেষ্টা করেছিলেন সজল কাঞ্জিলাল? এদিন তাও বোঝার চেষ্টা করেন বিশেষজ্ঞরা।

পার্ক স্ট্রিট স্টেশন থেকে মেট্রোতেই নোয়াপাড়া কারশেডে যায় ফরেনসিক বিভাগ ও শেক্সপিয়র সরণি থানার পুলিশ। যাওয়ার পথে ইলেকট্রনিক ডিভাইসের মাধ্যমে মেট্রোর পিক আপ পরীক্ষা করেন তাঁরা। নোয়াপাড়া কারশেডে মেধা রেকটি বাইরে থেকে পরীক্ষা করেন বিশেষজ্ঞরা। মেট্রোর দরজা, তাতে লাগানো রাবারের আস্তরণ-সবই খতিয়ে দেখা হয়।

তদন্ত করতে মেধা রেকটি ভিতর থেকে পরীক্ষা করা অত্যন্ত জরুরি। একাজে চেন্নাইয়ের ইন্টিগ্রাল কোচ ফ্যাক্টরি সাহায্য চাওয়া হয়েছে। তবে চারদিন পেরিয়ে গেলেও দুর্ঘটনার সিসিটিভি ফুটেজ হাতে পায়নি পুলিশ। ফুটেজ পেতে ফের মেট্রোর কাছে আবেদন করা হয়েছে। নিউজ এইটিন বাংলা।

First published: 03:15:16 PM Jul 18, 2019
পুরো খবর পড়ুন
Loading...
अगली ख़बर